1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

লিবিয়ার উপর এবার চাপ দিচ্ছে রাশিয়াও

বেসামরিক জনগণের বিরুদ্ধে সেনাবাহিনীকে ব্যবহার বন্ধ করার জন্যে রাশিয়া লিবিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে মঙ্গলবার৷ লিবিয় নেতা গাদ্দাফির সমর্থক এবং বিদ্রোহীদের মধ্যে একটি চুক্তি নিশ্চিত করার লক্ষ্যেই এই আহ্বান জানানো হয়৷

default

রাশিয়ার প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য দ্রুত লিবিয়ায় রক্তপাত বন্ধ করতে কাজ করা

রাশিয়ার পরাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ মস্কোতে লিবিয় নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির দূতের সঙ্গে আলোচনা করেছেন৷ আর তারপরেই রাশিয়া বলেছে যে, ত্রিপোলি লিবিয়ার ব্যাপারে জাতিসংঘের প্রস্তাবের শর্ত মেনে চলবে৷ গাদ্দাফির দূত আহমেদ আল-শরিফকে লাভরভ বলেছেন যে, রাশিয়ার প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য দ্রুত লিবিয়ায় রক্তপাত বন্ধ করতে কাজ করা৷ টেলিভিশনে প্রচারিত এক বক্তব্যে লাভরভ বলেন, ‘‘লিবিয়ার নেতৃত্ব এবং জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের প্রস্তাব সম্পর্কিত বিষয়ে কথা বলেছি আমরা৷''

Sergei Lawrow in Serbien

রাশিয়ার পরাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ মস্কোতে লিবিয় নেতা মোয়াম্মার গাদ্দাফির দূতের সঙ্গে আলোচনা করেছেন

গাদ্দাফি প্রতিষ্ঠিত লিবিয়া ভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ওয়ার্ল্ড ইসলামিক কল সোসাইটির মহাসচিব আল-শরিফ৷ লিবিয়ায় গাদ্দাফির শাসনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রচারের বিরোধী রাশিয়া৷ আর তাই তারা গাদ্দাফির দূত এবং বিদ্রোহী দু'পক্ষের সঙ্গেই আলোচনা চালাতে রাজি হয়েছে৷ বিদ্রোহীদের পক্ষ থেকে মস্কো সফরের পরিকল্পনা করা হয়েছিল তবে তা কিছু সময়ের জন্যে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে৷

Libyen Gaddafi Archiv 2009

লিবিয়ায় গাদ্দাফির শাসনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রচারের বিরোধী রাশিয়া

লাভরভ বলেন, গাদ্দাফির দূত তাঁকে বলেছেন, বিদ্রোহী এবং ন্যাটোর তরফ থেকে যদি বৈরী আচরণ বন্ধ করা হয়, তাহলে ত্রিপোলি সহযোগিতা করতে প্রস্তুত৷ লাভরভ আরো বলেন, ‘‘আমরা যে উত্তর শুনেছি, তাকে নেতিবাচক বলা যাবে না৷'' রক্তপাত এড়ানোর জন্যে দ্রুত আলোচনা শুরুর প্রয়োজনীয়তার কথা আবারও জানিয়েছেন রাশিয়ার শীর্ষ দূত৷ লাভরভ বলেন, ‘‘ঠিক এই মুহূর্তে যুদ্ধ বিরতির শর্তের ব্যপারে একমত হতে হবে৷ এই বিষয়টিই পরবর্তী জাতীয় পর্যায়ের আলোচনা শুরু করার একটি মজবুত ভিত্তি হবে৷ যার মধ্যে থাকবে দেশের ভবিষ্যৎ, একটি নতুন লিবিয়ার ভবিষ্যৎ৷''

এদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলিতে মঙ্গলবার ন্যাটোর কয়েকটি জঙ্গি বিমান হামলা চালিয়েছে৷ আল জাজিরা টেলিভিশন একজন মুখপাত্রের বরাত দিয়ে জানিয়েছে, একটি পুলিশ স্টেশন এবং একজন দুর্নীতি দমন কর্মকর্তার বাড়ি লক্ষ্য করে ঐ হামলা চালানো হয় বলে প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে৷ জঙ্গি বিমানের হামলায় ত্রিপোলির আবাসিক এলাকার বাড়িঘর থেকে ধোঁয়া উঠার ছবি লিবিয়ার টেলিভিশনে দেখানো হয়েছে৷

প্রতিবেদন:ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন