1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘রাইস বাকেট চ্যালেঞ্জ’ ও বন্যা

উত্তরাঞ্চলের কয়েকটি জেলা গত প্রায় দু’সপ্তাহ ধরে বন্যাকবলিত৷ তবে ত্রাণ তৎপরতা খুব একটা দেখা যাচ্ছে না৷ ফেসবুকে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে অনেকেই সরকারকে সেদিকে নজর দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন৷

দৈনিক প্রথম আলো-তে প্রকাশিত ‘পাঁচ জেলায় বন্যার অবনতি: খাবার ও পানির সংকটে বানভাসি মানুষ' শীর্ষক প্রতিবেদনে জামালপুরের বন্যাকবলিত ওসমান গনির মন্তব্য ছাপা হয়েছে৷ তিনি বলেছেন, ‘‘১৫ দিন ধরে পানিতে, অথচ একবার কেউ খোঁজ নিল না৷ দিল না একটু ত্রাণ৷'' তাই গত দুই সপ্তাহ ধরে পানিতে নিমজ্জিত ঘরের মধ্যে পরিবার নিয়ে তিনি অর্ধাহারে-অনাহারে বাস করছেন বলে জানিয়েছে পত্রিকাটি৷

এ প্রসঙ্গে ইমরান এইচ সরকার ফেসবুকে একটি মানবিক আবেদন জানিয়েছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘দেশের উত্তর-মধ্যাঞ্চল মারাত্মকভাবে বন্যায় প্লাবিত৷

বিশেষ করে সিরাজগঞ্জ, জামালপুর, গাইবান্ধা, কুড়িগ্রামসহ বেশ কয়েকটি জেলা৷ ইতোমধ্যেই কয়েক লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছে, পানিবন্দি আছে লাখ লাখ মানুষ৷ এখন পর্যন্ত এ সব দুর্গত মানুষের পাশে বড় পরিসরে কেউ দাঁড়িয়েছে, আমার চোখে পরেনি৷ আরো হতাশাজনক ব্যাপার হচ্ছে, এ নিয়ে কারো কোনো উচ্চবাচ্যও আমার চোখে পরেনি৷ অথচ ঢাকা শহর কিংবা কোনো এলিট অঞ্চলে এর এক শতাংশ মানবিক বিপর্যয় হলে হয়ত দেশে এতক্ষণে তুলকালাম কাণ্ড হয়ে যেত!''

তিনি সবাইকে বন্যাকবলিত দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন৷ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘#IceBucketChallenge কিংবা #RiceBucketChallenge – এ সব চ্যালেঞ্জ কি আমরা আমাদের বন্যার্ত অসহায় ভাই-বোনদের জন্য করতে পারি না?''

উল্লেখ্য, ফেসবুকে অনেকেই ‘রাইস বাকেট চ্যালঞ্জ'-এর ছবি পোস্ট করছেন৷ একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী নিজে কোনো গরিব মানুষকে এক প্যাকেট চাল দিয়ে সেই ছবি ফেসবুকে পোস্ট করে আরও সাতজনকে চ্যালেঞ্জ জানাচ্ছেন৷

যুক্তরাষ্ট্রের ‘আইস বাকেট চ্যালেঞ্জ'-এর মতো করে ভারতে কদিন আগে ‘রাইস বাকেট চ্যালেঞ্জ' শুরু হয়৷ এরপর বাংলাদেশেও সেটা চলছে৷ ৩০ আগস্ট তারিখে আরিফ আর হোসেন নামে এক ফেসবুক ব্যবহারকারী তাঁর স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘‘আসুন শুরু করি ‪#RiceBucketChallenge‬৷

আমি যাদেরকে নমিনেট করবো; তারা, রাস্তায় সুবিধাবঞ্চিত যে কাউকে আপনার সামর্থ্য অনুযায়ী এক বাকেট/প্যাকেট চাল দিয়ে আসবেন....এসে, সেই ছবি আপলোড দিবেন এবং তারপর আপনি নমিনেট করবেন আপনার পছন্দ মতো ৭ জনকে৷....এই ৭ জন যদি আরও ৭ জনকে নমিনেট করে....আর প্রত্যেকে যদি শুধু ১ কেজি চালও দেয়....আর এভাবে যদি মাত্র ১০টা স্টেইজও পার হয়....তাহলে বিতরণকৃত চালের পরিমাণ কতো দাঁড়াবে জানেন????? কয়েক হাজার কেজি না....কয়েক লক্ষ কেজিও না....২৮ কোটি কেজির বেশি৷''

আরিফ আর হোসেন-এর উদ্যোগে সাড়া দিয়ে ব্যক্তি ছাড়াও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানও এগিয়ে আসছে৷ রকমারি ডটকম তাদের ফেসবুক পেজে চাল বিতরণের ছবি দিয়ে আরও কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে৷ ঐ পেজে লেখা হয়েছে, ‘‘আরিফ রেজা হোসেন ভাই ‪#RiceBucketChallenge‬ ঘোষণা করেছেন৷...আরিফ ভাই এর মনোনয়ন লিস্টে শুধু ব্যক্তিগত আইডিই ছিল৷ কোনো প্রতিষ্ঠানের ভাবনা হয়ত ভাইয়ার মাথায় ছিল না৷ কিন্তু এই চ্যালেঞ্জ এর আইডিয়ার সাথে আমরা পুরোপুরি একমত৷ অনেকেই হয়ত ব্যাপারটাকে পাগলামি, দুই দিনের খেয়াল, হুজুগ বলবেন৷ আবার অনেকে বলবেন এই আইডিয়া তো প্রথমে অন্য কেউ বা কোথাও জেনারেট হয়েছে৷ তাতে কি? আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় কোনো কার্যকর আইডিয়া প্রতিষ্ঠা করতে পারলে সেটা কি সফলতা না? একটু ভেবে দেখুন, দুই দিনের একটি পরিবর্তন দিয়েই কিন্তু শুরু করতে হয়৷ আর একবার শুরু হলে ব্যাপারটা স্থায়ী না করা পর্যন্ত যে হুজুগে বাঙালি জাতি থামে না, অতীতে কিন্তু এর প্রমাণ অনেক বার পাওয়া গেছে৷''

সংকলন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন