1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যুদ্ধাপরাধীদের ‘সঠিক বিচার' দাবি

একাত্তরে মানবতাবিরোধীদের অপরাধের সঠিক বিচার চান ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতার অনুসারীরা৷ জামায়াত নেতা আব্দুস সুবহানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলা নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা লিখেছেন তাঁরা৷

default

ফাইল ফটো

জামায়াত নেতা আব্দুস সুবহানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধ মামলার রায় হবে যে কোনো দিন৷ ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতার অনুসারীদের কাছে তাই জানতে চাওয়া হয়, ‘‘একাত্তরে মুক্তিযুদ্ধের সময় হত্যা, গণহত্যা ও লুটপাটের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের বিষয়টি আপনি কিভাবে দেখছেন?''

কয়েকজন পাঠক এই প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন৷ একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারের প্রশ্নে তাদের মধ্যে কোনো দ্বিধাবিভক্তি নেই৷ সুকুমার আবির লিখেছেন, ‘‘অন্যায় যেই করুক, তাকে সাজা পেতে হবে৷''

মো. জিয়াউল ইসলাম লিখেছেন, ‘‘যদি এরা সত্যিই অপরাধ করে থাকে, তাহলে মৃত্যুদণ্ড দিলেও এদের শাস্তি কম হবে৷'' আর শিরীন সুলতানার কথা হচ্ছে, ‘‘এরা ১৯৭১ সালের ঘাতক এবং ধর্ষক৷ এদের ফাঁসি চাই৷''

তবে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন কোনো কোনো পাঠক৷ এই বিচার যাতে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থে ব্যবহার করা না হয়, সেই দাবি তাদের৷ দীর্ঘদিন ধরে ডয়চে ভেলের অনুসারী এম এ বারিক লিখেছেন, ‘‘কোনটা ন্যায় আর কোনটা অন্যায় বুঝতে পারছি না৷ তবে মনকে জিজ্ঞেস করি শুধু কি জামায়াত শিবিরের ভিতরেই যুদ্ধাপরাধী আছে? বা এরাই কি আসল যুদ্ধাপরাধী?''

এখানে উল্লেখ করা প্রয়োজন, যুদ্ধাপরাধের দায়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন নেতারও শাস্তি হয়েছে সম্প্রতি৷ এছাড়া বিএনপি-র একাধিক নেতা রয়েছেন অপরাধীর তালিকায়৷

ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতার দীর্ঘদিনের অনুসারী শেখ আব্দুল হান্নান লিখেছেন, ‘‘সঠিক বিচার চাই৷ এ বিচার যেন প্রশ্নবিদ্ধ না হয় রাজনীতি ফায়দা না হয়৷'' আর আমিনুল ইসলাম মনে করেন, ‘‘আমরা বাঙালি৷ বাংলা ভাষা থেকে যারা আমাদের সরিয়ে নিতে চেয়েছে তাদের শাস্তি আমরা চাই৷''

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