1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশিদের বাঁচানোর আর্তি

থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ার কাছে সমুদ্রে ভাসছে হাজারো রোহিঙ্গা ও বাংলাদেশি৷ গত ক’দিন এ খবর গুরুত্ব পাচ্ছে গণমাধ্যমে৷ টুইটারেও তাদের সহায়তায় আর্তি জানিয়েছেন অনেকে৷

সাগরে বিভিন্ন নৌকায় থাকা রোহিঙ্গা এবং বাংলাদেশিদের সবচেয়ে বড় সুখবরটি টুইটারে দিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক৷ রোহিঙ্গাদের সাময়িকভাবে আশ্রয় দেয়ার ঘোষণা দেন তিনি৷ ইন্দোনেশিয়ার পাশাপাশি তাঁর দেশও সাগরে ভেসে থাকা মানুষদের আশ্রয় নিশ্চিত করেন৷ রাজাক একাধিক টুইটে এই বিষয়ে মালয়েশিয়ার সক্রিয় সহায়তা নিশ্চিত করেন৷

মানবাধিকার সংগঠনগুলোর কর্তাব্যক্তিরাও এই বিষয়ে টুইট করেছেন বিভিন্ন ছবি, মন্তব্য৷ বিশেষ করে বিভিন্ন দেশের সরকার যখন সাগরে ভেসে থাকা রোহিঙ্গা, বাংলাদেশিদের আশ্রয় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেছিল, তখন এগিয়ে আসে সাধারণ মানুষ৷ ইন্দোনেশিয়ার জেলেরা অনেককে আশ্রয় দিয়েছেন, তাদের নৌকায় করে নিয়ে গেছেন মূল ভূখন্ডে৷

টুইটারে আলোচনায় মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের বিষয়টিও উঠে এসেছে৷ অভিযোগ রয়েছে, সেদেশের সরকার রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারের নাগরিক হিসেবে মেনে নিতে কিংবা তাদের সাধারণ সুযোগ সুবিধা দিতে রাজি নয়৷ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক কেনেথ রুথ জানিয়েছেন, যখন আন্তর্জাতিক সমাজ সাগরে ভেসে থাকা রোহিঙ্গাদের নিয়ে ব্যস্ত, তখন মিয়ানমার সরকার রোহিঙ্গাদের ভোটের অধিকার কেড়ে নেয়ার দিকে অগ্রসর হচ্ছে৷

উল্লেখ্য, গত এক সপ্তাহে ইংরেজিতে #রোহিঙ্গা হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে টুইট করা হয়েছে এক লাখ চল্লিশ হাজার বারের বেশি৷ এছাড়া #রোহিঙ্গামুসলিমস হ্যাশট্যাগ ব্যবহারকারীর সংখ্যাও অনেক৷

আরাফাতুল ইসলাম

জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়