1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

লর্ডসে জয় পাকিস্তানের, মাঠের বাইরে নতুন বিতর্ক

পাকিস্তান আর ইংল্যান্ডের ক্রিকেটারদের মধ্যে একদিকে লড়াই চলছে মাঠে৷ অন্যদিকে, বাকযুদ্ধে নেমেছে দুই পক্ষের ক্রিকেট বোর্ড৷ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি ইজাজ বাটের ম্যাচ পাতানোর অভিযোগে চলছে বিতর্ক৷

Pakistan, Cricket, Board, Chairman, Ijaz, Butt, London, England, লর্ডস, পাকিস্তান,

পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি ইজাজ বাট (ফাইল ছবি)

দুই দলের কর্মকর্তাদের মধ্যে এসব বিতর্ক চললেও ক্রিকেটের বৃহত্তর স্বার্থেই এখনও খেলা চলছে৷ সোমবার লর্ডসে অনুষ্ঠিত হলো পাকিস্তান-ইংল্যান্ড চতুর্থ একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচ৷ এতে ৩৮ রানে জয় পেয়েছে পাকিস্তান৷ সাত উইকেট হারিয়ে তুলেছে ২৬৫ রান৷ সোমবার টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে শহীদ আফ্রিদির দল৷ অপরাজিত আব্দুল রাজ্জাকের ৪৪ রান এগিয়ে নিয়েছে দলকে৷ ২০ বলে একটি ছক্কা এবং আটটি চার মারেন রাজ্জাক৷

এছাড়া অধিনায়ক আফ্রিদি তুলেছেন ২২ বলে ৩৭ রান৷ এদিন সর্বোচ্চ রান করেন ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজ৷ তবে ৬৪ রান করতে তিনি বল খরচ করেন ১০০৷ ফাওয়াদ আলম ২৯ এবং কামরান আকমল করেন ২৮ রান৷ চারটি উইকেট নিয়েছেন গ্রায়েম সোয়ান৷ তিনি দিয়েছেন ৩৭ রান৷ এছাড়া দু'টি উইকেট নিয়েছেন ব্রড ৪৪ রান খরচ করে৷

মাঠের বাইরে নতুন করে বিতর্ক জন্ম দেয় ইজাজ বাটের মন্তব্য৷ ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল এনডিটিভি'কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বাট বলেছিলেন, ওভালে শুক্রবারের একদিনের ম্যাচে ইংল্যান্ডের কিছু খেলোয়াড় বিপুল অঙ্কের অর্থের বিনিময়ে ম্যাচ ছেড়ে থাকতে পারে৷ বিশেষ করে ইংল্যান্ডের কিছু খেলোয়াড়ের ম্যাচ পাতানোর বিষয়টি জুয়াড়িমহলে বেশ আলোচিত হচ্ছে বলে অভিযোগ তোলেন বাট৷ বাটের এমন মন্তব্যের বিরুদ্ধে বেশ ক্ষুব্ধ ইংলিশ পক্ষ৷ এমনকি বাটের বিরুদ্ধে আইনের আশ্রয় নেওয়ারও হুমকি দিয়েছে ইংল্যান্ড এবং ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড৷ এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘‘ইসিবি এবং ইংল্যান্ড দল বাটের মন্তব্যকে অবমাননাকর এবং ভিত্তিহীন বলে মনে করে৷''

অবশ্য বাটের মন্তব্যের বিরুদ্ধে অবস্থান শুধু ইংলিশ পক্ষেরই নয়, ঘরেও শোনা গেছে বাটের মন্তব্যের সমালোচনা৷ পিসিবি'র সাবেক সভাপতি খালিদ মেহমুদ বলেছেন, ‘‘তিনি যা বলেছেন তা হাস্যকর৷ ইংলিশ খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে কোন প্রমাণ কিংবা তথ্য থাকলে সেটা নিয়ে তাঁর আইসিসি কিংবা স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডসের কাছেই যাওয়া উচিত৷ কারণ তারা ইতিমধ্যে আমাদের খেলোয়াড়দের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগের তদন্ত করছে৷''

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন