1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

লা’কুইলার ভূমিকম্পের বর্ষপূর্তি আজ, ক্ষুব্ধ বাসিন্দারা

বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী ইউরোপের সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগটিকে স্মরণ করা হচ্ছে যে সব কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে, তার মধ্যে রয়েছে, নিহতদের আত্মার শান্তির জন্যে রাতে প্রার্থনা এবং প্রার্থনা সঙ্গীত৷

default

২০০৯-এর ৬ এপ্রিল ভূমিকম্পে বিধ্বস্ত ইটালির লা'কুইলা শহর

ইটালির লা'কুইলা শহরে ভয়াবহ ভূমিকম্পের আজ প্রথম বার্ষিকী৷ দিনটি স্মরণে বিভিন্ন কর্মসূচি নেয়া হয়েছে৷ মঙ্গলবার সকাল থেকেই লা'কুইলাতে সমবেত হতে থাকেন সাহায্য কর্মী, প্রতিরক্ষা দপ্তরের সদস্য এবং নিহতদের আত্মীয় পরিজন৷

গত বছরের ৬ এপ্রিলের ভয়াবহ ভূমিকম্পে প্রাণ হারান ৩০৮ জন৷ গৃহহীন হয়েছেন অন্তত ৬০ হাজার মানুষ৷ ভূমিকম্পে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ১ লক্ষ ২০ হাজার মানুষ৷ ৫২ হাজারেরও বেশি মানুষ এখনও নিজেদের বাড়িতে ফিরে যেতে পারেননি, তাঁরা অপেক্ষা করছেন নতুন আবাসনের৷ ক্ষতিগ্রস্তদের অনেকেই রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের নিন্দা করে বলেছেন, একবছর পেরিয়ে যাচ্ছে কিন্তু এখনও তাঁরা পুনর্গঠনের কাজ শুরুর জন্যে অপেক্ষা করছেন৷

বিশ্বযুদ্ধ পরবর্তী ইউরোপের সবচেয়ে বড় প্রাকৃতিক দুর্যোগটিকে স্মরণ করা হচ্ছে যে সব কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে, তার মধ্যে রয়েছে, নিহতদের আত্মার শান্তির জন্যে রাতে প্রার্থনা এবং প্রার্থনা সঙ্গীত৷ স্থানীয় সময় ঠিক রাত ০৩.৩২ ঘন্টায় (গ্রিনিচ মান সময় ০১.৩২ ঘন্টা ) ভূমিকম্প আঘাত হেনেছিল৷ রাতে ঠিক এই সময়টিতে পালন করা হয় নীরবতা৷

Italien Aquila Trauerfeier

ফুলে ঢাকা নিহতদের সারিবদ্ধ কফিন

লা'কুইলা শহরের কেন্দ্র এবং আশপাশের গ্রামগুলোতে আঘাত হানা ঐ ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল রিখটার স্কেলে ৬.৩৷ ভূমিকম্পে গৃহহীন লোকজন এখনও অস্থায়ী সরকারি বাসস্থানে বসবাস করছেন৷ এখনও ফিরে যেতে পারেননি নিজেদের ঘরবাড়িতে৷ তবে ভূমিকম্পের পর লা'কুইলার কেন্দ্রস্থলের ভবনগুলো আর নিরাপদ নয়৷ শহরটি থেকে ভূমিকম্পের ধ্বংসাবশেষ সম্পূর্ণভাবে এখনও সরিয়ে নেওয়া সম্ভব হয়নি৷ লাকুই'লা থেকে ভূমিকম্পের ধ্বংসস্তুপ সরিয়ে সেখানে আবার স্বাভাবিক জীবনযাত্রা ফিরিয়ে আনার জন্যে শহরবাসীরা দাবি জানিয়ে আসছেন৷ এই দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়েছেন হাজার হাজার মানুষ৷

লা'কুইলা শহরের মেয়র মাসিমো সিয়ালেন্টে সেখানকার অধিবাসীদের কঠোর সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন৷ কর্তৃপক্ষ বলছে, লা'কুইলাতে স্বাভাবিক জীবন যাত্রা ফিরিয়ে আনতে ১০ বছরেরও বেশি সময় লেগে যেতে পারে৷

প্রতিবেদক : ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা : দেবারতি গুহ

সংশ্লিষ্ট বিষয়