1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যুদ্ধাপরাধ আইন সংশোধনের তাগিদ বারাক ওবামার দূতের

১৯৭৩ সালের আইনে যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ঢাকা সফররত মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিশেষ দূত স্টিফেন জে ব়্যাপ৷ তিনি এজন্য আন্তর্জাতিক আইন অনুসরণের তাগিদ দিয়েছেন৷ তাগিদ দিয়েছেন যুদ্ধাপরাধ আইন সংশোধনের৷

default

স্টিফেন জে ব়্যাপ মার্কিন প্রেসিডেন্টের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক বিশেষ দূত৷ তিনি বাংলাদেশে যুদ্ধাপরাধের বিচার পর্যবেক্ষণে ঢাকায় আসেন চলতি সপ্তাহে৷ পর্যবেক্ষণের অংশ হিসেবে তিনি মতবিনিময় করেছেন বিএনপি, জামাতসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাসহ শ্রেণী পেশার মানুষের সঙ্গে৷ বৃহস্পতিবার তিনি ঢাকায় এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, যুদ্ধাপরাধের বিচার নিয়ে তাঁর সরকারের কোন আপত্তি নেই৷

তিনি জানান, বাংলাদেশের মানুষও যুদ্ধাপরাধের বিচার দেখতে চায়৷ বিশেষ করে তরুণ প্রজন্ম – যাদের সঙ্গে তিনি কথা বলেছেন, তারা একাত্তরের গণহত্যা, ধরণের মত মানবতা বিরোধী অপরাধের বিচারের ব্যাপারে উগ্রকণ্ঠ৷ যুক্তরাষ্ট্রও এসব অপরাধের বিচার চায়৷ ৪০ বছর কোন বিষয় নয়৷ কারণ তারা ক্ষমাহীন অপরাধ করেছে৷

স্টিফেন জে ব়্যাপ বলেন, তবে এই বিচারে আন্তর্জাতিক ক্রিমিন্যাল কোর্টের নীতি অবশ্যই অনুসরণ করতে হবে৷ তিনি যাদের সঙ্গে কথা বলেছেন, তাদের একাংশ প্রশ্ন তুলেছে '৭১ সালের যুদ্ধাপরাধের বিচার কীভাবে '৭৩ সালে প্রণীত আইনে হতে পারে৷ আর যার ম্যান্ডেট নেয়া হয়েছে ২০০৯ সালে৷ তিনি বলেন, এজন্য প্রয়োজনীয় আন্তর্জাতিক আইন রয়েছে, যা যুদ্ধাপরাধের বিচারের জন্য যথেষ্ট৷ মানবাধিকারের বিষয়টি মাথায় রেখে বাংলাদেশ এই আইনের সংশোধন করতে পারে৷ বারাক ওবামার বিশেষ দূত বলেন, বিনা বিচারে দীর্ঘদিন যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে আটক রাখা যায়না৷ যারা আটক আছেন, তাদের সবধরনের আইনগত সুবিধা দিতে হবে৷

প্রতিবেদন: হারুন উর রশীদ স্বপন, ঢাকা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন