1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শান্তি আলোচনা ‘স্থগিত’ করল ইসরায়েল

ফিলিস্তিনের সঙ্গে শান্তি আলোচনা স্থগিত রাখার ঘোষণা দিয়েছে ইসরায়েল৷ বৃহস্পতিবার এক বিবৃতির মাধ্যমে ইসরায়েলের প্রধামন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু এ সিদ্ধান্তের কথা জানান৷

এর আগে ফিলিস্তিনে ঐক্য ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের নেতৃত্বাধীন ফাতাহ এবং যুক্তরাষ্ট্র প্রণীত সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের তালিকাভুক্ত হামাস আগামী পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে একটি অন্তর্বর্তীকালীন ঐক্যমত্যের সরকার গঠনে সম্মত হয়৷ বিবদমান দুটি সংগঠন আগামী ছয় মাসের মধ্যে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিষয়েও ঐকমত্যে পৌঁছায়৷ এর পাল্টা ব্যবস্থা হিসেবেই শান্তি আলোচনা স্থগিত রাখার ঘোষণা দেয় ইসরায়েল৷

বৃহস্পতিবার জরুরি মন্ত্রীপরিষদ বৈঠক শেষে বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর দপ্তর থেকে প্রকাশ করা এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘আজ সন্ধ্যায় ফিলিস্তিন সরকারের সঙ্গে আর আলোচনা না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে মন্ত্রী পরিষদ৷ হামাসের মতো সন্ত্রাসবাদী সংগঠন, যে কিনা ইসরায়েলের ধ্বংস চায়, তার দিকে ঝুঁকে পড়া সরকারের সঙ্গে কোনো আলোচনা হতে পারে না৷''

এ সিদ্ধান্ত ঘোষণার পাশাপাশি ফিলিস্তিনকে সতর্কও করে দিয়েছে ইসরায়েল৷ বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘‘ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপের পরিপ্রেক্ষিতে ইসরায়েল কিছু পাল্টা ব্যবস্থাও নেবে৷''

ইসরায়েলের এ ঘোষণার ফলে মধ্যপ্রাচ্য শান্তি আলোচনা সফল হওয়ার সম্ভাবনা খুব বড় প্রশ্নের মুখে পড়লো৷ নয় মাস আগে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির উদ্যোগে এই শান্তি আলোচনা শুরু হয়৷ কেরি অবশ্য এখনই সব আশা ছেড়ে না দেয়ার পক্ষে৷ তাংর কথায়, ‘‘আমরা কখনোই সব আশা ছেড়ে দেবো না, কিংবা শান্তি প্রতিষ্ঠার অঙ্গীকার থেকে সরে আসবো না৷ আমরা মনে করি, এটাই একমাত্র পথ৷ তবে এ মুহূর্তে পুরো বিষয়টি যে খুব কঠিন একটা পর্যায়ে এসে দাঁড়িয়েছে, তা ঠিক৷''

এদিকে নেতানিয়াহুও শান্তি আলোচনা জারি রাখার একটি উপায়ের কথা উল্লেখ করেছেন৷ এক সাক্ষাৎকারে তিনি ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের প্রতি হামাসের সঙ্গে সমঝোতার সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘‘ফেরার সুযোগ এখনো আছে৷ (হামাসের সঙ্গে) চুক্তিটা বাতিল করলেই তা সম্ভব৷ আশা করি তা করা হবে৷ কারণ, আমরা তেমন একটি ফিলিস্তিন সরকারের সঙ্গেই আলোচনায় বসতে পারি যে সত্যি সত্যিই শান্তি চায়৷''

এসিবি/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি, এপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়