1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

যুক্তরাষ্ট্রে দ্বিতীয় ভারতীয় আ্যামেরিকান গভর্নর

ভারতীয় বংশোদ্ভূত নিকি হ্যালি সাউথ ক্যারোলাইনা রাজ্যের গভর্নর নির্বাচিত হয়েছেন৷ রাজ্য বিধানসভার সদস্য ভিনসেন্ট শিহিনকে পরাজিত করে শিখ অভিবাসী বাবা-মায়ের সন্তান হ্যালি মঙ্গলবার সাউথ ক্যারোলাইনার গভর্নর নির্বাচিত হন৷

সাউথ, ক্যারোলাইনা, রাজ্য, গভর্নর, মার্কিন, যুক্ররাষ্ট্র, South, Carolina, Nikki, Haley, নিকি, হ্যালি

স্বামী এবং সন্তানদের নিয়ে মঞ্চে নিকি হ্যালি

নিকিই প্রথম এশীয় মহিলা যিনি মার্কিন যুক্ররাষ্ট্রের কোন রাজ্যের গভর্নর নির্বাচিত হলেন৷ শতকরা ৫১ ভাগ ভোট পেয়েছেন নিকি, আর শতকরা ৪৭ ভাগ ভোট পেয়েছেন ভিনসেন্ট৷ স্বল্প ভোটের ব্যবধানে হলেও ভিনসেন্ট পরাজিত হয়েছেন নিকির কাছে৷ এর আগে প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন গভর্নর নির্বাচিত হয়েছেন ববি জিন্দাল৷ তিনি লুইজিয়ানার গভর্নর নির্বাচিত হন৷

নিকি হ্যালি মঙ্গলবার রাতে তাঁর বিজয় উপলক্ষে দেয়া বক্তব্যে বলেন, বুধবার সকালেই অসংখ্য সংবাদ প্রকাশিত হতে যাচ্ছে এবং পর্যবেক্ষকরা বলতে যাচ্ছেন যে আমরা ইতিহাস তৈরি করেছি৷ আপনারা আমার দিকে তাকিয়ে বলতে পারেন, ‘‘ইয়েস উই ডিড৷'' তিনি বলেন, ‘‘কিন্তু আমি যা চাই তা হচ্ছে, আমরা এখন ইতিহাসের একটা পাতা উল্টাতে যাচ্ছি৷ আমরা যেখানে রয়েছি, সেই পাতাটা উল্টাচ্ছি, কিন্তু আমরা কোথায় যাচ্ছি, ইতিহাস হতে যাচ্ছে সেটাই৷''

নিকি তাঁর বক্তব্যে তাঁর অভিবাসী পরিবারের কথাও কিছুটা উল্লেখ করেন৷ এক পর্যায়ে তিনি বলেন, ‘‘আমি কত ভাগ্যবান যে আমি যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করছি, এই কথাটা আমার বাবা-মা আমাকে প্রায়ই স্মরণ করিয়ে দিতেন৷'' তিনি বলেন, ‘‘আমি মনে প্রাণে আ্যামেরিকান৷ আপনারা ভোট দিয়েছেন বলে আমি কৃতজ্ঞ, আমি আপনাদের জন্যেই কাজ করতে যাচ্ছি৷''

২০০৪ সাল থেকে নিকি সাউথ ক্যারোলাইনার বিধায়ক হিসেবে কাজ করে আসছিলেন৷ আর সেই সময়ে ঐ পদেও, তিনিই ছিলেন প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত আ্যমেরিকান মহিলা৷ ৩৮ বছর বয়স্ক নিকি হ্যালি সাউথ ক্যারোলাইনার ব্যামবার্গে জন্মগ্রহণ করেন৷ জন্মের সময় তাঁর নাম দেয়া হয় নিম্রতা রান্ধাওয়া৷ তাঁর বাবা-মা এসেছেন ভারতের অম্রিতসর থেকে৷ তাঁদের তিন সন্তানের মধ্যে নিকি একজন৷ নিকি ছিলেন অ্যাকাউন্ট্যান্ট৷ ব্যবসাও করেছেন৷ বিয়ে করার আগে নিকি প্রটেস্ট্যান্ট খ্রিষ্টধর্মে দীক্ষা নেন, তবে বাবা-মায়ের প্রতি সম্মান দেখাতে তিনি দুই ধর্মের প্রার্থনাসভাতেই যোগ দেন৷

প্রতিবেদন: ফাহমিদা সুলতানা

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

নির্বাচিত প্রতিবেদন