1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যৌন হয়রানির অভিযোগে উইকিলিক্স প্রধান আটক

অবশেষে গ্রেপ্তার হলেন উইকিলিক্স প্রধান জুলিয়ান আসাঞ্জ৷ ইন্টারনেটে মার্কিন কূটনীতির গোপন নথি ফাঁস করে আলোচিত আসাঞ্জ, গ্রেপ্তার হয়েছেন লন্ডন থেকে৷ মঙ্গলবার সকালে তিনি নিজেই একটি পুলিশ স্টেশনে হাজির হন৷

default

জুলিয়ান আসাঞ্জ

আসাঞ্জ বন্দি

উইকিলিক্সের প্রতিষ্ঠাতা জুলিয়ান আসাঞ্জ এখন লন্ডনে বন্দি৷ তবে ইন্টারনেটে গোপন নথি ফাঁস নয়, ভিন্ন অভিযোগে লন্ডন পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে তাঁকে৷ সুইডেনে গত আগস্ট মাসে দুই তরুণী আসাঞ্জের বিরুদ্ধে ধর্ষণ, যৌন হয়রানি এবং অবৈধ কাজের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ আনে৷ এরপর আসাঞ্জকে আটকের জন্য আন্তর্জাতিক উদ্যোগ গ্রহণ করে ইন্টারপোল৷ মঙ্গলবার আসাঞ্জ স্বেচ্ছায় পুলিশের কাছে ধরা দিয়েছেন৷ এরপর সুইডেনের পক্ষে তাঁকে আটক করে ব্রিটিশ পুলিশ৷ এখানে বলে রাখা ভালো, গ্রেপ্তারের আগেই তিনি দাবি করেছিলেন, সুইডেনে দায়ের করা অভিযোগগুলো মিথ্যা৷

Julian Assange Wikileaks Verhaftung Flash-Galerie

অস্ট্রেলীয় নাগরিক আসাঞ্জ সাত ডিসেম্বর আটক করে ব্রিটিশ পুলিশ (ফাইল ফটো)

জামিন আবেদন নাকচ

ব্রিটেনের আদালত উইকিলিক্স প্রধানের জামিন আবেদন নাকচ করে দিয়েছেন৷ ফলে ১৪ই ডিসেম্বর মামলার শুনানির আগ পর্যন্ত বন্দি থাকতে হচ্ছে তাঁকে৷ আসাঞ্জের আইনজীবী মার্ক স্টেফেন অবশ্য আশা প্রকাশ করে বলেছেন, সময়মত ঠিকই মুক্ত হবেন আসাঞ্জ৷ তিনি বলেন, অনেকেই মনে করেন তাঁর বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগগুলো রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত৷

লন্ডনেই ছিলেন আসাঞ্জ

গত কয়েকমাসে অধিকাংশ সময়ই আসাঞ্জ কাটিয়েছেন লন্ডনের একটি সাংবাদিক ক্লাবে৷ ক্লাবটির প্রতিষ্ঠাতা ভগান স্মিথ স্বীকার করেছেন এই কথা৷ তিনি বলেন, এটা এমন একটা জায়গা ছিল যেখানে আসাঞ্জ সাংবাদিকদের সঙ্গে যোগাযোগের সুযোগ পেতেন৷ তবে, ঠিক কবে থেকে উইকিলিক্স প্রধান লন্ডনে অবস্থান করছেন তা বিস্তারিত জানাননি স্মিথ৷

আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রবার্ট গেটস আসাঞ্জের গ্রেপ্তারকে স্বাগত জানিয়েছেন৷ আফগানিস্তান সফররত গেটস বলেন, এটি আমার কাছে সুখবরই মনে হচ্ছে৷ তবে, অস্ট্রেলীয় নাগরিক হওয়ায় জুলিয়ান আসাঞ্জকে সহায়তা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন সেদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী কেভিন রাড৷ ইতিমধ্যে লন্ডনে নিযুক্ত অস্ট্রেলীয় রাষ্ট্রদূত আসাঞ্জের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলেছেন৷ আদালতেও উপস্থিত ছিলেন অস্ট্রেলীয় কূটনীতিকরা৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: হোসাইন আব্দুল হাই

নির্বাচিত প্রতিবেদন