লায়লা বানুকে স্মরণ রাখবো | পাঠক ভাবনা | DW | 24.01.2011
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

লায়লা বানুকে স্মরণ রাখবো

মহিলা বিষয়ক অনুষ্ঠান মোনালিসাতে কুষ্টিয়ার ধর্মদহের মেয়ে ড. লাইলা পারভীন বানুর যুদ্ধে যাওয়ার কাহিনী শুনে খুব খারাপ লাগলো৷

default

চোখের সামনে গোয়েন্দা কর্মকর্তা বাবার হত্যাকাণ্ড আর দাদাকে হত্যা করে গাছের সাথে ঝুলিয়ে রাখার মতো ঘটনা যুদ্ধে নিয়ে যায় ডা. লায়লা পারভীন বানুকে৷ দেশ স্বাধীন না হওয়া পর্যন্ত মুক্তিযোদ্ধাদের সেবা করেন তিনি, দেন প্রশিক্ষণ৷ তার যুদ্ধে যাবার কাহিনী আমাদের খুব ভাল লেগেছে৷ তাঁর সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে অনেক তথ্য জানতে পারলাম এবং তাঁর এ আত্মত্যাগের কথা আমরা স্মরণ রাখবো৷ খেলার খবর, সবুজ পৃথিবীতে পাম তেলের জনপ্রিয়তা ও ব্যবহার নিয়ে জাহিদুল হকের প্রতিবেদনে নানা তথ্য জানতে পারলাম৷ তারকা সংবাদে হলিউডের হার্টথ্রব জর্জ ক্লুনির ম্যালেরিয়া থেকে সম্পূর্ণ মুক্তি পাওয়ার সংবাদ শুনলাম৷ মোঃ ওবায়দুল্লাহ পিন্টু রেইনবো শ্রোতা সংঘ আমলা, মিরপুর, কুষ্টিয়া৷ rlcamla@yahoo.com

মহান পুরুষ নেতাজীর জন্মদিন মহা সমারোহে ২৩ জানুয়ারি পালিত হলো৷ সেই উপলক্ষে নতুন রেডিও লিসনার্স ক্লাবের সকল সদস্য মিলিত হয়েছিলাম প্রভাত ফেরী অনুষ্ঠানে৷ ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা পথ পরিক্রমা করেছে৷ বেশ আনন্দের সাথে দিনটি পালিত হয়েছে৷ এ দিনের ক্লাব কর্মকান্ডে অনেক মানুষ খুশি হয়েছে৷ কাঞ্চন কুমার চ্যাটার্জী, নতুন রেডিও লিসনার্স ক্লাব, শাহানগর, মুর্শিদাবাদ৷

আপনাদের পাঠানো উপহারসামগ্রী পেয়েছি৷ অনুষ্ঠানসূচি, তথ্য পুস্তিকা এবং ক্যাপ আমার জন্য অনেক আনন্দ বয়ে এনেছে, ধন্যবাদ৷ মোঃ মফিদুল ইসলাম, সিজিএসসি, পীরমহল্লা, সিলেট৷

আপনাদের বাংলা অনুষ্ঠানের আমি একজন নতুন শ্রোতা৷ অনুষ্ঠান এত ভালো লাগছে যে প্রতিদিন নিয়মিত শুনতে বাধ্য হচ্ছি৷ আমি সাধারণত রাতের অনুষ্ঠান মিডিয়াম ওয়েভে শুনে থাকি৷ মাঝে মাঝে সাইবার ক্যাফেতে যেয়ে সকালের অনুষ্ঠানও শুনি৷ আপনাদের ওয়েব সাইট খুবই সাজানো গোছানো এবং সাথের ছবিগুলোও খুবই বাস্তব৷ সবকিছু আমাকে মোহিত করে৷ মহঃ টোটন মোল্লা, চুপী, পূর্বস্থলী, বর্ধমান৷

আমি ডয়চে ভেলের একজন নতুন শ্রোতা৷ দীর্ঘ একমাস যাবৎ বাংলা অনুঠান শুনছি এবং ওয়েবসাইট দেখছি যা আমার খুব ভাল লাগছে৷ কি নেই এতে, যা চাই তাই পাই৷ আমার পক্ষ থেকে ডয়চে ভেলে পরিবাকে জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন৷ মোঃআলমগীর হোসাইন ইমদা, জেলা মিঠাপুকুর, রংপুর৷

