1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘শিশু যোদ্ধা’ নিয়োগ বাড়িয়েছে তালেবান

আফগানিস্তানে শিশুদের যুদ্ধে সৈনিক হিসেবে ব্যবহার বাড়িয়েছে তালেবান, দাবি করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচ৷ কিছুক্ষেত্রে দশ বছর বয়সি শিশুদের সৈনিক হিসেবে ব্যবহারের তথ্য মিলেছে৷

আফগানিস্তানের কুন্দুস প্রদেশের একটি জেলায় গতবছর কমপক্ষে ১০০ শিশুকে সৈনিক হিসেবে যুদ্ধে নিয়োগ করেছে তালেবান, বুধবার হিউম্যান রাইটস ওয়াচের (এইচআরডাব্লিউ) এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে এই তথ্য৷

যদিও গত নব্বই দশক থেকে তালেবান শিশুদের সৈনিক হিসেবে ব্যবহার করছে, তাসত্ত্বেও কুন্দুসের স্থানীয় বাসিন্দা এবং বিশ্লেষকরা বলছেন গত বারো মাসে এই ব্যবহারের পরিধি অনেক বেড়েছে৷ গত এপ্রিল থেকে আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলে হামলার পরিমাণ বাড়িয়েছে জঙ্গি গোষ্ঠীটি৷ আর সেসব হামলায় ব্যবহার হচ্ছে শিশু সৈনিকরাও৷

তবে আন্তর্জাতিক মানবিক আইনে ১৫ বছর কম বয়সি কাউকে যুদ্ধক্ষেত্রে মোতায়েন করাকে যুদ্ধাপরাধ হিসেবে গণ্য করা হয়৷

এইচআরডাব্লিউ-র গবেষণা মূলত কুন্দুসকে ঘিরে৷ সংস্থাটি মনে করে, সেখানকার মাদ্রাসাগুলোতে শিশুদের জঙ্গি প্রশিক্ষণ দেয়া হয়৷ বিশেষ করে কিভাবে অস্ত্র পরিচালনা করতে হয় এবং বোমা তৈরি ও ব্যবহার করতে হয় তা শিখানো হয় শিশুদের৷ আর মূলত গরিব পরিবারের শিশুরা এসব মাদ্রাসার শিক্ষার্থী

তালেবান অবশ্য শিশুদের যুদ্ধক্ষেত্রে মোতায়েন করার অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷ তাদের দাবি হচ্ছে, শারীরিক এবং মানসিকভাবে পরিপক্কদের সৈনিক হিসেবে নিয়োগ করা হয় এবং যাদের এখনো দাঁড়ি গজায়নি তাদের কোনো অভিযানে অন্তর্ভূক্ত করা হয় না৷

উল্লেখ্য, কুন্দুসে ২০১৪ সাল অবধি ন্যাটো নেতৃত্বাধীন আন্তর্জাতিক বাহিনী অবস্থান করেছে৷ তারা সেখান থেকে চলে আসার পর ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে প্রদেশটির অধিকাংশ এলাকা তালেবান দখল করে নেয় এবং এখনো সেসব অঞ্চল জঙ্গি গোষ্ঠীটির দখলে রয়েছে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়