1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

রেকর্ড পরিমাণ কমেছে আর্কটিকের ওপর ওজোন স্তর

আর্কটিকের ওপর ওজোন স্তর কমার পরিমাণ রেকর্ড লেভেলে পৌঁছেছে৷ আগামী কয়েক সপ্তাহে স্ক্যান্ডিনেভিয়ান দেশগুলিতে অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণ অস্বাভাবিক উচ্চ হতে পারে, বলে জানিয়েছে জাতিসংঘের আবহাওয়া সংস্থা৷

default

গত শীতের শুরু থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত আর্কটিক তার ওজোন স্তরের শতকরা ৪০ ভাগ হারিয়েছে, অতীতে পুরো শীতের সময়ে যে ওজোন স্তর হারানোর মাত্রা ছিল শতকরা ৩০ ভাগ৷ জানিয়েছে ওয়ার্ল্ড মেটেওরোলজিক্যাল অর্গানাইজেশন বা ডব্লিউএমও৷

ডব্লিউএমও-র এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ক্ষতিকারক অতিবেগুনি রশ্মি থেকে বিশ্বের প্রাণী জগতকে রক্ষা করে যে ওজোন স্তর, তা আর্কটিকের উপর নজিরবিহীন ভাবে কমে গেছে৷ ওজোন স্তর কমার জন্য দায়ী বায়ুমণ্ডলে বিভিন্ন রাসায়নিক পদার্থের উপস্থিতি৷ কিন্তু এর আর একটি কারণ হল বায়ুমণ্ডলের শূন্যস্তরে প্রবল শৈত্য৷

Klimaerwärmung Eisschmelze auf Grönland Arktis p178

কম ওজোন স্তরের এলাকাটি মার্চ মাসে উত্তরমেরু থেকে সরে গ্রিণল্যান্ড এবং স্ক্যান্ডিনেভিয়ার ওপরে গিয়ে দাঁড়িয়েছে৷ ঐ উত্তরাঞ্চলে আগামী কয়েক সপ্তাহে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি অতিবেগুনি রশ্মি দেখা যাবে৷ ডব্লিউএমও বলেছে, আগামী কয়েক সপ্তাহে মধ্যাহ্নে সূর্যের উচ্চতা যতো বাড়বে, কম ওজোন স্তরের এলাকাগুলিতে অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণও সেই অনুপাতে বাড়বে৷ সেই সময় কি কার উচিত, সে ব্যাপারে পরামর্শ দিয়ে তথ্য সরবরাহ করা হবে জাতীয় অতিবেগুনি পূর্বাভাষের মাধ্যমে ৷

স্ট্র্যাটোস্ফিয়ার বা শূন্যস্তর হল বায়ুমণ্ডলের দ্বিতীয় মুখ্য স্তর৷ বায়ুমণ্ডলের ৯০ শতাংশ ওজোন পাওয়া যায় এই স্তরে৷ সূর্য থেকে যে অতিবেগুনি রশ্মি ছড়িয়ে পড়ে তা ফিল্টার করে এই শূন্যস্তর, এবং সেই পন্থায় মানুষকে রক্ষা করে চর্ম ও চোখের ক্ষতি থেকে৷ মাঠের ফসলকেও অতিবেগুনি রশ্মির বিকিরণ থেকে রক্ষা করে এই ওজোন স্তর৷

এক বিশেষ ধরণের পরিবেশ দূষণ ওজোন স্তর কমে যাওয়ার একটি কারণ৷ রেফ্রিজারেটর ইত্যাদিতে ব্যবহৃত সিএফসি বা ক্লোরোফ্লুয়োরোকার্বন মন্ট্রিয়ল পরিবেশ চুক্তি অনুযায়ী ধীরে ধীরে বর্জন করা হচ্ছে বটে, কিন্তু এই ধরণের রাসায়নিক বহুকাল ধরে বায়ুমণ্ডলে থেকে যায়৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী