1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

লেখক কোচ থেকে এখন তিনি শুধুই ছাত্র

বড় সাধ করে তিনি স্পেন থেকে এসেছেন ইংল্যান্ডে৷ সাধ ছিল, কোচ হিসেবে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে মনে রাখার মতো কিছু করবেন, পাশাপাশি লেখক হিসেবেও হবেন স্মরণীয়৷ কিন্তু ইংরেজি শিখতে গিয়ে ভীষণ বিপদে পড়েছেন পেপে মেল৷

default

পেপে মেল মূলত ফুটবল কোচ, তবে তাঁর একটি উপন্যাসও বের হয়েছে

পেপে মেল মূলত ফুটবল কোচ৷ এ মুহূর্তে তাঁর ঠিকানা ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব ওয়েস্ট ব্রমউইচ অ্যালবিয়ন৷ স্পেনের রেয়াল বেটিস ক্লাব ছেড়ে এ মৌসুমেই যোগ দিয়েছেন ওয়েস্ট ব্রমে৷ ৪৯ বছর বয়সি এই ফুটবল কোচের সবচেয়ে প্রিয় শখ লেখালেখি করা৷ তাঁর লেখা একটি উপন্যাস প্রকাশিত হয় ২০১১ সালে৷ উপন্যাসটির নাম ছিল, ‘মিথ্যাবাদী' (দ্য লায়ার)৷ ইংল্যান্ডে আসার কয়েক মাসের মধ্যে নিজেকে নিয়ে একটা কঠিন সত্যি কথা বলতে বাধ্য হয়েছেন পেপে মেলে, ‘মিথ্যাবাদী'-র লেখক জানিয়েছেন নতুন ক্লাবে যোগ দেয়ায় তাঁর লেখালেখির অভ্যেস পুরোপুরি শিকেয় উঠেছে৷

ব্যস্ততার কারণেই যে এমন হয়েছে তা তো অনুমান করাই যায়৷ তা ব্যস্ততার কারণ কি শুধু ফুটবল? পেপে মেল জানিয়েছেন, ইংল্যান্ডে এসে তাঁকে ইংরেজি শেখায় মন দিতে হয়েছে৷ না দিয়ে উপায়ও নেই, কেননা, দলের প্রায় সব খেলোয়াড় ইংরেজিতে কথা বলে, বাইরে গেলেও ইংরেজি ছাড়া এক কদম চলা যায়না৷ তাই কোচের দায়িত্ব পালন এবং জীবনযাপন স্বাভাবিক করতে গিয়ে রীতিমতো শিক্ষক রেখে সুবোধ ছাত্রের মতো ইংরেজি শেখা শুরু করতে হয়েছে তাঁকে৷ এভাবে ইংরেজি শিখতে গিয়েই তাঁর লেখালেখি পুরোপুরি বন্ধ!

শুক্রবার স্পেনের খেলাধুলা বিষয়ক দৈনিক মার্কা-কে দেয়া সাক্ষাৎকারে আক্ষেপ করে ওয়েস্ট ব্রমউইচ কোচ বলেন, ‘‘এখন লেখালেখি করা অসম্ভব৷ লেখালেখির কোনো সময়ইতো পাইনা৷ যেটুকুই অবসর সময় থাকে, তার পুরোটাই দিতে হয় ইংরেজি শেখার কাজে৷ এখন আমি শারীরিকভাবে যতটা ক্লান্ত তার চেয়ে অনেক বেশি ক্লান্ত মানসিকভাবে৷ মুশকিল হলো, বাজারে কিছু কিনতে গিয়ে যেভাবে কথা বলা যায়, ফুটবলের ইংরেজিটা কিন্তু অনেক অন্যরকম৷'' পার্থক্য বোঝাতে গিয়ে পেপে মেল বলেন, ‘‘ফুটবলে ‘ডেড বল', ‘ক্লোজ ডাউন স্পেস', ‘ডিফেন্ড অ্যাজ আ ইউনিট' – এ সব খুবই কঠিন ব্যাপার৷ তাছাড়া আমাকে সবসময় যে যা বলে তা আগে বুঝতে হচ্ছে, বুঝে প্রথম স্প্যানিশ ভাষায় ভাবতে হচ্ছে, তারপর মনে মনে ইংরেজিতে অনুবাদ করার পর উগরে দিতে হচ্ছে৷''

এত কষ্ট যদি ইংরেজি শেখার জন্যই করতে হয় তাহলে কি আর উপন্যাস লেখার সময় বের করা যায়? পেপে মেলে লেখালেখির চিন্তাই আপাতত বাদ দিয়েছেন৷

এসিবি/এসবি (রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন