1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘র‌্যাব যতদিন থাকবে, ততদিন থাকবে আতঙ্ক'

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জে বহুল আলোচিত সাতখুনের ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানিয়ে বলেন, যতদিন র‌্যাব থাকবে ততদিন মানুষের ভয় কাটবে না৷ তাঁর অভিযোগ, নূর হোসেনকে র‌্যাবই দেশের বাইরে পাঠিয়েছে৷

Bangladesch Khaleda Zia vor den Wahlen

বেগম খালেদা জিয়া (ফাইল ফটো)

মঙ্গলবার ১১টার দিকে খালেদা জিয়া গুলশানের বাসা থেকে রওয়ানা হয়ে দুপুরের দিকে নিহত প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর নজরুল ইসলামের বাসায় যান৷ সেখানে তিনি নিহতদের স্বজনদের সমবেদনা জানান৷ এ সময় খালেদা জিয়ার সঙ্গে দলের কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন৷ তাঁদের সহানুভূতি জানানোর পর, খালেদা জিয়া নিহত আইনজীবী অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার সরকারের সিদ্ধিরগঞ্জের জালকুঁড়ির বাসায় যান৷ সমবেদনা জানানোর পর খালেদা জিয়া গুম, খুন এবং অপহরণের জন্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, ‘‘সারা দেশে গুম, খুন ও অপহরণের জন্য দায়ী সরকার৷ এ জন্য সরকারকে পদত্যাগ করা উচিত৷ অবিলম্বে আমি এই সরকারের পদত্যাগ দাবি করছি৷''

নিহতদের পরিবারকে উদ্দেশ্য করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘‘হত্যার নেপথ্যে কারা জড়িত এ বিষয়ে আপনারা সাহসী ভূমিকা রাখছেন৷ এখন আপনাদের হুমকি দেয়া হচ্ছে৷'' এছাড়া এ সব পরিবারের কিছু হলে কাউকে ছাড় দেয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারিও দেন বিএনপি নেত্রী৷

তিনি র‌্যাব ১১-এর কথা উল্লেখ করে বলেন, ‘‘র‌্যাব ১১-র প্রধান নিজেকে খুব ‘পাওয়ারফুল' মনে করেন৷ কারণ তিনি একজন মন্ত্রীর জামাই৷ তাছাড়া তাঁদের সঙ্গে গুম, খুন ও অপহরণে জড়িত অবৈধ প্রধানমন্ত্রীর সম্পর্ক রয়েছে৷ এ জন্য তারা নিজেদেরকে আইনের ঊর্ধে মনে করেন৷ অবিলম্বে এই ঘটনায় যাঁরা জড়িত তাঁদের গ্রেপ্তার ও সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে হবে৷'' তিনি অভিযোগ করেন, ‘‘হত্যাকাণ্ডের মূল আসামি নূর হোসেনকে র‌্যাবই দেশের বাইরে পাঠিয়ে দিয়েছে৷ তারা এখন নিজেদের রক্ষায় ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে৷''

Rapid Action Battalion RAB Spezialeinheit Militär Dhaka Bangladesh

‘ র‌্যাব ১১-র প্রধান নিজেকে খুব ‘পাওয়ারফুল' মনে করেন, কারণ, তিনি একজন মন্ত্রীর জামাই৷’

তিনি বলেন, ‘‘এদের সর্বোচ্চ শাস্তির ব্যবস্থা না হলে প্রতিবাদে নারায়ণগঞ্জসহ সারা দেশের মানুষ রাস্তায় নেমে আসবে৷ আমরাও রাস্তায় নামতে বাধ্য হবো৷''

বিএনপির চেয়ারপার্সন বলেন, ‘‘এই বাহিনী এখন জনগণের বিপক্ষে দাঁড়িয়েছে৷ এদের আর প্রয়োজন নেই৷ র‌্যাব যতদিন থাকবে, ততদিন আতঙ্ক থাকবে৷ শান্তি থাকবে না৷''

খালেদা বলেন, ‘‘আর নয় চোখের পানি, আর নয় গুম, খুন ও অপহরণ৷ এ সব বন্ধ করতে সরকারকে বিদায় নিতে হবে৷ এরা ক্ষমতায় থাকলে গুম, খুন ও অপহরণ বন্ধ হবে না৷ তাই এই সরকার যতক্ষণ ক্ষমতায় থাকবে, ততক্ষণ প্রতিবাদ করতে হবে৷''

নিহত প্যানেল মেয়র নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন সরকারের বাসায় স্বজনদের সঙ্গে সাক্ষাতের পর খালেদা জিয়ার বক্তব্য কয়েকটি টিভি চ্যানেল সরাসরি সম্প্রচার করে৷ এ সময় ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় টেলিভিশন চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর৷

বিএনপি চেয়ারপার্সনের নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানাতে ১৪ই মে নারায়ণগঞ্জ যাওয়ার কর্মসূচি ছিল৷ ঐ দিন নিহতদের পরিবারের সদস্যদের একসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ডেকে পাঠানোয় বিএনপি চেয়ারপার্সনের সফরের তারিখ একদিন এগিয়ে মঙ্গলবারের জন্য নির্ধারণ করা হয়৷

অন্যদিকে খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ঢাকায় বলেন, ‘‘হত্যাকাণ্ডের শিকার পরিবারের সদস্যদেরকে সহানুভূতি জানাতে নয়, বরং দীর্ঘদিন পর নতুন করে সহিংসতা বাড়ানোর লক্ষ্যে নতুন করে উস্কানি দিতেই খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জ গেছেন৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়