1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রাশিয়া-ইইউ কেউ লাভবান নয়, লাভ তুরস্কের

হঠাৎ করে ইউরোপের দেশগুলোতে রাশিয়ার সাউথ স্ট্রিম প্রকল্প বাতিলের ঘোষণা পুটিনের জন্য যেমন বিজয় নয়, তেমনি ইউরোপীয় ইউনিয়নের জন্য ক্ষতির কিছু নেই – এমনটাই মনে করছেন ডয়চে ভেলের আন্দ্রে গুর্কভ৷

সাউথ স্ট্রিম গ্যাস লাইন প্রকল্প বন্ধ করে পুটিন কি ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোর উপর প্রতিশোধ নিলেন! হয়ত তিনি দেখতে চান রাশিয়ার কাছ থেকে গ্যাস না পেয়ে ইউরোপের কী অবস্থা হয়৷ এছাড়া বিশ্বের অন্যান্য দেশে গ্যাস সরবরাহ করে নিজেদের অবস্থানটা কি যাচাই করে দেখতে চান পুটিন? আন্দ্রে গুর্কভের মতে এভাবেই এই শক্তিশালী ব্যাক্তিটি নিজের ভাবনাগুলো বিক্রি করছেন৷ কেননা এই সিদ্ধান্তটা পুটিনের একেবারেই নিজস্ব, যেটা রাশিয়ার জ্বালানিমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক একেবারে পরিষ্কারভাবে জানিয়েছেন৷

ইউক্রেনকে এড়িয়ে যাওয়া, কূটনৈতিক বিজয়

DW Russische Redaktion Hörfunk Andrey Gurkov

ডয়চে ভেলের আন্দ্রে গুর্কভ

রাশিয়া যেভাবে ঘোষণা দিয়েছে, তাতে মনে হতে পারে পাইপলাইন সরিয়ে নিয়ে যাওয়াটা খুব সহজ একটা ব্যাপার, যদিও সেটা নয়৷ এটা অবশ্যই পুটিনের জন্য বিজয় নয়, আবার তার পরাজয়ও নয়, যা অনেক ইউরোপীয় নেতাদের কাছে মনে হচ্ছে৷ আসলে পুটিন যা করেছেন তা হলো অদল বদল৷ তিনি কেবল একটু পরিবর্তীত পরিস্থিতিটা দেখতে চান, আসলে তিনি জানেন ইউরোপই তার প্রধান ক্রেতা৷

প্রথমে লক্ষ্য ছিল ইউক্রেন হয়ে রাশিয়া থেকে কৃষ্ণসাগর হয়ে বুলগেরিয়ার উপর দিয়ে অস্ট্রিয়ায় পৌঁছাবে সাউথ স্ট্রিম৷ কিন্তু ক্রেমলিনের জন্য ভূ রাজনীতি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ৷ তাই তাদের ধারণা হলো পাইপলাইন যদি ইউক্রেন হয়ে যায় তবে গ্যাস সরবরাহ করার, অর্থাৎ ট্রানজিটের সুবিধা নিয়ে রাশিয়ার সাথে রাজনীতি করবে কিয়েভ৷

ট্রানজিট দেশ হিসেবে তুরস্ক

রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধাবস্থায় পুটিনের জন্য এই সাউথ স্ট্রিম প্রকল্প ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে৷ তুরস্কের রাজধানী আঙ্কারায় গিয়ে তাই সাউথ স্ট্রিমের নতুন প্রকল্প ঘোষণা দেন তিনি৷ প্রতিবছর ৬৩ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাস কৃষ্ণসাগর হয়ে তুরস্কে যাবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই প্রকল্প অনুযায়ী তুরস্কে পাইপ লাইন স্থাপনের জন্য কাঠামো সংস্কার ও নির্মাণ করতে হবে৷ নতুন এই পাইপলাইন থেকে যে গ্যাস পাওয়া যাবে তুরস্কের জন্য তা তুলনামূলক সস্তা৷ ফলে তুরস্কের নিজেদের ব্যবহারের জন্য যে ১৪ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাস দরকার, তা তারা এখান থেকে সহজেই পেয়ে যাবে৷ যা বর্তমানে রাশিয়া থেকে ইউক্রেন হয়ে বলকানের মধ্য দিয়ে পায় তুরস্ক৷

বুলগেরিয়া অতটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না

তুরস্ক ব্যবহারের পর যেটা থাকল সেই গ্যাসের পরিমাণ ৫০ বিলিয়ন ঘনমিটার৷ গাসপ্রমের প্রধান নির্বাহী আলেক্সি মিলার জানান, এটা তুরস্ক থেকে গ্রিস হয়ে ঢুকবে ইউরোপে৷ তাহলে বোঝাই যাচ্ছে লক্ষ্যটা কিন্তু ইউরোপ৷ কারণ বেশিরভাগ গ্যাসই সরবরাহ হবে ইউরোপে৷ আসলে পাইপলাইনের নাম ছাড়া খুব একটা বদল হচ্ছে না প্রকল্পে৷ কারণ ৫০ বিলিয়ন ঘনমিটার গ্যাসের বাজার হারানোর মতো বোকামি করবে না রাশিয়া৷ এমনকি পুটিন যে বুলগেরিয়াকে সবচেয়ে বড় পরাজয়ের শিকার বলেছেন, বাস্তবে বুলগেরিয়া ততটা ক্ষতিগ্রস্ত হবে না৷ কেননা তার ট্রানজিট ফি সে ঠিকমতই সংগ্রহ করতে পারবে৷

মানচিত্র দেখলে ব্যাপারটি আরো পরিষ্কার হয়ে যায়৷ তুরস্ক পশ্চিম সীমান্তটা গ্রিস আর বুলগেরিয়ার সাথে ভাগাভাগি করেছে৷ তাই কেবল গ্রিস দিয়েই কি সব গ্যাস ঢুকবে? কেননা গ্রিসে এত বড় বাজার নেই৷ আর তাছাড়া কয়েক বছরের মধ্যেই তাদের টিএপি পাইপলাইন তৈরি হয়ে যাবে, যা আজারবাইজান থেকে ইটালি হয়ে আসবে৷

তুরস্কের জয়

পুরো ব্যাপারটা ভালোমত পর্যবেক্ষণ করলে দেখা যায় এখানে রাশিয়া বা ইউরোপীয় ইউনিয়ন কেউই পরাজিত হয়নি বা লাভবান হয়নি, তবে লাভ যদি কারো হয়ে থাকে, তা হয়েছে তুরস্কের৷ তুরস্ক ভালো পাইপলাইন তৈরি করতে পারলে মধ্যপ্রাচ্যের দেশ ইরাক ও ইরান থেকে গ্যাস ইউরোপে সরবরাহ করা তাদের জন্য খুবই সহজ হবে৷ এমনকি এক্ষেত্রে রাশিয়ার জন্য তুরস্ক হয়ে উঠতে পারে শক্তিশালী প্রতিপক্ষ৷

সংশ্লিষ্ট বিষয়