1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

রিয়ালিটি শো-এর প্রভাব বদলে দিচ্ছে সমাজকেই

বদলে যাচ্ছে পুরো সমাজ৷ বদলে যাচ্ছে চেনা চালচিত্র, মানুষের মূল্যবোধ, টলে যাচ্ছে পারস্পরিক বিশ্বাসের ভিত৷ ভারতের সনাতন সমাজব্যবস্থাকে আমূল বদলে দিচ্ছে টিভির রিয়ালিটি শো৷

default

শুরুটা হয়েছিল বছর তিনেক আগে৷ যখন বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠি ব্রিটিশ রিয়ালিটি শো ‘বিগ ব্রাদার'-এ অংশ নিতে গিয়ে বর্ণবাদের শিকার হয়েছিলেন৷ রিয়ালিটি শো ব্যাপারটাতে ভারতের মানুষজনের দীক্ষা সেই সময়েই৷ তারপর থেকেই জাতীয় এবং আঞ্চলিক টিভি চ্যানেলগুলোয় একের পর এক রিয়ালিটি শো আসতে শুরু করে দেয়৷ তার কোনটার নাম ‘সাচ কা সামনা', কোনোটা ‘স্বয়ম্বর' কোনোটা বা ‘... দুলহনিয়া লে জায়েঙ্গে'৷ কেউ রিয়ালিটি শো তে এসে নিজের জীবনের গোপন সব কথা খুলে বলছে, জানিয়ে দিচ্ছে যৌনতা নিয়ে তার চিন্তাভাবনা বা গোপন কামনা বাসনা চরিতার্থ করার আমিষ কাহিনী৷ কোন শো-তে বলিউডের তৃতীয় শ্রেণীর অভিনেত্রী বেছে নিচ্ছেন তাঁর স্বামীকে৷ সেই বাছাই হচ্ছে কয়েকশো যুবকের মধ্য থেকে৷ কোথাও বা নিহত রাজনীতিবিদ প্রমোদ মহাজনের গুণধর পুত্র একদা মাদক পাচারের দায়ে অভিযুক্ত রাহুল মহাজন তাঁর স্ত্রী বেছে নিতে গিয়ে ‘ডেটিং' করছেন বারো চোদ্দোজন তরুণীর সঙ্গে৷ সবই চলছে, সবই হচ্ছে ক্যামেরার সামনে৷

ক্যামেরার সামনে এইসব কিছুর মধ্য দিয়েই আসলে ভারতের সনাতন সমাজটাও হয়তো উল্কার বেগে বদলে যাচ্ছে৷ তৈরি হচ্ছে এমন এক নতুন প্রজন্ম যে প্রজন্মের মূল্যবোধের মধ্যে কোথাও নেই সেই ‘ভারতীয়ত্ব', যা ছিল ভারতবর্ষের আলাদা পরিচয়, ছিল বাকি পৃথিবীর সামনে রবীন্দ্রনাথের ভাষায় ‘বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য'র এক অনন্যসাধারণ উদাহরণ৷ এই নতুন প্রজন্ম বা রিয়ালিটি শো-র ভাষায় ‘কুল জেনারেশন'-এর মিলিয়ন মিলিয়ন তরুণ তরুণীর বিশ্বাস, কাউকে অপমান করার মধ্যে কোন গ্লানি নেই,

Flash - Galerie Orchideenfächer in Deutschland Angewandte Sexualwissenschaft

ভারতীয় টিভির রিয়ালিটি শো নকল করা হচ্ছে পাশ্চাত্ত্য থেকেই৷ এমন দৃশ্য কোন নতুন বিষয় নয় যেখানে৷

একাধিক সঙ্গী বা সঙ্গিনীর সঙ্গে নিজের যৌনজীবন নিয়ে খোলামেলা কথাবার্তার মধ্যে একধরনের চটপটানি আছে৷ তাতে নাকি প্রমাণ হয়, কে কতটা স্মার্ট! শুধু যে তরুণ তরুণীরাই তাও নয়, দেখা যাচ্ছে সাধারণ ভারতবাসীর মধ্যে এই নতুন ‘কুল' ধ্যানধারণা ঢুকিয়ে দিতে যথেষ্ট জোরদার ভূমিকা নিচ্ছে তথাকথিত রিয়ালিটি শো৷ যেখানে বিজ্ঞাপন আর সস্তা চটকদারীত্বের মশলা দিয়ে বিক্রি হচ্ছে এইসবই৷ মানুষ গোগ্রাসে তা গিলেও নিচ্ছে অনায়াসে৷

আর তাই চিন্তিত সমাজবিজ্ঞানী থেকে শুরু করে চিন্তাবিদ, লেখক কিংবা রাজনীতির মানুষজনও৷ প্রখ্যাত সাংসদ, একদা ভারতীয় সংসদের স্পিকারের দায়িত্ব পালন করা নাজমা হেপতুল্লা যেমন এইসব চটুল রিয়ালিটি শো-এর বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমেছেন৷ তাঁর বক্তব্য, দেশটা অ্যামেরিকা বা ব্রিটেন নয়, দেশটার নাম ভারত৷ ‘সাচ কা সামনা' নামের রিয়ালিটি শো-এর সমালোচনা করে তাঁর দাবি, অবিলম্বে এই শো বন্ধ করা উচিত৷ যৌনকর্মীর সঙ্গে দৈহিক সম্পর্ক থেকে নিজের কন্যার থেকে কম বয়সী কোন মেয়ের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক আছে কিনা, ক্যামেরার সামনে এই অনুষ্ঠানে হামেশাই ওঠে এমন সব কদর্য প্রশ্ন, শোনা যায় আরও কদর্যতর ইঙ্গিত৷

প্রশ্নের এখানেই তো শেষ নয়৷ টিভির জগতের তেরোভাগ দখল করে নিয়েছে রিয়ালিটি শো৷ প্রতিদিনই তা কলেবরে বাড়ছে৷ হু হু করে বেড়ে চলেছে তার দর্শকসংখ্যা৷ মূল্যবোধ থেকে ব্যবহার সবকিছুই রাতারাতি বদলে যাচ্ছে মানুষের৷ প্রশ্ন তাই এটাও, শেষ পর্যন্ত এইসব কিছুর বিনিময়ে যা অর্জন হবে সেই অতি উন্মুক্ত, অতি অনাচারে বিশ্বাসী সমাজটার নাম কি ভারতীয় সমাজ থাকবে আর?

আধুনিকতার নামে নিজস্বতা বিসর্জন দেওয়াই যদি হয় সারসত্য, তাহলে সেদিকেই ভারতবর্ষ নামের দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে যে, তার নামও ওই একই৷ রিয়ালিটি শো৷

প্রতিবেদক : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা : আরাফাতুল ইসলাম

সংশ্লিষ্ট বিষয়