1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

‌শান্তি নয়, শাস্তি চান অমরনাথ তীর্থযাত্রীরা

সোমবার রাতে দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগে অমরনাথ তীর্থযাত্রীদের ওপর জঙ্গি হামলায় সাতজন নিহত ৭ এবং ১৯ জন আহত হয়েছেন৷ তারপরেও চালু রইল অমরনাথ যাত্রা৷

default

হামলায় ভেঙে যাওয়া বাসের অংশ

আগের রাতেই নিরীহ, নিরস্ত্র তীর্থযাত্রীদের ওপর সশস্ত্র জঙ্গি হামলা হয়েছে৷ প্রাণ হারিয়েছেন সাতজন, যাঁদের মধ্যে পাঁচজনই মহিলা৷ সাতজনের মধ্যে পাঁচজন গুজরাটের বাসিন্দা, দু'জন মহারাষ্ট্রের৷ এঁদের সবার মৃতদেহ এবং গুরুতর জখম ১৯ জন তীর্থযাত্রীকে মঙ্গলবার সকালেই ভারতীয় বিমানবাহিনীর বিশেষ ব্যবস্থায় উড়িয়ে আনা হয় গুজরাটের সুরাটে৷ সেখান থেকে নিহতদের পরিজনেরা দেহগুলি নিয়ে এদিন সকালেই যে যাঁর বাড়ি ফিরে গেছেন৷ আহতদের কয়েকজনকে ভর্তি করা হয়েছে হাসপাতালে, অনেকেই বাড়ি ফিরেছেন৷ গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি এবং তাঁর প্রশাসনের অন্য গুরুত্বপূর্ণ পদাধিকারীরা হাজির থেকে গোটা ঘটনার তদারকি করেছেন৷ তার আগে শ্রীনগর বিমানবন্দরে জম্মু-কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি এবং রাজ্যপাল এন এন ভোরা-র উপস্থিতিতে নিহত তীর্থযাত্রীদের দেওয়া হয়েছে রাষ্ট্রীয় সম্মান৷

Indien Pilger in Kaschmir, Anschlag in Amarnath

হামলার পর নিরাপত্তা বাড়ানো হয়েছে

আহতরা, যাঁরা এদিন সুরাটে পৌঁছে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছেন, তাঁরা সবাই একবাক্যে বলেছেন, যারা এই হামলা ঘটাল, তাদের সবাইকে শাস্তি দিতে হবে৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও এ আক্রমণের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন তাংর টুইটার বার্তায়৷

প্রাথমিক পর্যায়ের তদন্তে যেটা জানা গেছে, পাকিস্তান থেকে আসা চারজন লস্কর-ই-তৈয়বা জঙ্গি এই হামলা করেছে, যাদের সঙ্গে ছিল জম্মু-কাশ্মীরের স্থানীয় হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গিরা৷ হামলার আগে তিন দিন ধরে তারা এই এলাকায় রেকি করেছিল৷ জখম তীর্থযাত্রীরা চাইছেন, এই লস্কর এবং হিজবুল জঙ্গিদের ওপর ভারত সরকার প্রবল, প্রচণ্ড প্রত্যাঘাত করুক৷ এক আহত তীর্থযাত্রী বললেন, তিনি ভারতীয় সেনার এক অফিসারকে নিজের মোবাইল ফোন নম্বর দিয়ে এসেছেন৷ ঐ সেনা অফিসার তাঁকে কথা দিয়েছেন, এর বদলা তাঁরা নেবেন৷ নিহত জঙ্গিদের দেহের ছবি যাতে হোয়াটসঅ্যাপ করে পাঠাতে পারেন, সেই জন্যেই তাঁকে নিজের নম্বর দিয়ে এসেছেন ওই তীর্থযাত্রী, প্রতিশোধের ভাবনা এতটাই তীব্র এখন৷

আক্রান্ত তীর্থযাত্রীদের কথা থেকে উঠে এসেছে আরেকজনের নাম৷ তাঁর নাম সেলিম, যিনি আক্রান্ত বাসটির মালিক এবং চালক৷ সেনা পাহারায় থাকা কনভয়ের বাকি বাসগুলির থেকে পিছিয়ে পড়েছিল এই বাসটি, যেহেতু সেটির চাকায় কিছু সমস্যা হয়েছিল৷ রাতের অন্ধকারের মধ্যে দলছুট বাসটিকে তিনদিক থেকে ঘিরে ধরে গুলিবর্ষণ শুরু করেছিল জঙ্গিরা৷ এই সেলিম তখন বাস না থামিয়ে প্রচণ্ড জোরে চালিয়ে অন্তত এক কিলোমিটার দূরে গিয়ে বাস থামান৷ যাত্রীরা সবাই বলছেন, তা না হলে আরও অনেক বেশি প্রাণহানি হতে পারত৷ সেলিম তাঁদের বাঁচিয়ে দিয়েছেন৷ গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রূপানি এদিন জানিয়েছেন, সেলিমের নাম যাতে বীরত্বের পুরস্কারের জন্য মনোনীত হয়, তার জন্য কেন্দ্র সরকারের কাছে সুপারিশ করবে গুজরাট সরকার৷

ভারতের ১৮টি বিরোধী দল এদিন এক যৌথ সিদ্ধান্তে অমরনাথ যাত্রীদের ওপর এই হামলার নিন্দা করেছে, যাদের মধ্যে কংগ্রেস অন্যতম৷

 

তবে মর্মান্তিক এই ঘটনার পরেও অমরনাথ যাত্রা এদিন বন্ধ হয়নি৷ ঘটনার পর জম্মু-কাশ্মীর উপত্যকায় অমরনাথের দুটি পথ, পহেলগাম এবং বালতাল, দুই রুটেই পাহারা আরও জোরদার করা হয়েছে, বাড়ানো হয়েছে আধা–সেনা জওয়ানের সংখ্যা৷ তার মধ্য দিয়েই এদিন অমরনাথ যাত্রীরা ‘‌হর হর মহাদেও'‌ ধ্বনি তুলে রওনা হয়ে যান৷ এদিন পরিস্থিতির খতিয়ান নিতে দিল্লিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক, সরকারের বিভিন্ন গোয়েন্দা শাখার কর্তাদের মধ্যে বৈঠক হয়৷ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল হাজির ছিলেন এই বৈঠকে৷ কারণ, অমরনাথ যাত্রীদের ওপর জঙ্গি হামলার সম্ভাবনা প্রতি বছরই থাকে৷ এ বছরও আগাম খবর ছিল জঙ্গি ষড়যন্ত্রের। তার পরেও কেন হামলা ঠেকানো গেল না, তা খতিয়ে দেখা হবে৷ অন্যদিকে লস্কর জঙ্গিদের হিজবুল–যোগ নিয়েও বিস্তারিত খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে, জানিয়েছেন কাশ্মীরের বিজেপি–পিডিপি জোট সরকারের মুখ্যমন্ত্রী মেহবুবা মুফতি৷

টুইট করে শোক জানিয়েছেন শাহরুখ খান, ফারহান আখতারের মতো তারকারাও৷ 

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়