1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

লিবিয়ায় সংকট সমাধানে কূটনৈতিক তৎপরতা অব্যাহত

ন্যাটোর অভিযানে নিহত ১১ ইমামকে শনিবার ত্রিপোলিতে দাফন করা হয়েছে৷ এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের পর ফ্রান্সে কূটনৈতিক তৎপরতা চালিয়েছে বিদ্রোহীদের অন্যতম নেতা মাহমুদ জিবরিল৷

French President Nicolas Sarkozy, left, shakes hands with Mahmoud Jibril, right, and Ali Al-Esawi, representatives of the newly formed council based in the eastern Libyan city of Benghazi, after a meeting at the Elysee Palace, in Paris, Thursday, March 10, 2011. France has formally recognized the Libyan opposition's Interim Governing Council and plans to exchange ambassadors with the newly formed body, the president's office said Thursday. (AP Photo/Christophe Ena)

ফরাসি প্রেসিডেন্ট সার্কোজির সঙ্গে বিদ্রোহী নেতা জিবরিল

১১ ইমামের মৃত্যু

এ বিষয়ে সরকার ও ন্যাটোর দুধরনের বক্তব্য পাওয়া গেছে৷ সরকার বলছে ন্যাটোর অভিযানেই তাঁরা মারা গেছেন৷ আর ন্যাটো বলছে তারা একটি সামরিক স্থাপনায় হামলা করেছিল৷ তাতে বেসামরিক হতাহতের ঘটনা ঘটেছে কি না, সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত নয়৷ তবে এধরণের ঘটনার কারণে ন্যাটোর অভিযানের প্রতি সাধারণ মানুষের আগে যে একটা সমর্থন ছিল সেটা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে৷

বিদ্রোহী নেতার ফ্রান্স সফর

সফরে বিদ্রোহী নেতা জিবরিল দেখা করেছেন প্রেসিডেন্ট নিকোলা সার্কোজির সঙ্গে৷ তবে তাদের মধ্যে কী কথা হয়েছে সেটা জানা যায়নি৷ কারণ কোনো পক্ষ থেকেই কোনো বিবৃতি দেয়া হয়নি৷ তবে ধারণা করা হচ্ছে বিদ্রোহীদের জন্য আরও বেশি করে আন্তর্জাতিক সমর্থন কীভাবে পাওয়া যায় সেটা নিয়ে আলোচনা হয়ে থাকতে পারে৷ কারণ ফ্রান্স রাশিয়াসহ আরও কয়েকটি দেশের সমর্থন আশা করছে৷ উল্লেখ্য এখন পর্যন্ত মাত্র চারটি দেশ লিবিয়ার বিদ্রোহীদের গঠিত ‘ন্যাশনাল ট্রানজিশনাল কাউন্সিল'কে স্বীকৃতি দিয়েছে৷ বিদ্রোহী নেতা জিবরিল মার্কিন স্বীকৃতির জন্য হোয়াইট হাউসে গেলেও সেটা মেলেনি৷ তবে মার্কিন সরকার বলছে, তারা যুক্তরাষ্ট্রে জব্দ করা গাদ্দাফির অর্থের একটা অংশ বিদ্রোহীদের দেয়ার জন্য আইনে পরিবর্তন আনার কাজ করছে৷

লিবিয়া সংক্রান্ত জাতিসংঘের বিশেষ দূত আব্দুল আল-খতিবের আজ লিবিয়া সফরের কথা রয়েছে৷ তিনি লিবিয়ার প্রধানমন্ত্রী বাগদাদি মাহমুদি'র সঙ্গে বৈঠক করবেন৷ সে সময় সাধারণ মানুষের উপর হামলা বন্ধ করতে লিবীয় সরকারের প্রতি তিনি আহ্বান জানাবেন৷

ন্যাটো অভিযানের বর্তমান অবস্থা

সন্তোষজনক নয় বলা যায়৷ তাই ব্রিটেনের শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তা অভিযানের আওতা আরও বাড়াতে ন্যাটোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন৷ অভিযানে যদি গাদ্দাফি মারা যান তাহলে সেটা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বেঁধে দেয়া আইনের মধ্যেই থাকবে বলেও মন্তব্য করেছেন জেনারেল ডেভিড রিচার্ডস৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়