1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

লেজার অপারেশন করে যমজদের আলাদা করা

একই ডিম্বাণু থেকে জন্ম নেওয়া দু'টি অভিন্ন যমজের শিরা ও ধমনিগুলি যদি জোড়া লাগা থাকে, তাহলে ড. কুর্ট হেশার জরায়ুর ভিতরে লেজার অপারেশন করে তাদের নতুন জীবন দান করেন৷

একই ডিম্বাণু থেকে জন্ম নেওয়া অভিন্ন যমজ ফাবিও ও ইলারিও যে আজ বেঁচে আছে, সেটাই এক আশ্চর্য৷ মাতৃগর্ভে দু'জনের জীবনসংশয় ছিল, কেননা তাদের রক্তবাহী শিরা ও ধমনিগুলি পরস্পরের সঙ্গে যুক্ত ছিল৷ তার ফলে দুই যমজের একজন মাত্রাধিক রক্ত পাচ্ছিল, অপর যমজটি পর্যাপ্ত রক্ত পাচ্ছিল না৷

যমজ সন্তানের জননী লরা বাউয়ার বললেন, ‘‘কী হবে, তা জানতাম না৷ দু'টো বাচ্চাকেই হারাব? একটা বাচ্চাকে হারাতে হবে? কী করা যায়? কী করা হবে?''

লরার সমগ্র আশা প্রিন্যাটাল বা প্রাক-জন্ম পর্যায়ের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কুর্ট হেশার-এর ওপর৷ গোটা ইউরোপে হাতে গোনা যে কয়েকজন বিশেষজ্ঞ যমজদের ট্রান্সফিউজন সিনড্রোম নামের এই রোগে সাহায্য করতে পারেন, হেশার তাদের মধ্যে একজন৷ জরায়ুতে একটি জটিল লেজার অপারেশন ছাড়া এই যমজদের বাঁচানোর কোনো উপায় নেই৷

প্রাক-জন্ম শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কুর্ট হেশার জানালেন, ‘‘যে শিশুটি পর্যাপ্ত পরিমাণ পুষ্টি ও শক্তি পাচ্ছে না, তার জরায়ুতেই মৃত্যু হতে পারে৷ যে শিশুটি অত্যধিক রক্ত পাচ্ছে, সে হার্ট অ্যাটাকে মারা যেতে পারে৷ অপারেশন না করলে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দু'টি শিশুই মারা যায়৷''

অপারেশন

যে সব শিরা ও ধমনিগুলি পরস্পরের সঙ্গে মিশে গেছে, লেজার দিয়ে সেগুলিকে আলাদা করা হয়৷ অপারেশনের সময় মায়ের পুরো জ্ঞান থাকে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

অ্যাবডোমিনাল ওয়াল দিয়ে হাইপোডার্মিক সুই ঢোকানো হলো যা-তে লেজার ও এন্ডোস্কোপিক ক্যামেরা লাগানো আছে৷ অজাত শিশুদের জীবন্ত ছবি!

যমজ সন্তানের জননী লরা বাউয়ার বললেন, ‘‘আমি ওদের হাতগুলো দেখেছি, কি পাতলা চামড়া! ছোট ছোট লোম....আমার বাচ্চাদের এভাবে দেখাটা অকল্পনীয়৷''

ক্যামেরার ছবি থেকে অপারেটর জোড়া লাগা শিরা ও ধমনিগুলোর হদিশ পাচ্ছেন ও লেজার রশ্মি দিয়ে সেগুলোকে ছিন্ন করে রক্তপ্রবাহ বন্ধ করছেন৷

ড. কুর্ট হেশার বললেন, ‘‘সুচ দিয়ে জরায়ুর মধ্যে ঢোকানোর ফলে গর্ভপাত হবার আশঙ্কা থাকে৷ আবার অপারেশনের পরেও শিশুরা মারা যেতে পারে, কেননা তারা এই নতুন পরিস্থিতির সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে পারে না৷''

তবে শিশুদের গায়ে লেজার ব্লাস্ট লাগলে চলবে না৷ কয়েক মিনিটের মধ্যেই জোড়া লাগা শিরা ও ধমনিগুলি বিচ্ছিন্ন করা সম্ভব হয়েছে৷

ফাবিও ও ইলারিও অপারেশন থেকে সুস্থভাবেই বেরিয়ে আসতে পেরেছে, তারা জন্ম নিয়েছে৷ তাদের জন্মের আগের নাটকীয় মুহূর্তগুলি এখন শুধু স্মৃতির কোঠায়৷

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়