1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

রঙে রঙে রাঙানো ছিল দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপের দিন

এক একটা দিন দারুণ রঙিন! একমাসের বিশ্বকাপ ফুটবলের আয়োজনে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রতিটি দিনই ছিল যেন কবির সুমনের গানের কথার মতোন৷ কেবল দক্ষিণ আফ্রিকার কথা বলছি কেন?

default

শেষ হলো আফ্রিকার বিশ্বকাপ

আশেপাশের দেশগুলোতেও নাকি ছিল একই অবস্থা৷ এমনটাই বলছেন সেখানকার সাধারণ মানুষ৷

বিশ্বকাপের আয়োজন ঠিকঠাক করার ব্যাপারে বড় ধরণের চ্যালেঞ্জ ছিল আফ্রিকার জন্য৷ দক্ষিণ আফ্রিকা সেই চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছে সফলতার সঙ্গেই৷ কিন্তু যে অঞ্চলে ক্ষুধা-দারিদ্র্য এখনও জেঁকে বসে আছে, হানাহানি চলছে জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে, ঘটছে আইন বিরোধী নানা ধরণের কার্যকলাপ, সেখানে আবার কি ফিরে আসবে অশান্তি? অনেকেই এই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন, হয়তো আবারও ফিরে আসবে৷ তবে অন্তত এই একটি মাস বেশ শান্তিপূর্ণ ছিল৷ ছোটখাট ঘটনা যে বিশ্বকাপ চলাকালে ঘটেনি,

Flash-Galerie WM-Highlights Fußball WM 2010 Südafrika

বিশ্বকাপের অন্যতম আলোচিত বিষয় ভুভুজেলা

তা নয়৷ বলা হচ্ছে, ১৯ তম বিশ্বকাপের আয়োজনে সব দিক থেকেই সফল দক্ষিণ আফ্রিকা৷

প্রথম পর্ব থেকেই টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা৷ কিন্তু তাতে মোটেই উৎসব থেকে পিছিয়ে পড়েনি সেখানকার জনগণ৷ প্রতিদিন নানা রঙ-বেরঙের পোষাক পরে, হাতে ভুভুজেলা নিয়ে, নিজস্ব সব সনাতন বাদ্যযন্ত্র আর নানা ধরণের সাজ-সজ্জার মধ্য দিয়ে যে সমস্ত স্থানে খেলা হয়েছে, সেই সব জায়গায় নাচ গান করে আগত ফুটবলপ্রেমীদের শুভেচ্ছা-স্বাগত জানিয়েছেন তারা৷ বলে রাখা ভালো, এই একমাসে যে জিনিসটি সবচেয়ে বেশি বিক্রি হয়েছে, তা হলো ভুভুজেলা!

বিশ্বকাপ উপলক্ষে নানা ধরণের ব্যবসা বেশ জমে উঠেছিল গত এক মাসে৷ এছাড়া আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ আগত অতিথিদের পর্যটনে উৎসাহী করতে নানা ধরণের প্যাকেজ ছেড়েছিল৷ তাই খেলা দেখার সঙ্গে সঙ্গে আফ্রিকার সিংহ, চিতাবাঘ, হরিণ কিংবা হাতি দেখতে জঙ্গল চষে বেড়িয়েছেন অনেকেই৷ ফলে এ খাতে বেশ আয়ও হয়েছে দেশগুলোর৷ একই সঙ্গে আফ্রিকার বিভিন্ন অভ্যন্তরীণ বিমান সংস্থাও দিয়েছিল প্যাকেজ৷

Desmond Tutu Südafrika Mexiko

নোবেল বিজয়ী ডেসমন্ড টুটু: খুবই চমৎকার হয়েছে আফ্রিকার বিশ্বকাপ আয়োজন

আফ্রিকার দেশ কেনিয়ার একটি সংবাদপত্রের কলাম লেখক ওতুমো ওংগালার কথায়, ‘আফ্রিকা যে বিশ্বকাপের মতো বড় আসর সফলতার সঙ্গে আয়োজন করতে পারে, এবার সেটাই প্রমাণ হলো৷ এক কথায়, ‘ইয়েস উই ক্যান,আমরাও পারি৷'

আফ্রিকার দেশ গাবনের বালাইসি মাকাসা এই একমাসকে তুলনা করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিজয়ের সেই আনন্দময় সময়ের সঙ্গে৷ তবে বিষাদও ভর করেছে কারও কারও মনে৷ নাইজেরিয়ার গায়ক ইয়ামিসি রানসাম কুটি মনের দু:খকে মুখের কথায় প্রকাশ করলেন তাই এভাবে,'‘আবার হয়তো এই আফ্রিকা ফিরে যাবে আগের সেই সময়ে, আবার দেখা দেবে নানা ধরণের অপরাধ, যা আমরা কখনোই চাই না৷'

বর্ণবাদ বিরোধী নেতা ও নোবেল শান্তি পুরস্কার বিজয়ী আর্চ বিশপ ডেসমন্ড টুটুর কথায়,‘খুবই চমৎকার হয়েছে আফ্রিকার বিশ্বকাপ আয়োজন৷ তবে আমাদের ভুলে গেলে চলবে না যে এখনো আফ্রিকার অধিকাংশ মানুষের নেই কোন বাস্তুভিটা, অধিকার নেই স্কুলে যাবার, সুযোগ নেই চিকিৎসার, সুপেয় পানীয় জলের রয়েছে তীব্র সংকট৷'

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়