1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

শরণার্থী শিশুদের জার্মান শেখায় রোবোট

রোবোটের নাম ‘নাও'৷ সে নাচতে পারে, বাচ্চাদের পড়াতেও পারে৷ নাও এখন জার্মানিতে আসা শরণার্থী শিশুদের জার্মান ভাষা শেখাতে ব্যস্ত৷ ক্যামেরা, মাইক্রোফোন, সেন্সরে সুসজ্জিত ভাষাশিক্ষক রোবোটের দারুণ সময় কাটছে শিশুদের সঙ্গে৷

জার্মানির বিলেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে শরণার্থী শিশুদের ভাষা শেখানোর এক কর্মসূচিতে অংশ নিচ্ছে নাও৷ প্রায় তিন বছরের এক মানবশিশুর উচ্চতার এই রোবোট ছ'বছর আগে চীনের সাংহাই এক্সপো-তে হাজির হয়েই তাক লাগিয়ে দিয়েছিল৷ যে রোবোট মনের মতো রোবোট পেলে মহানন্দে নাচতেও পারে তাকে দেখে অবাক কে না হবে, বলুন!

বিলেফিল্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে নাও-এর দায়িত্ব শরণার্থী শিশুদের জার্মান শেখানো৷ তাঁর মেমরিতে অনেক জার্মান শব্দ, ব্যকরণের অনেক নিয়ম এবং ব্যখ্যা আগেই ঢুকিয়ে দিয়েছেন বিজ্ঞানীরা৷ ফলে বাচ্চাদের জার্মান পড়াতে তেমন কোনো অসুবিধা হচ্ছে না৷ শ্রেণিকক্ষে ঝানু শিক্ষকের মতো নানা প্রশ্ন করছে নাও৷

উত্তর ভুল হলে সঙ্গে সঙ্গেই বলে উঠছে, ‘নাইন, নাইন, ডাস ইস্ট ফালশ৷' সঠিক উত্তরটা জানিয়ে দিতেও ভুল হচ্ছে না তার৷

সমস্যা শুধু এক জায়গায়৷ শিশুদের আবেগ-অনুভূতি বুঝে রোবোট কিভাবে পড়াবে? শিশুদের অনুভূতি না বুঝলে তাদের মনে ভাষা শেখার আগ্রহ বাড়াবে কী করে রোবোট? নাও-কে নিয়ে এখন এটাই একমাত্র দুশ্চিন্তা৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন