1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে রাজনৈতিক নিয়োগ নিয়ে বিব্রত সরকার

রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদে রাজনৈতিক নিয়োগ নিয়ে সরকার বিব্রত৷ অর্থমন্ত্রী বলেছেন, ব্যাংকগুলোতে রাজনৈতিক নিয়োগ ব্যর্থ৷ বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর দক্ষ, সত্‍ ও পেশাদার ব্যাংকার নিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন৷

Bangladesch unterzeichnet Kredit mit der Islamischen Entwicklungsbank

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত (ফাইল ফটো)

বাংলাদেশের চারটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এখন খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১৯ হাজার কোটি টাকা৷ এই ব্যাংকগুলো হলো জনতা, সোনালী, অগ্রনী এবং রূপালী ব্যাংক৷ আর গত ৬ বছরে খেলাপি ঋণ বৃদ্ধির শতকরা হিসেবে শীর্ষে আছে জনতা ব্যাংক৷ এই ব্যাংকে খেলাপি ঋণ বেড়েছে শতকরা ৮৫ ভাগ৷ এছাড়া সরকারের বিশেষায়িত ‘বেসিক' ব্যাংকে ঋণের নামে আত্মসাত্‍ হয়েছে প্রায় ৪,৫০০ কোটি টাকা৷ এর সঙ্গে আছে সোনালী ব্যাংকের হলমার্ক কেলেঙ্কারিও৷

সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, রাষ্ট্রায়ত্ত এই চারটি ব্যাংকের ওপর করা একটি মূল্যায়ন প্রতিবেদনে বাংলাদেশ ব্যাংক বলেছে, কেবল ২০১৩ সালেই সোনালী ব্যাংকের নতুন খেলাপির পরিমাণ চার হাজার ২৬৬ কোটি টাকা, জনতায় তিন হাজার ৩৯২ কোটি, অগ্রনী ব্যাংকে দুই হাজার ৬৯২ কোটি এবং রূপালী ব্যাংকে নতুন খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৬৪৯ কোটি টাকা৷ সব মিলিয়ে এই চারটি ব্যাংকে মাত্র এক বছরেই নতুন করে খেলাপি ঋণ তৈরি হয়েছে ১০ হাজার ৯৯৭ কোটি টাকা৷ আর এ সবের জন্য প্রধানত দায়ী করা হয়েছে ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে রজিনৈতিক নিয়োগকে৷

Bengalische Banknoten

চারটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের এখন খেলাপি ঋণের পরিমাণ ১৯ হাজার কোটি টাকা

দলীয় নেতা-কর্মীদের সুযোগ-সুবিধা পাইয়ে দিতে বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান থেকে পরিচালক পদে নিয়োগ দেয়া হয়েছে, যাঁদের অধিকাংশেরই ব্যাংকার হিসেবে কোনো পূর্ব অভিজ্ঞতা বা যোগ্যতা নেই৷

অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত রাজনৈতিক নিয়োগের এই সিদ্ধান্তকে ভুল বলে স্বীকার করেছেন৷ যদিও এর আগে তিনি রাজনৈতিক নিয়োগের পক্ষেই কথা বলেছিলেন৷ অর্থমন্ত্রী সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘‘আমরা বিচার-বিশ্লেষণ করে দেখেছি, ব্যাংকগুলোতে রাজনৈতিক দলের লোকদের নিয়োগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত ব্যর্থ হয়েছে৷ এ জন্যই এখন থেকে রাষ্ট্রায়ত্ত এবং বিশেষায়িত ব্যাংকগুলোর পরিচালনা পর্ষদে অভিজ্ঞ ব্যাংকারদের নিয়োগ দেওয়া হবে৷''

সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই জনতা ব্যাংকে নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে সাবেক ব্যাংকার সিরাজ উদ্দীন আহমেদ চৌধুরীকে নিয়োগ দেয়ার কথা জানিয়েছেন তিনি৷ এছাড়া বেসিক ব্যাংকে ব্যাংকার আলাউদ্দিন এ মজিদকে চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে৷ অর্থমন্ত্রী জানান, রাষ্ট্রায়ত্ত অন্যান্য ব্যাংকেও পরিচালনা পর্ষদে অভিজ্ঞ ব্যাংকারদের নিয়োগ দেয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে৷

এদিকে কেন্দ্রীয় ব্যাংক বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমান রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ থেকে অসাধু, অদক্ষ এবং সুবিধাবাদী পরিচালকদের অপসারণের জন্য সরকারকে অনুরোধ জানিয়েছেন৷ তিনি ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে দক্ষ, সত্‍ এবং পেশাদার ব্যাংকার নিয়োগের আহ্বান জানিয়েছেন৷

গভর্নর মঙ্গলবার ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেন, ‘‘ব্যাংক একটি সংবেদনশীল প্রতিষ্ঠান৷ এর সঙ্গে দেশের অর্থনীতি জড়িত৷ এখানে দক্ষতা এবং যোগ্যতা ছাড়া অন্য কোনো বিবেবচনায় পরিচালনা পর্ষদে নিয়োগ কাম্য নয়৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়