1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

রেফারির মুখে বাঁশি আর হাতে থাকবে স্প্রে

ফুটবল মাঠে রেফারির কাছে এতদিন বাঁশি আর দু রকমের কার্ড থাকলেই চলতো৷ কিন্তু ব্রাজিল বিশ্বকাপে বিশেষ ধরণের স্প্রে-ও থাকবে তাঁদের কাছে৷ ফ্রি কিকের সময় স্প্রে দিয়েই খেলোয়াড়দের নিয়ন্ত্রণ করবেন রেফারি৷

২০১৪ বিশ্বকাপের প্রতিটি ম্যাচে রেফারির কাছে বাঁশি, লাল আর হলুদ কার্ডের পাশাপাশি এবার এক ধরণের স্প্রে-ও থাকবে৷ স্বয়ং ফিফা সভাপতি সেপ ব্ল্যাটার জানিয়েছেন, ব্রাজিলে বিশ্বকাপের ম্যাচে কোনো দল ফ্রি কিক পেলেই রেফারিকে স্প্রে ব্যবহার করতে হবে৷ ফ্রি কিক নেয়ার সময় প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়দের নির্দিষ্ট দূরত্বে রাখতে রেফারিদের বেশ বেগ পেতে হয়৷ বিপদ এড়াতে সব খেলোয়াড় বলের যতটা সম্ভব কাছে আসার চেষ্টা করতে থাকেন৷ ফলে তাঁদের জায়গা মতো দাঁড় করাতে গিয়ে সময়েরও অপচয় হয়৷ ব্ল্যাটার জানিয়েছেন, ফ্রি কিকের সময়কার এই ঝামেলা এড়াতে এবার বিশ্বকাপে ব্যবহার করা হবে স্প্রে৷

স্প্রে চাপলে সাদা তরল বেরিয়ে আসবে৷ রেফারি সেই তরল ছিটিয়ে খেলোয়াড়রা ঠিক কোথায় দাঁড়িয়ে ‘ফ্রি-কিক ওয়াল' গড়বেন সেই জায়গাটা চিহ্নিত করে দেবেন৷ তারপর বল কোথায় বসিয়ে ফ্রি কিক নিতে হবে সেটাও স্থির করবেন সেই সাদা তরল ছিটিয়ে৷ নির্দিষ্ট জায়গায় বল বসিয়ে স্প্রে থেকে চারপাশে সাদা তরল ছিটিয়ে দেবেন রেফারি৷ বলের চারপাশের এবং ফ্রি কিক ওয়ালের দাগ এক মিনিটের মধ্যেই মিলিয়ে যাবে৷

এমন স্প্রে পরীক্ষামূলকভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে অনেকদিন ধরে৷ এ বছর তুরস্কে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-২০ এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপে সফল প্রয়োগের পর ক্লাব বিশ্বকাপেও তা ব্যবহার করা হচ্ছে৷

শনিবার ক্লাব বিশ্বকাপের ফাইনালে ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নস লিগের সেরা দল বায়ার্ন মিউনিখ খেলবে মরক্কোর রাজা কাসাব্লাঙ্কার বিপক্ষে৷ বায়ার্নের কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা জানান, এই স্প্রে ব্যবহার করায় আগের মতো আর প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়রা ৫-৬ মিটারের মধ্যে দেয়াল গড়তে পারবেন না, ৯ মিটার দূরেই দাঁড়াতে হবে তাঁদের৷ বিশ্বকাপে ভ্যানিশিং স্প্রে ব্যবহার করা হবে বলে তিনি বেশ খুশি৷ বিশ্বকাপের পরও ফুটবলে এমন স্প্রে-র ব্যবহার দেখতে চান গুয়ার্দিওলা৷

এসিবি/ জেডএইচ (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন