1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

লাভ প্যারেডে নিহতদের স্মরণে দেশজুড়ে শোক জার্মানিতে

শোক আর শ্রদ্ধাজ্ঞাপনের মধ্যে দিয়ে শনিবার দিনটি লাভ প্যারেডে নিহতদের স্মরণে পালন করছে জার্মানি৷ জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত৷ চ্যান্সেলর স্বয়ং উপস্থিত শোকপালনে৷ ডুইসবুর্গের মেয়র কিন্তু ঘরবন্দি৷

default

ফুল আর মোমবাতি দিয়ে নিহতদের স্মরণ

গত শনিবার জার্মানির ডুইসবুর্গ শহরে ‘লাভ প্যারেড' উত্সব শেষ হয়েছে মস্ত দুর্ঘটনা দিয়ে৷ আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পালিয়ে যেতে গিয়ে ছোট্ট টানেলে পদপিষ্ট হয়ে মারা গেছেন একুশজন গত শনিবার৷ আহত হয়েছেন পাঁচশোরও বেশি মানুষ৷ এই দুর্ঘটনার ঠিক এক সপ্তাহ পরে দেশজুড়ে নিহতদের স্মরণ করা হচ্ছে আজ, শনিবার৷ চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল থেকে শুরু করে অনেক গণ্যমান্য ব্যক্তিত্ব হাজির ডুইসবুর্গ শহরের ছোট্ট গির্জা সালভাটোর-এ৷ রয়েছেন, নিহতদের পরিবারবর্গও৷ প্রার্থনার মাধ্যমে চ্যান্সেলরের উপস্থিতিতে আয়োজিত এই শোক অনুষ্ঠান দেখেছেন গোটা দেশের মানুষ৷ দেশের বিভিন্ন প্রান্তের গির্জায় বড় পর্দায় দেখানো হয়েছে এই শোকপালন অনুষ্ঠান৷ কয়েক জায়গাতে বড়পর্দাতে খোলা জায়গাতেও আয়োজন করা হয় এই অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য৷

Flash-Galerie Loveparade Duisburg 2010 Massenpanik

আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পালিয়ে যেতে গিয়ে মারা গেছেন একুশজন গত শনিবার

চ্যান্সেলর ম্যার্কেল জাতির এই দুঃখের সময়ে তাঁর গ্রীষ্মের ছুটি সংক্ষিপ্ত করে ফিরে এসেছেন মাঝপথে৷ লাভ প্যারেডের এই দুর্ঘটনা অকস্মাৎ বেশ ভালোই ধাক্বা দিয়েছে জার্মানিকে৷ পুলিশ আগে থেকেই সতর্ক করে বলেছিল, ডুইসবুর্গের মত ছোট্ট শহরে লাভ প্যারেডের মত এত বড় মাপের অনুষ্ঠান করাটা ঠিক হবে না৷ দেখা গেছে পুলিশের আশঙ্কাই সঠিক ছিল৷ নিরাপত্তার গাফিলতিতেই এই দুর্ঘটনা নাকি অন্য কোন কারণ রয়েছে এর নেপথ্যে, তা জানতে ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত হচ্ছে বলে জানিয়েছে প্রশাসন৷ কিন্তু হাজার তদন্ত করেও নিহতদের ফিরে পাওয়া যাবে না কোনদিনই, আক্ষেপ স্বজনহারা অনেকেরই৷

স্বজনহারাদের রোষেই ওদিকে পুলিশ প্রহরায় কার্যত গৃহবন্দি হয়ে রয়েছেন ডুইসবুর্গ শহরের মেয়র আডল্ফ জাওয়ারল্যান্ড৷ লাভ প্যারেডের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় গাফিলতির জন্য মেয়রকে দায়ী করে শহরের বাসিন্দারা তাঁর পদত্যাগ চেয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে৷ বেশ কয়েকটি হুমকি টেলিফোন আর ইমেলও পেয়েছেন মেয়র ইতিমধ্যে৷ যার প্রত্যেকটারই বক্তব্য, খুন করা হবে মেয়রকে৷ এই অবস্থায় আজকের শোক অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার সাহস পান নি মেয়র জাওয়ারল্যান্ড৷ খুনের হুমকি পাওয়ার পর থেকেই তাঁকে ঘিরে পুলিশ প্রহরা বসানো হয়েছে৷ সেই অবস্থাতেই তিনি এখন কার্যত গৃহবন্দী৷

প্রতিবেদন: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়