1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সিরিয়া

‘রাসায়নিক হামলা চালালে আসাদকে মূল্য দিতে হবে'

সিরিয়া সরকার নাকি আবার রাসায়নিক অস্ত্র প্রয়োগের প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ এমনটা করলে বাশার আল আসাদ ও তাঁর বাহিনীকে বড় মূল্য দিতে হবে বলে হুমকি দিলো ট্রাম্প প্রশাসন৷

গত ৪ঠা এপ্রিল সিরিয়ায় রাসায়নিক অস্ত্র হামলার আগে যেমন প্রস্তুতি চোখে পড়েছিল, এখনও সেরকম আভাস পাচ্ছে মার্কিন প্রশাসন৷ বিরোধী নিয়ন্ত্রিত ইদলিব প্রদেশে খান শেখউন শহরে সেই হামলায় কমপক্ষে ৮৭ জন নিহত হয়েছিল৷ তবে আসাদ সরকার এই অভিযোগ অস্বীকার করে৷ প্রেসিডেন্ট আসাদ স্বয়ং এক সাক্ষাৎকারে বলেন, এপ্রিল মাসের এই হামলার অভিযোগ শতভাগ মিথ্যা৷

সেবার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সিরিয়ার বিমানবাহিনীর শায়রাত নামের এক ঘাঁটির উপর ক্ষেপণাস্ত্র হামলার নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ উল্লেখ্য, সিরিয়ায় প্রায় ৬ বছরের সংঘর্ষে এই প্রথম মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরাসরি হস্তক্ষেপ করে৷

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসার সোমবার বলেন, আসাদ প্রশাসনের সম্ভাব্য হামলায় বেসামরিক মানুষ, এমনকি শিশুদেরও প্রাণহানি ঘটতে পারে৷ তবে এ সংক্রান্ত গোপন তথ্য বা অ্যামেরিকার পালটা পদক্ষেপ সম্পর্কে তিনি কোনো মন্তব্য করেননি৷ স্পাইসার আরও বলেন, সিরিয়া ও ইরাকে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠীকে নিশ্চিহ্ন করতে মার্কিন প্রশাসন সিরিয়ায় সক্রিয় রয়েছে৷ মার্কিন নেতৃত্বে কোয়ালিশন বাহিনী রাকা শহর থেকে আইএস-কে উৎখাত করতে অভিযান চালাচ্ছে৷

কিছু সূত্র অনুযায়ী, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থাগুলির ধারণা, আসাদ প্রশাসন সম্ভবত সদ্য তৈরি রাসায়নিক অস্ত্র ইনস্পেক্টরদের কাছ থেকে লুকিয়ে রেখেছে৷ সামরিক স্থাপনায় অস্বাভাবিক গতিবিধির কারণে আসন্ন হামলার আশঙ্কা দানা বাঁধছে৷ মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেমস ম্যাটিস বলেছেন, সিরিয়ার হাতে কিছু রাসায়নিক অস্ত্র এসেছে – এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই৷ এমনকি ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থাগুলিও মনে করে, আসাদ প্রশাসনের হাতে কয়েক টন রাসায়নিক অস্ত্র রয়েছে৷

জাতিসংঘে মার্কিন রাষ্ট্রদূত নিকি হেলি এক টুইট বার্তায় আরও এক ধাপ এগিয়ে বলেছেন, সিরিয়ার জনগণের উপর আরও হামলা হলে শুধু আসাদ নয়, তাদের মদতকারী রাশিয়া ও ইরানকেও দায়ী করা হবে৷

এমন হুমকির ফলে সিরিয়ায় মার্কিন ও রুশ স্বার্থের মধ্যে বড় মাত্রায় সংঘাতের আশঙ্কা বাড়ছে৷ আসাদ প্রশাসনের সমর্থক হিসেবে রাশিয়া এর আগেও মার্কিন প্রশাসনকে সতর্ক করে দিয়েছে৷

এসবি/এসিবি (রয়টার্স, ডিপিএ, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়