1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

যুক্তরাষ্ট্র চেয়েছিল, তাই ৯/১১ এসেছিল!

নাইন ইলেভেনের কথা শুনলেই প্রথমে টুইন টাওয়ারে হামলার কথা মনে আসে সবার৷ সেই হামলা ছিল অ্যামেরিকার উপর৷ কিন্তু আজ ভিন্ন এক নাইন ইলেভেনের গল্প শোনাবো, যেটার সঙ্গেও জড়িত অ্যামেরিকার নাম৷ তবে সেটা খারাপ অর্থে৷

default

ল্যাতিন অ্যামেরিকার প্রথম সমাজবাদী প্রেসিডেন্ট সালভাদর আলেন্দে

বামপন্থী রাজনীতির সঙ্গে যারা জড়িত তাঁদের কাছে এক অনন্য নাম সালভাদর আলেন্দে৷ তিনি ল্যাতিন অ্যামেরিকার প্রথম সমাজবাদী প্রেসিডেন্ট, যিনি গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত হয়েছিলেন৷ কিন্তু ১৯৭৩ সালের আজকের এই দিনে তাঁকে প্রেসিডেন্ট থাকা অবস্থায় আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে হয়েছিল৷ কারণ তিনি সেনা অভ্যুত্থানের শিকার হয়েছিলেন এবং তাঁর প্রেসিডেন্ট ভবন লক্ষ্য করে হয়েছে বোমাবর্ষন৷ কিন্তু তিনি পদত্যাগ করতে চাননি৷ তাই আত্মহত্যা করেন৷ তার ঠিক কয়েক মুহূর্ত আগে এক বেতার ভাষণে তিনি বলেন, ‘‘আমি নিশ্চিত আমার এই আত্মত্যাগ বিফলে যাবেনা''৷

আলেন্দের বিরুদ্ধে এই অভ্যুত্থানে অ্যামেরিকা জড়িত ছিল বলে অভিযোগ করা হয়৷ যদিও সিআইএ তা অস্বীকার করে৷ কিন্তু আলেন্দে যে যুক্তরাষ্ট্রের পছন্দের কেউ ছিলেন না সেটার প্রমাণ পাওয়া যায় মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাগজপত্রেই৷

Bildergalerie Fidel Castro zum 80ten 05#15

ফিদেল কাস্ত্রোর সঙ্গে আলেন্দে

১৯৭০ সালের সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় আসেন আলেন্দে৷ কিন্তু নির্বাচনে যেন আলেন্দে জিততে না পারেন সে ব্যবস্থা করতে সিআইএকে নির্দেশ দিয়েছিলেন সেসময়কার মার্কিন প্রেসিডেন্ট নিক্সন৷ এবং এজন্য ১০ মিলিয়ন ডলার অর্থও ছাড় করা হয়েছিল৷ ২০০০ সালে প্রকাশিত মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন থেকেই জানা গেছে এসব তথ্য৷

সিআইএ'র পরিকল্পনা ছিল দুটি৷ প্রথম পরিকল্পনা ছিল ষড়যন্ত্র করে আলেন্দেকে ক্ষমতায় আসতে না দেয়া৷ আর দ্বিতীয়টি ছিল চিলির সামরিক কর্মকর্তাদের বুঝিয়ে আলেন্দের বিরুদ্ধে অভ্যুত্থান করা৷

কিন্তু কেন অ্যামেরিকা আলেন্দের পেছেন লেগেছিল? এর উত্তর দুটি৷ প্রথমত, তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের মত আরেকটি কমিউনিস্ট দেশের আবির্ভাব ঠেকানো৷ কারণ তখন সোভিয়েত ইউনিয়নের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের শীতল যুদ্ধ চলছিল৷

দ্বিতীয়ত, চিলিতে যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলোর স্বার্থ রক্ষা করা৷ কারণ সমাজবাদে বিশ্বাসী আলেন্দে প্রেসিডেন্ট হওয়ার পর তামা শিল্পকে সরকারিকরণ করেছিলেন৷ উল্লেখ্য, এই তামা শিল্প হলো চিলির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ খাত৷ আর এতে বিনিয়োগ ছিল মার্কিন দুটি কোম্পানির - যাদের হাতে ছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় তামা খনির নিয়ন্ত্রণ৷ ফলে স্বাভাবিকভাবেই আলেন্দের সিদ্ধান্তে বড় ধরণের ক্ষতি হয়েছিল মার্কিন কোম্পানিগুলোর৷ সিআইএ'র প্রকাশিত এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, নির্বাচনে যেন আলেন্দে জিততে না পারে সেজন্য আরেকটি মার্কিন কোম্পানি সিআইএ'র মাধ্যমে আলেন্দের বিরোধী পক্ষকে সাত লক্ষ ডলার দিয়েছিল৷ এছাড়া আলেন্দের পরাজয় নিশ্চিত করতে ঐ কোম্পানিটি সিআইএ'কে আরও ১০ লক্ষ ডলার দিতে চেয়েছিল৷

প্রতিবেদন: জাহিদুল হক

সম্পাদনা: সাগর সরওয়ার

ইন্টারনেট লিংক