1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শিক্ষা ব্যবস্থা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম

শিক্ষা ব্যবস্থায় কী ধরনের পরিবর্তন দরকার – তা নিয়ে লিখেছেন এক ব্লগার৷ আর একজনের লেখায় উঠে এসেছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের ভূমিকা৷ এই দুটো বিষয় নিয়েই আজকের ব্লগ ওয়াচ৷

মেহেদী হাসান পলাশ লিখেছেন, ‘‘শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর উভয় পক্ষের যৌক্তিক ভূমিকা রয়েছে৷ প্রচলিত নিয়মে শুধু শিক্ষকের যোগ্যতা দেখা হয় প্রকটভাবে৷ উপেক্ষা করা হয় শিক্ষার্থীর যোগ্যতাকে৷ শিক্ষার্থীর পছন্দ-অপছন্দ, আশা, রুব্ধ, উপলব্ধি, মতামত প্রাধান্য পায় না৷''

তিনি শিক্ষার্থীদের এ প্লাস পাওয়া বিষয়টি উল্লেখ করে লিখেছেন, ‘‘আজকাল অনেকে আবার এ+ এর সাথে সোনার এ+ পাওয়ার জন্য উঠে-পড়ে লেগেছে৷ শিক্ষাদানের ক্ষেত্রে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর উভয় পক্ষের যৌক্তিক ভূমিকা রয়েছে৷ প্রচলিত নিয়মে শুধু শিক্ষকের যোগ্যতা দেখা হয় প্রকটভাবে৷ উপেক্ষা করা হয় শিক্ষার্থীর যোগ্যতাকে৷ শিক্ষার্থীর পছন্দ-অপছন্দ, আশা, রুব্ধ, উপলব্দি, মতামত প্রাধান্য পায় না৷ শুধু থাকে একটা নির্দিষ্ট পাঠ্যসূচির সম্পন্ন করার দ্রুত প্রস্তুতি৷''

মো রফিক জামান সামহয়্যার ইন ব্লগে লিখেছেন, টুইটারে ভাষার দক্ষতা বাড়ে৷ তিনি জানিয়েছেন, ‘‘মাত্র ১৪০ অক্ষরে নিজের চিন্তা ও বার্তা প্রকাশ করা যায় মাইক্রোব্লগিং সাইট টুইটারে৷ গবেষকেরা টুইটারে বহুল প্রচলিত ১০০টি শব্দ বিশ্লেষণ করে দেখেছেন৷ তাঁরা জানিয়েছেন, প্রচলিত ১০০ শব্দের মধ্যে শুধু ‘রিটুইট' ও ‘ইউ' শব্দ দুটি সংক্ষেপে লেখা হয়৷ অন্যান্য শব্দে গড়ে চারেরও বেশি অক্ষর ব্যবহৃত হয়৷''

তিনি লিখেছেন, ‘‘গবেষকদের দাবি-টুইটার আসলে ব্যবহারকারীদের ভাষার দক্ষতা উন্নয়ন করে৷ কম কথায় অর্থ প্রকাশ করতে বাধ্য করে টুইটার৷ বড় বড় বাক্য ব্যবহারের পরিবর্তে কম শব্দে বার্তা প্রদান করতে শেখায়৷''

একই ব্লগার ফেসবুকের স্ট্যাটাস বিষয়ে লিখেছেন,‘‘সর্ববৃহৎ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অন্যতম জনপ্রিয় মাধ্যম ফেসবুক তাদের স্ট্যাটাস দেওয়া বা পোস্ট লেখার নতুন একটি পদ্ধতি নিয়ে পরীক্ষা চালাচ্ছে৷ ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার পর সেই পোস্টটি যাতে স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যায় তার জন্য সময় নির্ধারণ করে দেওয়া যাবে৷ ফেসবুকে এই সুবিধা এলে কোন পোস্ট কতক্ষণ ফেসবুকে রাখতে চান, তা নির্ধারণ করে দিতে পারবেন ব্যবহারকারী৷ এক ঘণ্টা থেকে সাতদিন পর্যন্ত সময় নির্ধারণ করে দেওয়ার সুযোগ থাকবে৷ এরপর স্বয়ংক্রিয়ভাবে মুছে যাবে ওই পোস্টটি৷''

সংকলন: অমৃতা পারভেজ

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়