1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

ম্যার্কেলের জয়ে ভারত-জার্মানি বন্ধন সুদৃঢ় হবে

ম্যার্কেলের জয় সুনিশ্চিত হওয়াতে ভারতবাসী মাত্রই পুলকিত৷ তাঁর মহৎ কাজের নমুনা যদি কিছু ছবিঘরে দেন বেশ ভাল হয়৷ আশা রাখি তিনি আরও মানসিকতার সুদৃঢ় পরিচয়ে পৃথিবীর কল্যাণ হবে৷

ফাঁসির বিপক্ষে যুক্তি, ত্রিশ লক্ষ শহিদের প্রতিশোধ, এই প্রতিবেদনটি পড়ে আমার প্রশ্ন এক সৃষ্টিছাড়া অপরাধীর প্রাণবায়ু একজন মহামান্য বিচারপতি কী ভাবে কেড়ে নিতে পারে? কারণ জন্ম রহস্য একমাত্র ঈশ্বর ছাড়া কোন মানবের উপলব্ধি করা সম্ভব নয়৷ মহামান্য বিচারপতি একজন মানব এবং ঈশ্বরের বিধান অনুযায়ী তিনি বিচারপতি হিসাবে নিয়োজিত৷ বিচারপতি বিধান দেবার ক্ষমতা আছে, কিন্তু একজন অপরাধীর প্রাণবায়ু কেড়ে নেওয়া একমাত্র ঈশ্বর ছাড়া তাঁর ক্ষমতা কোথায় ? তারপর তিনি বিধান দিয়ে খালাস৷ অপরাধীর ফাঁসি দেবে এক ফাঁসুড়ে তাও আবার ১ মাস ধরে রীতিমত অনুশীলন করে ফাঁসি কার্যকারী করা হবে৷ এখনকার সভ্য দুনিয়া এটা কী ভাবে মেনে নেবে ? ফাঁসুড়ের সাহায্য না নিয়ে যিনি বিধান দেবেন, তাঁকেই ফাঁসির রসি টানতে হবে৷ আমার মনে হয় কোনো বিচারক এটা মানতে পারবে না এবং ফলস্বরূপ ফাঁসি প্রথা বিলুপ্ত হবে৷ অপরাধ বিরল থেকে বিরলতম হতে পারে, আইন কি বিরল থেকে বিরলতম হতে পারে? আপনাদের কুশল কামনায় সুহৃৎ বন্দ্যোপাধ্যায়, জৌগ্রাম, বর্ধমান থেকে লিখেছেন৷

‘কমছে এইচআইভি সংক্রমণের হার'​ – আপনাদের এই বিশেষ রিপোর্টটি পড়ে বেশ কিছু তথ্য জানতে পারলাম৷ আশা জাগানিয়া এই প্রতিবেদনের জাতিসংঘের নানা সময়ের পরিসংখ্যান তুলে ধরা হয়েছে৷ তবে একটা বিষয় খারাপ লাগছে যে, বিশ্বে বর্তমানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩ কোটি ৫৩ লাখ এবং যা ২০১৫ সালের মধ্যে এ সংখ্যা ১ কোটি ৫০ লাখে দাঁড়াবে৷ এদের মধ্যে ৭০ ভাগ মানুষই আফ্রিকার সাহারা অধ্যুষিত এলাকার অধিবাসী৷ ইউরোপের পূর্বাঞ্চল, এশিয়ার মধ্যাঞ্চল, মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকাতে সংক্রমণের হার সবচেয়ে বেশি৷

তবে ২০১৫ সালের মধ্যে ২২ বিলিয়ন ইউরো অর্থসাহায্যের লক্ষ্য ঠিক থাকলে আবার হয়তো জাতিসংঘ এই এইচ আই ভি ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে চেষ্টা করবে৷ এ ব্যাপারে আমাদের সবার এগিয়ে আসা উচিত৷ ধন্যবাদ ডয়চে ভেলেকে দারুণ এই রিপোর্টটি প্রকাশ করার জন্য৷ ভাল থাকবেন সবাই৷ বাদাম নিয়ে ছবিঘরটি বেশ ভাল লাগলো তবে ৭ নং ছবিটা দেখতে পেলাম না কেন জানিনা৷

আমার স্ত্রী রওশন আরা লাবনী অসুস্থ৷ গতকাল সন্ধ্যায় ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের

‘ফ্যামেলি সার্জিক্যাল ওয়ার্ডে' ভর্তি করিয়ে রেখে এলাম৷ বাসায় এখন আমি আর আমার ৫ বছরের ছেলে মুগ্ধ৷ মনটা বেশি ভাল নয়৷ আমার স্ত্রীর জন্য দোয়া করবেন৷ সোহেল রানা হৃদয়, ঢাকা থেকে লিখেছেন৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন