1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শান্তি সূচকে বাংলাদেশ দক্ষিণ এশিয়ায় তৃতীয়

বিশ্ব শান্তি ও স্থিতিশীলতার সূচকে ভারত, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানের চেয়ে ভালো অবস্থানে আছে বাংলাদেশ৷ তবে পিছিয়ে আছে নেপাল ও ভুটানের চেয়ে৷ কিন্তু এতে উল্লসিত হওয়ার কিছু নেই বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা৷

অষ্ট্রেলিয়ার সিডনিভিত্তিক গবেষণা সংস্থা ইনস্টিটিউট ফর ইকনোমিকস অ্যান্ড পিসের ‘বিশ্ব শান্তি সূচক' অনুযায়ী ১৬২টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৯৮তম৷ বাংলাদেশের এ অবস্থান ‘মধ্যম' পর্যায়ের বলে তাদের মূল্যায়নে বলা হয়েছে৷

সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান তৃতীয়৷ সেখানে ভুটান ও নেপাল যথাক্রমে প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে৷ তবে পাকিস্তান, ভারত ও আফগানিস্তান বাংলাদেশের চেয়ে পিছিয়ে আছে৷

সূচকে ১৪৩তম অবস্থানে রয়েছে ভারত৷ আর ১৫৪তম অবস্থানে থাকা পাকিস্তান শান্তি ও স্থিতিশীলতার দিক থেকে খুবই খারাপ অবস্থায় রয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়৷

দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি আফগানিস্তানে৷ যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশটির অবস্থান ১৬১তম, যার পরেই রয়েছে সূচক অনুযায়ী সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতির দেশ সিরিয়া৷

সমাজে বিদ্যমান সহিংসতা, হত্যা, বেসামরিক নাগরিকের হাতে অস্ত্র, অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব-সংঘাত, রাজনৈতিক অস্থিরতাসহ ২২টি বিষয় মূল্যায়ন করে ওই সূচক নির্ণয় করা হয়৷ এক্ষেত্রে সমাজে শান্তি ও নিরাপত্তা, অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের দ্বন্দ্বের সঙ্গে সম্পৃক্ত এবং সন্ত্রাসী তৎপরতাকেই সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়েছে৷ সহিংসতা দেশগুলোর অর্থনীতির উপর কী প্রভাব ফেলেছে তাও বিবেচনায় আনা হয়েছে৷

বিশ্ব শান্তি সূচকে আইসল্যান্ড প্রথম৷ দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে রয়েছে ডেনমার্ক ও অস্ট্রিয়া৷ সূচক অনুযায়ী শান্তি ও স্থিতিশীলতায় প্রথম দিকের অন্য দেশগুলো হলো নিউজিল্যান্ড, সুইজারল্যান্ড, ফিনল্যান্ড, ক্যানাডা, জাপান, বেলজিয়াম ও নরওয়ে৷

এশিয়ার মধ্যে জাপানই সবচেয়ে শান্তিপূর্ণ ও স্থিতিশীল দেশ হিসেবে তালিকায় স্থান পেয়েছে৷

দক্ষিণ এশিয়ায় বাংলাদেশ ভারত, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তানের চেয়ে এগিয়ে থাকায় উল্লসিত হওয়ার কিছু নেই বলে মনে করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্কের অধ্যাপক ড. ইমতিয়াজ আহমেদ৷ তিনি ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘ঐ তিনটি দেশে দ্বন্দ্ব সংঘাত বেশি এতে কোনো সন্দেহ নেই৷ তাদের এমন কিছু সমস্যা আছে যা বাংলাদেশে নেই৷'' অধ্যাপক ইমতিয়াজ বলেন, ‘‘তবে এটা আসলে খারাপের মধ্যে তুলনা৷ এই তুলনায় বাংলাদেশকে ভালো না বলে মন্দের ভালো বলা যেতে পারে৷''

তিনি বলেন, ‘‘বাংলাদেশে শান্তি ও স্থিতিশীলতার ব্যাপরে বাংলাদেশের নাগরিকরা কি মনে করেন সেটাই আসল বিষয়৷ তারা বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে তুষ্ট কী না তা-ই দেখার বিষয়৷ আমি মনে করি বাংলাদেশের মানুষ বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে কোনোভাবেই সন্তুষ্ট নয়৷''

অধ্যাপক ইমতিয়াজ বলেন, ‘‘বাংলাদেশে রাজনৈতিক সংঘাত আছে, আছে হত্যা-গুম৷ আর আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড সবসময়ই আলোচনায় থাকে৷''

এরসঙ্গে যদি গণতন্ত্রিক ব্যবস্থা, নির্বাচন, বিরোধী দলের অবস্থান, বাক স্বাধীনতা এই বিষয়গুলোকে বিচেনায় নেয়া হয় তাহলে শান্তি ও স্থিতিশীলতার দেশ হতে হলে বাংলাদেশকে আরো অনেক পথ হাঁটতে হবে বলে মনে করেন আন্তর্জাতিক সম্পর্কের এই অধ্যাপক৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়