1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘রাষ্ট্রপতি এমন অপরাধীদের ক্ষমা করতে পারেন না'

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াত নেতা কাদের মোল্লা প্রাণভিক্ষা চাইতে পারেন রাষ্ট্রপতির কাছে৷ তা তিনি করবেন কিনা এখনো স্পষ্ট নয়৷ এর আগে তার স্বজনরা প্রাণভিক্ষা চাওয়ার বিষয়টি নাকচ করলেও সোমবার তার ছেলে স্পষ্ট করে কিছু বলেননি৷

এদিকে আইনজ্ঞরা বলেছেন এখন কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর করা সরকারের দায়িত্ব৷

কাদের মোল্লার ছেলে হাসান জামিল সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, তার বাবা রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কিনা তা তারা এখনো জানেন না৷ তিনি জানিয়েছেন কাদের মোল্লা পূর্ণাঙ্গ রায় পড়ছেন৷ মঙ্গলবার তিনি এ নিয়ে আইনজীবীর সঙ্গে কথা বলবেন, তারপর সিদ্ধান্ত নেবেন৷ তবে ১৭ সেপ্টেম্বর মৃত্যুদণ্ডের রায় ঘোষণার পর হাসান জামিল বলেছিলেন, তার বাবা প্রাণভিক্ষা চাইবে না৷

Bangladesch Md. Abdul Hamid

প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ

কারা মহাপরিদর্শক মঈন উদ্দিন খন্দকার জানিয়েছেন তারা কাদের মোল্লাকে মৃত্যু পরোয়ানা পড়ে শুনিয়েছেন৷ এখন জানতে চাইবেন যে, তিনি রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইবেন কিনা৷ চাইলে তার আবেদন নিয়মানুযায়ী রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হবে৷ তিনি জানান মৃত্যু পরোয়ানা পাওয়ার পর তারা প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছেন৷

আর সুপ্রিমকোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ ম রেজাউল করিম ডয়চে ভেলেকে জানান কাদের মোল্লার ফাঁসির দণ্ড কার্যকর করা এখন সরকারের দায়িত্ব৷ কিছু প্রস্তুতির জন্য দণ্ড কার্যকর এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র৷ কারণ এখানে আদালতের আর কোনো কাজ নেই৷ তিনি বলেন মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল আইন অনুযায়ী সর্বশেষ আদালতের রায় কার্যকর করাই এখন সরকারের কাজ৷

অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমও বলেছেন সরকার চাইলে এখন যে-কোনো সময় কাদের মোল্লার ফাঁসি কার্যকর করতে পারে৷ তিনি বলেন এই রায়ের বিরুদ্ধে কোনো রিভিউয়ের সুযোগ নেই৷ আর এখানে জেলকোডের বিধানও কার্যকর নয়৷ কারণ এই আইনের ক্ষেত্রে দণ্ডবিধি বা সংবিধানের অন্যকোনো বিধান কার্যকর নয়৷ এখন তাই সরকার যেদিন বলবে সেদিনই ফাঁসি কার্যকর হবে৷ আর জেনেভা কনভেনশন অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি এধরণের অপরাধীদের ক্ষমা করতে পারেন না৷ কিন্তু কেউ প্রাণভিক্ষা চাইলে চাইতে পারেন৷

তবে কাদের মোল্লার ছেলে হাসান জামিল দাবি করেছেন সরকার তড়িঘড়ি করে রায় কার্যকর করতে চাইছে৷ আইনি প্রক্রিয়া পুরোপুরি শেষ না করে তারা রায় কার্যকরের বিরোধিতা করেন৷ এটি একটি ভুল রায় তাই কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে মামলার পুনর্বিচার দাবি করেন তিনি৷ কাদের মোল্লার আইনজীবী ব্যারিস্টার আব্দুর রাজ্জাকও মনে করেন রিভিউয়ের সুযোগ দেয়া না হলে আইনি প্রক্রিয়া শেষ হবে না৷

এদিকে কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে মৃত্যু পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামী সোমবারের পর মঙ্গলবারও সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে৷ অ্যাডভোকেট রেজাউল করিম আশঙ্কা করেন জামায়াত এই রায় কার্যকর করাকে কেন্দ্র করে বড় ধরণের নাশকতার ঘটনা ঘটাতে পারে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়