1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শান্তি আলোচনার পথে ইসরায়েলের দ্বিমুখী পদক্ষেপ

প্রথম খবরটি তিন বছর পর ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি আলোচনা পুরোদমে শুরুর আশা জাগানোর মতো৷ শর্ত মেনে ফিলিস্তিনি বন্দিদের মুক্তি দেয়া শুরু করছে ইসরায়েল৷ তবে সবচেয়ে বড় শর্ত অধিকৃত অঞ্চলে বসতি নির্মাণ বন্ধ রাখেনি দেশটি৷

প্রায় তিন বছর ধরে ফিলিস্তিন-ইসরায়েল শান্তি আলোচনা বন্ধ৷ দু সপ্তাহ আগে যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যস্থতায় বিবাদমান দুটি দেশের মধ্যে একটি সমঝোতা বৈঠক হয় ওয়াশিংটনে৷ বৈঠকটিকে সফল বলেই দাবি করা হয়েছিল৷ নয় মাসের মধ্যে ইসরায়েল আর ফিলিস্তিন দুই রাষ্ট্র তত্ত্ব অনুযায়ী শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরের পথে এগোতে শুরু করবে – এমন একটি অঙ্গীকার শোনায় সবাই আশাবাদীও হয়ে উঠছিলেন৷

আশাবাদী হওয়ার আরেকটি কারণ ছিল, ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের দেয়া শর্ত মেনে নিতে ইসরায়েলের সম্মত হওয়া৷ শর্তগুলোর একটি, ইসরায়েলের কাছে আটক কিছু ফিলিস্তিনি বন্দিদের মুক্তি দেয়া, অন্যটি অধিকৃত এলাকায় নতুন করে আর বসতি নির্মাণ না করা৷ ইসরায়েল সরকার বন্দি মুক্তির অঙ্গীকার ইতিমধ্যে রক্ষা করার ইঙ্গিত দিয়েছে, ২৬ জনকে মুক্তি দেয়ার ঘোষণা দিয়ে৷ কিন্তু তাতে আশান্বিত হবার আগেই আশার গুড়ে খানিকটা বালিও ঢেলে দেয়া হয়েছে পূর্ব জেরুজালেম এবং পশ্চিম তীরে নতুন ১ হাজার ১৮৭টি অ্যাপার্টমেন্ট তৈরির অনুমোদনের ঘোষণা দিয়ে৷ ইসরায়েলের আবাসন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অ্যাপার্টমেন্টগুলো তৈরির জন্য অচিরেই দরপত্র আহ্বান করা হবে৷

ইসরায়েলের দুটি পরস্পরবিরোধী সিদ্ধান্ত শান্তি আলোচনা শুরুর উদ্যোগকে আবার নস্যাৎ করে দেয়ার হুমকি৷ ২৬ জন বন্দিকে মুক্তি দেয়ার সিদ্ধান্তে ফিলিস্তিন খুশি৷ তবে ইসরায়েলে দেখা দিয়েছে অসন্তোষ৷ ভুক্তভোগীরা জানিয়েছেন, তাঁরা মুক্তির সিদ্ধান্ত রোধের জন্য আদালতে আপিল করবেন৷ অন্যদিকে ১ হাজার ১৮৭টি নতুন অ্যাপার্টমেন্ট তৈরির সিদ্ধান্ত অনুমোদন পাওয়ায় চলমান সমঝোতা বৈঠকে ফিলিস্তিনি মধ্যস্থতাকারী মোহাম্মেদ শাতায়েহ বলেছেন, ‘‘এতে বোঝা গেল ইসরায়েল আসলে শান্তি আলোচনাকে খুব গুরুত্ব দিচ্ছেনা৷''

সে ক্ষেত্রে ইসরায়েল-ফিলিস্তিনের আসন্ন সমঝোতা বৈঠকটির কার্যকারিতা নিয়ে আগাম প্রশ্ন উঠে যাওয়া স্বাভাবিক৷ ওয়াশিংটনে দু সপ্তাহ আগের বৈঠকের ধারাবাহিকতায় আগামী বুধবারই জেরুজালেমে দ্বিতীয় বৈঠকটি হওয়ার কথা৷

এসিবি/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়