1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যৌন হয়রানির জেরে সোমা চৌধুরীর পদত্যাগ

ভারতের রাজধানী দিল্লি থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক তেহেলকা’র প্রধান সম্পাদক তরুণ তেজপালের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির জেরে পদত্যাগ করলেন তেহেলকা’র ব্যবস্থাপনা সম্পাদক সোমা চৌধুরী৷

default

সোমা চৌধুরী

তেহেলকা'র প্রধান সম্পাদক তরুণ তেজপালের বিরুদ্ধে তরুণী এক সাংবাদিকের যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় ভারত৷ তেজপালের বিরুদ্ধে আনা যৌন হয়রানির ঘটনাকে আড়াল করে যিনি অনেক সমালোচনা কুড়িয়েছেন, এবার সেই সোমা চৌধুরী তাঁর ব্যবস্থাপনা সম্পাদকের পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন৷

বৃহস্পতিবার সকালে তিনি পদত্যাগপত্র জমা দেন৷ তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল যে, তিনি মিথ্যা কথা বলে যৌন হয়রানির শিকার তরুণীর চরিত্র হননের চেষ্টা করছেন৷ তবে নিজের বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগই অস্বীকার করেছেন সোমা চৌধুরী৷ পদত্যাগপত্রে তিনি লিখেছেন, তেহেলকা'র এই কঠিন সময়ে পত্রিকাটির সাথে থাকতে পারলে খুশি হতেন, তবে তেহেলকা'র সাথে থাকলে পত্রিকাটির কোনো ক্ষতি হবে কিনা সেটা জানেন না তিনি৷ সোমা চৌধুরী আরো বলেছেন, হয়রানির শিকার নারী সাংবাদিকের পক্ষ নিয়ে তিনি এতদিন কাজ করেছেন৷ এমনকি যৌন হয়রানিবিরোধী কমিটিতে অভিযোগ পাঠিয়েছিলেন, কিন্তু কোনো সাড়া পাননি৷

শুক্রবার তরুণ তেজপালের বিরুদ্ধে তাঁরই সহকর্মী এক মহিলা সাংবাদিক গোয়া পুলিশের কাছে যৌন হয়রানির অভিযোগ দায়ের করলে তেজপালের বিরুদ্ধে সমন জারি করে গোয়া পুলিশ৷ স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার বিকেলে তরুণকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে৷ গ্রেপ্তার এড়াতে দিল্লি হাইকোর্টে আগাম জামিনের জন্য আবেদন করেছেন তেজপাল৷ আদালত ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত রায় মুলতুবি রেখেছেন৷ এর প্রেক্ষিতে গোয়া পুলিশ তাঁকে গ্রেপ্তারও করতে পারে৷

তেজপালের বিরুদ্ধে ঐ নারী সাংবাদিকের অভিযোগ, গোয়াতে এক অনুষ্ঠান কভার করতে তিনি তেজপালের সঙ্গে গোয়া যান৷ সেই সময় তাঁকে লিফটের ভেতরে নিয়ে গিয়ে তাঁর শ্লীলতাহানি করে তেজপাল৷ ঐ অভিযোগের ভিত্তিতে গোয়া পুলিশ ‘লুক আউট' নোটিশ জারি করেছে৷ অর্থাৎ বিনা অনুমতিতে তেজপাল দেশ ছাড়তে পারবেন না৷ সেজন্য দেশের বিমানবন্দর, সমুদ্র বন্দর এবং স্থলসীমা চেকপোষ্টগুলিকে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে৷

হয়রানির শিকার ঐ সাংবাদিকসহ এ পর্যন্ত সাত জন সাংবাদিক তেহেলকা থেকে পদত্যাগ করেছেন৷

এপিবি/জেডএইচ (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন