1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যৌন হয়রানি থেকে রক্ষা করবে কোমলের গল্প

বয়স ন'বছর, দেখতে ভারি মিষ্টি, গাঁট্টাগোট্টা, স্বভাবে চঞ্চল, একেবারে হাওয়ার মতো ফুরফুরে৷ এই হলো বাবা-মায়ের চোখের মনি কোমল৷ কিন্তু এই দুরন্ত কোমলই একদিন একেবারে নিশ্চুপ হয়ে যায়৷ নিজেকে তার কেমন যেন নোংরা মনে হতে থাকে...৷

কোমল আগে স্কুলে যেতে, বন্ধুদের সঙ্গে হুল্লোড় করতে দারুণ ভালোবাসতো৷ সারাদিন টই-টই, পাশের বাড়ির বক্সি চাচার সঙ্গে হাজারটা মজা করা, হাজারো খেলা৷ কিন্তু একদিন এই চাচাই কোমলের সরলতার সুযোগ নেয়৷ আর অচীরেই দুমড়ে-মুচড়ে যায় কোমলের শৈশব, এমনকি মুখের হাসিটুকুও বিলীন হয়ে যায় ছোট্ট মেয়েটির৷

অবশ্য এ গল্প শুধু কোমলের নয়৷ পাড়া-প্রতিবেশী, পারিবারিক বন্ধু-বান্ধব, এমনকি আত্মীয়স্বজনদের হাতেও অহরহ যৌন নির্যাতন, নিপীড়নের শিকার হয়, হচ্ছে ফুলের মতো অবোঝ শিশুরা৷ আসলে ‘পেডোফিলিয়া' একটি মানসিক রোগ৷ এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিরা, যাদের ‘পেডোফিল' বলা হয়, শিশুদের প্রতি যৌনাসক্ত৷ মুশকিল হলো, এই বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষদের শনাক্ত করা চাট্টিখানি কথা না৷

তাই কখনও ভেবেছেন, আপনার নিজ সন্তানের সঙ্গে এমনটা হলে কী করবেন? কীভাবে বোঝাবেন আপনার শিশুকে? কীভাবে লড়াই করবেন পরিবেশ, পারিপার্শ্বিকতার সঙ্গে? কোমলের গল্পটি দেখলেই কিন্তু এমন বহু প্রশ্নের উত্তর পাবেন আপনি৷ তাই বাচ্চাটাকে পাশে নিয়ে কোমলের গল্পটা দেখুন, শুনুন আর নিজের একটা কান সব সময় সজাগ রাখুন আপনার সন্তানের জন্য৷

ডিজি/এসবি

কোমলের গল্প, তার অভিজ্ঞতা আপনাকে কী জানান দিচ্ছে? জানিয়ে দিন নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন