যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার বিশ কোটি মেয়ে | বিশ্ব | DW | 05.02.2016
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার বিশ কোটি মেয়ে

বিশ্বের বিশ কোটির বেশি নারী যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার, জানিয়েছে জাতিসংঘ৷ শুক্রবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানায় বিশ্ব সংস্থাটি৷ যৌনাঙ্গচ্ছেদের এই হিসাব আগের সকল পরিসংখ্যানের চেয়ে অনেক বেশি৷

নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদের বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারণা সত্ত্বেও কিছু দেশে নারী স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর এই ধারা অব্যাহত রয়েছে৷ সে'সব দেশের কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতির অবমূল্যায়ন করছে, মনে করেন বিশেষজ্ঞরা৷

নারীর যৌনাঙ্গচ্ছেদ রোধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে বিশেষ আন্তর্জাতিক দিবসের প্রাক্কালে জাতিসংঘের শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ এই প্রতিবেদন প্রকাশ করলো৷ সংস্থাটির মতে, চলতি ধারা অব্যাহত থাকলে আগামী পনের বছরে যৌনাঙ্গচ্ছেদের শিকার মেয়ে ও নারীর সংখ্যা অনেক বেড়ে যাবে৷

Infografik Life Links Female genital mutilation types

যৌনাঙ্গচ্ছেদের বিভিন্ন ধরন

ইউনিসেফ-এর প্রতিবেদনে মোট ৩০টি দেশ থেকে প্রাপ্ত তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে৷ তবে এই বর্বরতার শিকার অর্ধেক নারীর অবস্থান মিশর, ইথিওপিয়া এবং ইন্দোনেশিয়ায়৷ গতবছরের তুলনায় এই হিসেব প্রায় সাত কোটি বেশি৷ গত বছরের হিসেবে ইন্দোনেশিয়ার কোনো তথ্য ছিল না৷

ইউনিসেফ-এর উপ-নির্বাহী পরিচালক গীতা রাও গুপ্তা জানান, যৌনাঙ্গচ্ছেদের পদ্ধতি দেশভেদে ভিন্ন ভিন্ন রকম হয়৷ কিছু পদ্ধতি ভুক্তভোগীর জীবনের জন্য হুমকির কারণ হতে পারে এমন শারীরিক সমস্যা তৈরি করে৷

তিনি বলেন, ‘‘যৌনাঙ্গচ্ছেদ প্রত্যেক ক্ষেত্রেই মেয়ে ও নারীর অধিকারের লঙ্ঘন৷ এই চর্চা বন্ধে তাই সরকার, স্বাস্থ্য সেবাদাতা, কমিউনিটি নেতা, পিতামাতা এবং পরিবারসহ সবার কাজ করতে হবে৷''

যৌনাঙ্গচ্ছেদের প্রাচীন এই চর্চা মূলত আফ্রিকা, এশিয়া এবং মধ্যপ্রাচ্যের কিছু দেশে এখনও প্রচলিত রয়েছে৷ মেয়ে বা নারীর যৌনাঙ্গের বাইরের অংশ আংশিক বা পুরোপুরি কেটে এই চর্চা পালন করা হয়৷ এই চর্চার সবচেয়ে ভয়াবহ সংস্করণে মেয়েদের যোনির মুখ সেলাই করে বন্ধ করে দেয়া হয় যাতে সে বিয়ের আগে কোনো যৌনসম্পর্কে জড়াতে না পারে৷ বিয়ের পর স্বামী সেই সেলাই খোলে যা অনেক সমাজে বিয়ের পূর্বশর্ত৷

সাধারণত মেয়ের বয়স পাঁচ বছর পার হওয়ার আগেই যৌনাঙ্গচ্ছেদ করা হয়৷ অনেকে ধর্মের দোহাই দিয়ে এটা করলেও কোরান এবং বাইবেলে এ রকম কিছু লেখা নেই বলে জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা৷ বরং যৌনাঙ্গচ্ছেদের কারণে রক্তক্ষরণ বা সংক্রমণে মেয়েদের মৃত্যুও ঘটে৷

এআই/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

যৌনাঙ্গচ্ছেদ বন্ধের উপায় কী? লিখুন নীচের মন্তব্যের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন