1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি

দুটি বন্ধু রাষ্ট্রের মধ্যে গোয়েন্দাগিরি চলতে পারেনা – জার্মানি তা মনে করলেও যুক্তরাষ্ট্র ইতিবাচক সাড়া না দেয়ায় অসন্তুষ্ট জার্মানি৷ গুপ্তচরবৃত্তি বন্ধ না করলে যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথাও ভাববে জার্মানি৷

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সংসদ বিষয়ক মুখপাত্র স্টেফান মায়ার বলেছেন, গত কয়েক মাস ধরে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের আড়ি পাতা বন্ধ করার জন্য যে আলোচনা চলছে, তা ফলপ্রসূ না হলে জার্মানিতে কর্মরত মার্কিন প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে চুক্তি নবায়ন বন্ধ করা হতে পারে৷ মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে তিনি বলেন, ‘‘মার্কিনিরা একটা ভাষা খুব ভালো বোঝে আর সেটা হলো ব্যবসার ভাষা৷''

জার্মানির পক্ষ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের আড়ি পাতা বন্ধ করার প্রসঙ্গে এমন বক্তব্য আগে কখনো শোনা যায়নি৷ গত বছর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের ফোনেও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা (এনএসএ)-র গোয়েন্দাদের আড়ি পাতার বিষয়টি প্রকাশিত হলে বিব্রতকর অবস্থায় পড়ে জার্মানি৷ যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামাকে ফোন করে তখনই ক্ষোভ প্রকাশ করেন ম্যার্কেল৷ গত আগস্ট মাস থেকে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে আলোচনা করেও যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দাদের এমন তৎপরতা রোধ করার চেষ্টা করে আসছে জার্মানি৷ কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে প্রত্যাশিত অঙ্গীকার বা আশ্বাস পাওয়া যায়নি৷

Hinweise auf US-Überwachung von Merkels Handy

প্রেসিডেন্ট ওবামাকে ফোন করে তখনই ক্ষোভ প্রকাশ করেন ম্যার্কেল

গত সপ্তাহে বারাক ওবামা টেলিফোনে ম্যার্কেলকে যুক্তরাষ্ট্র সফরে যাওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন৷ মার্কিন প্রেসিডেন্টকে আমন্ত্রণ গ্রহণের আশ্বাস দিয়েছেন জার্মান চ্যান্সেলর৷ যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কোন্নয়নের এমন উদ্যোগ দেখা গেলেও গোয়েন্দা তৎপরতা বন্ধের প্রশ্নে দেশটির নিস্পৃহতা জার্মানিতে ক্ষোভ বাড়াচ্ছে৷

অবশ্য জার্মানির রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করেন, দেনদরবারের ক্ষেত্রে জার্মান সরকারের দুর্বলতার কারণেই যুক্তরাষ্ট্র এখনো অনড়৷ মঙ্গলবার মিউনিখভিত্তিক সংবাদপত্র ‘স্যুড ডয়চে সাইটুং' এক সরকারি সূত্রকে উদ্ধৃত করে লিখেছে, ‘আলোচনা থেকে আমরা (জার্মানি) কিছুই পাচ্ছি না৷' আনুষ্ঠানিক আলোচনায় কাজ হচ্ছে না বলেই মঙ্গলবার মার্কিন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার হুমকিও শোনা গেছে জার্মানিতে৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স, ডিপিএ, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়