আপনারা হয়তো জেনে থাকবেন যে, আমাদের ক্লাবের সদস্যদের ইন্টারনেট উপযোগী মোবাইল সেট নেই৷ কষ্ট করে অন্যদের মোবাইল সেটে আপনাদের ওয়েবসাইট দেখি৷ ‘ছবি খুঁজুন, পুরস্কার জিতুন’ প্রতিযোগিতার প্রশ্ন আগে মোবাইলে দেখা গেলেও এখন আর দেখতে পাচ্ছি না৷ এতে খুব হতাশা বোধ করছি কিন্তু কারণটা ঠিক বুঝতে পারছি না৷ অমিত বসু, জননী রেডিও লিসনার্স ক্লাব, ঘোষনগর, তালা, খুলনা৷

বাংলা আমাদের মায়ের ভাষা , আমাদের প্রিয় মাতৃভাষায় সুদূর  জার্মানি থেকে  ইথারের  মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে  ডয়চেভেলের সকাল ও সন্ধ্যার  বাংলা অনুষ্ঠানমালা৷ সকালে বাংলাদেশের ৬টি শহরে এফএম -এ  আর রাতে এফএমসহ মিডিয়াম  প্রচার তরঙ্গে৷ ইন্টারনেট থাকলে তো সারাক্ষণের সাথী ৷ বর্তমান যুগে  নানা গণমাধ্যম থাকলেও আমার মতই অগণিত বাঙালির প্রিয় বেতার হিসাবে সবার মনে স্থান করে নিয়েছে ডয়চেভেলে  বাংলা বিভাগ৷ আধুনিক প্রযুক্তি বিদ্যার উত্কর্ষে অন্য গণমাধ্যমগুলোর যথেষ্ট প্রসার ঘটলেও শক্তিশালী গণমাধ্যম হিসাবে আমাদের মত প্রত্যন্ত জনপদে রেডিও'র  কোনো বিকল্প নেই৷ আমদের প্রাত্যহিক জীবনে তথ্য ও বিনোদনের অপরিহার্য মাধ্যম হল রেডিও৷ আর ডয়চেভেলে  বাংলা বিভাগ সেই কাজটি অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে করে যাচ্ছে৷ ডয়চেভেলে  বাংলা বিভাগ গ্রাম বাংলার  মানুষদের চাওয়া-পাওয়াকে  মর্যাদা দিচ্ছে , আমাদের জ্ঞানভান্ডার কে পরিপূর্ণ করে চলেছে একজন সৎ ও নিষ্ঠাবান অভিভাবক হিসাবে৷

ডয়চেভেলে বাংলা অনুষ্ঠান কেন ভালো লাগে সেটা বলা খুবই কঠিন, অনেক কারণ আছে৷ ডয়চেভেলে  বাংলা অনুষ্ঠানমালার স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য , শ্রোতাদের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়া,  সময়োপযোগী ও বস্তুনিষ্ঠ অনুষ্ঠান , তরতাজা ও সত্যনিষ্ঠ সংবাদ,  মানবিক বাস্তবতার আহ্বান,  নিজেকে প্রকৃত মানুষ হিসাবে গড়ে তোলার মন্ত্র , বিছিন্ন ও বিভক্ত মানুষের মনে ক্ষমা ও পুনর্মিলনের পথ রচনা করা৷  তাই আমার প্রিয় বেতার ডয়চেভেলের  বাংলা অনুষ্ঠান৷ ভালো থাকবেন৷ শুভেচ্ছা সহ  মহ: হাফিজুর রহমান, ইন্টারন্যাশনাল মিতালি লিসনার্স ক্লাব, চুপী , বর্ধমান৷

ওয়েবসাইটে চলতি ঘটনার পাতায় বাংলাদেশসহ ভুটানে প্রথম পৌরনির্বাচন, ওয়াশিংটনে হু-ওবামার বৈঠক, বিজ্ঞান প্রযুক্তির পাতায় সারাবিশ্বে পামতেলের চাহিদা বৃদ্ধির ফলে বন উজাড়ের আশংকা, সমাজ জীবনে জার্মানির প্রবৃদ্ধি জনগণের কতটা কাছে পৌঁছেছে ও সংস্কৃতি বিনোদনের পাতায় বলিউড তারকা ঋত্বিক রোশনের মোমের মূর্তি লন্ঠনের বিশ্বখ্যাত মাদাম টুসো জাদুঘরে স্থান পেয়েছে - এ সম্পর্কে প্রতিবেদনগুলো পড়ে আমরা ক্লাবের সবাই ভীষণ মুগ্ধ হয়েছি৷ তরতাজা রিপোর্ট ও তথ্যসমৃদ্ধ প্রতিবেদনগুলো ওয়েবসাইটে সন্নিবেশিত করার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ - মোখলেসুর রহমান,কুষ্টিয়া৷