1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

লিওনেল মেসি: আণবিক মৌমাছি

‘অ্যাটোমিক ফ্লি’ অর্থাৎ আণবিক মৌমাছি৷ এই নামেই ডাকা হয় মেসিকে৷ কারণ দেখতে ছোটখাটো, কিন্তু গতি অসাধারণ৷ যখন ছোটেন, সাধ্য কার পিছু নেয়ার? সঙ্গে পায়ের কারুকাজ আর মাথায় নিপুণভাবে বল নিয়ন্ত্রণ৷

default

আর কি চাই? তাইতো ফিফার গত বছরের সেরা খেলোয়াড় বার্সেলোনার লিওনেল মেসি৷ দুঃখিত, আর্জেন্টিনার মেসি৷ যদিও এখন পর্যন্ত বার্সেলোনার হয়ে মেসি যতটা সফল, ততটা নন আর্জেন্টিনার হয়ে৷ তবে দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে এ বদনাম ঘুচবে বলে আশা করছেন আর্জেন্টিনার সমর্থকরা৷

কেন মেসি সেরা খেলোয়াড়? এ সম্পর্কে বার্সেলোনার প্রাক্তন কোচ ও একসময়ের দুনিয়াখ্যাত খেলোয়াড় ইয়োহান ক্রয়েফ বলেছেন, সকলের কাছে যে কাজটি খুব কঠিন, মেসি সেটি করেন খুব সহজে৷ আর তাইতো মেসির সতীর্থ থিয়েরি অঁরি কিছুদিন আগে মেসিকে বললেন অতিমানব৷ তিনি বলছেন, ‘‘আমি বড় মাপের অনেক খেলোয়াড়ের সঙ্গেই খেলেছি, কিন্তু মেসি বিশেষ কিছু৷ লিও অনায়াসেই যেটা করে, অন্যদের কাছে সেটি কষ্টসাধ্য ব্যাপার৷ মাঝেমধ্যে তো আমার মাথা ঘুরে যায় এই ভেবে, ও এভাবে খেলে কি করে?'' উল্লেখ্য, এমন মন্তব্য যিনি করেছেন সেই অঁরি নিজেই কিন্তু ২০০৩ ও ২০০৪ সালে ফিফার বিবেচনায় দ্বিতীয় বর্ষসেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন৷

কিন্তু মাত্র ২২ বছরের এই তরুণ আজ এই পর্যায়ে পৌঁছবেন, কে ভেবেছিল? বরং মেসি এমন এক রোগে আক্রান্ত ছিলেন যে কারণে তাঁর উচ্চতা বাড়ছিল না৷

Flash-Galerie WM-Stars Lionel Messi

মাত্র ২২ বছরের এই তরুণ আজ এই পর্যায়ে পৌঁছবেন, কে ভেবেছিল?

কিন্তু সেসময় আর্জেন্টিনার স্থানীয় এক যুব ক্লাবে মেসির খেলা দেখে বার্সেলোনা তাঁকে পরিবারসহ স্পেনে নিয়ে যায়৷ তখন মেসির বয়স মাত্র ১৩৷ ক্লাবের খরচে চিকিৎসা চলে তাঁর৷ মেসির পেছনে অনেক অর্থ খরচ করে বার্সেলোনা৷ তবে এখন বোঝা যাচ্ছে ভবিষ্যৎ তারকা চিনতে ভুল করেনি বিশ্বখ্যাত এই ক্লাবটি৷ ২০০৪-০৫ সেশনে মাত্র ১৭ বছর বয়সে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে স্প্যানিশ লিগে খেলা শুরু করেন মেসি এবং সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে প্রথম গোল করেন৷

সেই থেকে শুরু৷ এরপর ধীরে ধীরে এগিয়ে যান মেসি৷ গতবছর ফিফার বর্ষসেরা খেলোয়াড় হওয়ার আগে ২০০৭ ও ২০০৮ সালে তিনি দ্বিতীয় সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন৷ অনেকে মেসিকে ম্যারাডোনার সমতুল্য খেলোয়াড় বলে মনে করেন৷ কেউ কেউ তাঁকে ম্যারাডোনার চেয়েও ভাল মনে করেন৷ এবারের বিশ্বকাপে এই দুজনই আছেন৷ একজন কোচ, আর একজন খেলোয়াড় হিসেবে৷ তাইতো আর্জেন্টিনার সমর্থকরা এবার আশায় বুক বেঁধেছেন বিশ্বকাপ চ্যাম্পিয়ন হবার৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়