1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রিভিউয়ের সুযোগ পাবেন সবাই

মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার মামলার পূর্ণাঙ্গ রায়ে রিভিউয়ের সুযোগ থাকার কথা বলেছে দেশের সর্বোচ্চ আদালত৷ আইনজীবীরা বলছেন, মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সবার জন্যই এই সুযোগ প্রযোজ্য হবে৷

গত বছরের ১৭ই সেপ্টেম্বর আপিল বিভাগ সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতির মতামতের ভিত্তিতে কাদের মোল্লাকে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়া হয়৷ তার প্রায় আড়াই মাসেরও বেশি সময় পর ৫ই ডিসেম্বর আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশিত হয়৷ পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের পর ৮ই ডিসেম্বর তা ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়৷ ট্রাইব্যুনাল ঐ দিনই কাদের মোল্লার মৃত্যু পরওয়ানা জারি করে আদেশটি ঢাকার জেলা ম্যাজিস্ট্রেট ও কারা কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠায়৷ রায়ের কপি হাতে পেয়েই তার ফাঁসি কার্যকর করার আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া শুরু করেন তাঁরা৷

কিন্তু রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করতে আসামিপক্ষের আইনজীবীরা ১০ই ডিসেম্বর রাতে সুপ্রিম কোর্টের চেম্বার বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বাসভবনে আবেদন নিয়ে গেলে ফাঁসি কার্যকর স্থগিত করা হয়৷ পরদিন কাদের মোল্লার পক্ষে রিভিউ সংক্রান্ত দুটি আবেদন আপিল বিভাগে দায়েরের পর একদিন শুনানি করে আবেদন নাকচ করে দেয় আদালত৷ রাতেই কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর করা হয়৷ কিন্তু রিভিউ আবেদন কী কারণে খারিজ হয়েছে – তা তখন স্পষ্ট করেননি আপিল বিভাগ৷ মঙ্গলবার রিভিউ আবেদনের পূর্ণাঙ্গ রায়ে হলে তা স্পষ্ট করা হয়৷

এছাড়া রায়ে বলা হয়, মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা আপিলের চূড়ান্ত রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করতে পারবেন৷ এই সুযোগ প্রসিকিউশনও পাবে৷ এ জন্য তাঁরা সময় পাবেন ১৫ দিন৷

রায়ে বলা হয়, ১৯৭৩ সালের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইনে দণ্ডিতদের ক্ষেত্রেও আপিলের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন গ্রহণযোগ্য (মেনটেইনেবল) হবে৷ তবে তা আপিলের সমকক্ষ হবে না৷ সাধারণ মামলার ক্ষেত্রে রিভিউয়ের জন্য ৩০ দিন সময় দেয়া হলেও এ আইনের মামলায় তা প্রযোজ্য হবে না৷ ১৯৭৩ সালের এই আইনের অধীনে আপিলের রিভিউয়ের সময় হবে ১৫ দিন৷ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে রিভিউয়ের আবেদন নিষ্পত্তি করতে হবে৷

এর ফলে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া মৃত্যুদণ্ডের রায় আপিল বিভাগ বহাল রাখলে এবং আসামিপক্ষ পুনর্বিবেচনার আবেদন করলে তা নিষ্পত্তি হওয়ার আগে দণ্ড কার্যকর করা যাবে না৷

সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সংবিধানের ১০৫ অনুচ্ছেদে দেশের নাগারিকদের রিভিউয়ের সুযোগ দেয়া হয়েছে৷ এটা সাংবিধানিক অধিকার৷ এটা কোনোভাবে বাতিল করা যায়না৷ বাতিল করতে হলে সংবিধান সংশোধন করতে হবে৷ আমরা আগেও এটা বলেছি৷ আইনমন্ত্রী এবং অ্যাটর্নি জেনারেল তাঁদের মনগড়া ব্যাখ্যা দিয়েছেন৷ কিন্তু শেষ পর্যন্ত প্রমাণ হল আমরাই সঠিক৷'' তিনি আরও বলেন, ‘‘এখন ট্রাইব্যুনালে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত সব আসামিই এই সুযোগ পাবেন৷ বিচারিক প্রক্রিয়ায় তাড়াহুড়ো না করে সব ধাপ অনুসরণের আহ্বান জানান তিনি৷''

সুপ্রিম কোর্টের এই নির্দেশনার ফলে এখন জামায়াত নেতা কামারুজ্জামানের আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ হলে ১৫ দিনের মধ্যে তিনিও রিভিউ করতে পারবেন৷

অন্যদিকে সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ এ এম আমীর উদ্দিন ডয়চে ভেলেকে বলেন, ‘‘সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ের ফলে অস্পষ্টতার অবসান ঘটল৷ একটি বিতর্ক গোড়া থেকেই ছিল যে মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইনে সর্বোচ্চ আদালতে মৃত্যুদণ্ড প্রাপ্তরা রিভিউ করতে পারবেন কি না৷ সেই বিতর্ক আর থাকলো না৷'' তিনি জানান, এখন থেকে দুই পক্ষই রিভিউয়ের সুযোগ পাবেন৷

তিনি আরও মনে করেন, ‘‘কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করায় তার অধিকার খর্ব করা হয়নি৷ কারণ প্রসিকিউসন রিভিউয়ের বিরোধিতা করলেও তিনি রিভিউ আবেদন করেছেন এবং তা খারিজ হয়েছে৷'' তিনি জানান, ‘‘এখন রাষ্ট্রপক্ষও মাওলানা দেলাওয়ার হোসেন সাঈদীর মৃত্যুদণ্ড কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ডের রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করতে পারবে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়