1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

রাশিয়ার হালাল হোটেলের কথা

হোটেল রুমে জায়নামাজ, কোরান শরীফ, কাবার দিক জানার জন্য কম্পাস, পশুর চর্বি ও অ্যালকোহল ছাড়া তৈরি শ্যাম্পু, সাবান – এসব কিছুই রয়েছে৷ মুসলিম পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে এই ব্যবস্থা৷

ইউক্রেন ইস্যুকে ঘিরে পশ্চিমা বিশ্ব থেকে রাশিয়ায় পর্যটকদের উপস্থিতি কমে গেছে৷ এক হিসেবে সেটা প্রায় ৩০-৩৫ শতাংশ হতে পারে বলে জানা গেছে৷ ক্ষতি পুষিয়ে নিতে রাশিয়ার একটি হোটেল মুসলিম দেশের অতিথিদের আকর্ষণের চেষ্টা করছে৷

হোটেলটির নাম এয়ারোস্টার হোটেল৷ অবস্থান মস্কোতে৷ এই হোটেলটির ৩০৮টি রুমের মধ্যে ২০টিতে হালাল সেবা দেয়া হচ্ছে৷ শুরুতে যেসব সেবার কথা বলা হয়েছে তার সবই পাওয়া যাবে এসব রুমে৷ এর বাইরে নামাজ পড়ার জন্য নারী ও পুরুষদের জন্য আলাদা স্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ রয়েছে হালাল খাবার রান্নার জন্য আলাদা রান্নাঘর৷ সেখানে রান্না করার জন্য নতুন বাসনকোসনও কেনা হয়েছে৷

হোটেলের বিপণন পরিচালক লিওবোভ শিয়ান বলছেন, ‘‘আমাদের হোটেলের প্রায় ৭০ ভাগ অতিথিই বিশ্বের বিভিন্ন দেশের৷ এর মধ্যে প্রায় ১৩ শতাংশ অর্থাৎ প্রায় পাঁচ হাজার জন আসেন মুসলিম বিশ্ব থেকে৷ তাঁরা সবসময় আলাদা নামাজ পড়ার জায়গা ও বিশেষ খাবারের কথা বলতেন৷''

এই চাহিদা মেটাতে গিয়ে হোটেল কর্তৃপক্ষ অনেক পদক্ষেপ গ্রহণ করে৷ পরে মস্কোর ‘হালাল ইন্টারন্যাশনাল সেন্টার ফর স্ট্যান্ডার্ডাইজেশন অ্যান্ড সার্টিফিকেশন' সংস্থার কাছ থেকে ‘হালাল' সার্টিফিকেট লাভ করে৷

রাশিয়ায় প্রায় দুই কোটি মুসলমান বাস করলেও সেখানে মাত্র দুটি হোটেল ‘হালাল' বলে অনুমোদন পেয়েছে৷ এদিকে এ বছরের প্রথম দিকে রাশিয়ার যে শহরে শীতকালীন অলিম্পিক আয়োজিত হয়েছিল সেই সোচির একটি হোটেল ‘হালাল' হওয়ার প্রক্রিয়ায় রয়েছে৷ অলিম্পিক চলাকালীন মুসলিম অ্যাথলিটরা এমন হোটেলের চাহিদা অনুভব করেন বলে জানা গেছে৷

২০১৮ সালে রাশিয়ায় যখন বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে তখন সোচিতেও কয়েকটি খেলা হতে পারে৷ সে সময় মুসলিম দর্শকদের আকৃষ্ট করতে সোচির আরও কয়েকটি হোটেল হালাল হওয়ার আগ্রহ দেখাচ্ছে৷

জেডএইচ/এসবি (এএফপি)