1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শিশু ধর্ষককে নপুংসক করে দেয়া হোক

এক বা দু'জন নয়, মালয়েশিয়ায় অনেক শিশুকে যৌন হয়রানি ও ধর্ষণকারী ব্রিটিশ নাগরিক রিচার্ড হাকলেকে ২২ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে লন্ডনের একটি আদালত৷

৩০ বছর বয়সি হাকলেকে সোমবার এই শাস্তির আদেশ দেন আদালত৷ শাস্তি কার্যকর হবে গ্রেপ্তারের দিন থেকে৷ এই আদেশের পর মালয়েশিয়ার সমালোচনা এখন তুঙ্গে এই নিয়ে যে, প্যারোলে যদি হাকলে মুক্তি পায় তবে আরো অনেক শিশুর জীবন হুমকির মুখে পড়বে৷ তারা সবাই বলছে, এই শাস্তি নিতান্তই কম হয়েছে তার জন্য৷ উচিত ছিল তাকে খোজা করে দেয়া বা মৃত্যুদণ্ড দেয়া৷

মালয়েশিয়ার শীর্ষ দৈনিক পত্রিকা দ্য স্টারে বলা হয়েছে, ১৯১ শিশু যার লালসার শিকার, ২৪ বছর পরেই সে বেরিয়ে এসে ঠিক একই কাজ করবে৷ আর একটি পত্রিকা বলছে ১,০০০ বছরের কারাদণ্ডও তার জন্য যথেষ্ট নয়৷

মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে শিক্ষার্থী ও আলোকচিত্রী হিসেবে কাজ করা হাকলে শিশুদের ছবি তুলতো৷ এ কাজ করার সময় ৭১ জন শিশুকে নির্যাতনের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছে সে৷ ২০১৪ সালে বড়দিন উদযাপন থেকে মালয়েশিয়া ফেরার সময় লন্ডনের গ্যাটউইক বিমানবন্দরে গ্রেপ্তার করা হয় তাকে৷

পুলিশ হাকলের ল্যাপটপ এবং ক্যামেরায় ২০,০০০ স্থির চিত্র খুঁজে পায়, যেখানে শিশুদের যৌন হয়রানি ও ধর্ষণের ছবি রয়েছে৷ সেখানে ১৯১ জন শিশুর ছবি পাওয়া গেছে৷ ল্যাপটপে একটি ম্যানুয়েলে লেখা আছে, যার শিরোনাম ‘‘পেডোফিলড অ্যান্ড পোভারটি: চাইল্ড লাভার গাইড''৷

মালয়েশিয়ার শিশু অধিকার কর্মী শর্মিলা শেকারান এ রায় নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন৷ তার জিজ্ঞাস্য-হাকলের বয়স এখন মাত্র ৩০, ২৪ বছর পর তার বয়স হবে পঞ্চাশোর্ধ্ব৷ তখন যে সে এমন কর্মকাণ্ড করবে না তা নিশ্চিত করে কে বলতে পারে! তবে এই ঘটনায় মালয়েশিয়ার শিশু প্রতিরোধ আইন নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে৷

এদিকে হাকলের এই রায়ের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়ার নাগরিকরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কঠোর শাস্তির দাবি তুলেছেন৷

মালয়েশিয়া নিউজ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে এই ঘটনার উপর, যেখানে বলা হয়েছে মালয়েশিয়ার মানুষ হাকলের আরো কঠোর শাস্তি চায়৷

বিবিসির প্রতিনিধি বেন আনডো টুইটারে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন শেয়ার করেছেন৷

এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

ধর্ষক, বিশেষ করে যে শিশুকে ধরষণ করেছেন, তাকে কি নপুংসক করে দেওয়া উচিত? জানান মতামত৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন