1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

রসায়নে নোবেল পেলেন তিন মার্কিন বিজ্ঞানী

রসায়ন শাস্ত্রে নোবেল পেয়েছেন মার্টিন কারপ্লাস, মাইকেল লেভিট এবং আরি ওয়ারশেল৷ বুধবার জানা গেছে এ তথ্য৷ তিনজনই এখন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক, তবে কারপ্লাস অস্ট্রীয়, লেভিট ব্রিটিশ আর ওয়ারশেল ইসরায়েলি বংশোদ্ভূত৷

বুধবার সুইডিশ অ্যাকাডেমি অফ সায়েন্টিস্ট এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, রাসায়নিক বিক্রিয়ার অনুপুঙ্খ তুলে ধরার ক্ষেত্রে কম্পিউটার ব্যবহারের পথিকৃৎ হিসেবে ২০১৩ সালে রসায়নে নোবেল পুরস্কার পাবেন যুক্তরাষ্ট্রের তিন মলিকিউলার কেমিস্ট৷ ‘এই তিনজন রসায়ন গবেষণাকে সাইবারস্পেসে নিয়ে গেছেন'– জানিয়ে বিবৃতিতে বলা হয়, ‘‘রাসায়নিক বিক্রিয়া হয় বিদ্যুৎ গতিতে৷ ২০১৩-র নোবেলজয়ীরা রসায়নের রহস্যময়তাকে কম্পিউটারের সহায়তায় উন্মোচন সম্ভব করে দেখিয়েছেন৷ রাসায়নিক প্রক্রিয়া সম্পর্কে বিশদ জ্ঞান প্রভাবক, ওষুধ এবং সোলার সেলের উন্নতিতে খুব সহায়ক৷ তাঁরা কম্পিউটারের যে মডেল তৈরি করেছেন তা খুবই শক্তিশালী৷ আমাদের জ্ঞানকে তাঁরা কত বেশি দূরে নিয়ে যাবার পথ করে দিলেন তা সময়ই বলতে পারবে৷ শুধু এটুকু বলা যায় যে, এখন রসায়ন গবেষণায় কম্পিউটার টেস্ট টিউবের মতোই গুরুত্বপূর্ণ৷ ''

অস্ট্রীয় বংশোদ্ভুত মার্টিন কারপ্লাস যুক্তরাষ্ট্রের হার্ভার্ড এবং ফ্রান্সের ইউনিভার্সিটি অফ স্ট্রাসবুর্গে গবেষণা করছেন৷ ব্রিটিশ বংশোদ্ভুত মাইকেল লেভিটের কর্মস্থল স্ট্যানফোর্ড ইউনিভার্সিটি স্কুল অফ মেডিসিন৷ নোবেল পুরস্কারে ভূষিত আরেক রসায়নবিদ আরি ওয়ারশেল ইউনিভার্সিটি অফ সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়ার অধ্যাপক৷ বয়সে কারপ্লাসই সবচেয়ে বড়৷ তাঁর বয়স এখন ৮৩ বছর৷ ওয়ারশেল তাঁর চেয়ে ১১ বছরের ছোট৷ রসায়ন গবেষনায় ইতিহাসে নাম লেখানো আরেক বিজ্ঞানী লেভিটের বয়স ওয়ারশেলের চেয়ে ১৬ আর কারপ্লাসের চেয়ে ২৭ বছর কম৷

প্রতিবারের মতো এ বছরও প্রথমে ঘোষণা করা হয় চিকিৎসা শাস্ত্রের নোবেল বিজয়ীদের নাম৷ যুক্তরাষ্ট্রের জেমস রথম্যান, ব়্যান্ডি শেকম্যান এবং জার্মান বংশোদ্ভূত গবেষক টোমাস স্যুডহোফকে পুরস্কৃত করার ঘোষণার পরে আসে পদার্থবিদ্যায় ব্রিটিশ বিজ্ঞানী পিটার হিগস এবং বেলজিয়ামের বিজ্ঞানী ফ্রঁসোয়া অঁগল্যারের অসামান্য এই স্বীকৃতি প্রাপ্তির খবর৷ বুধবার ধারাবাহিকতার নিয়ম মেনে জানানো হয় রসায়ন শাস্ত্রে নোবেলজয়ীদের নাম৷

এসিবি/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন