1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

মোবাইল ফোন যখন আয়ের উৎস

মোবাইল ফোন দিয়ে আজকাল কে না ছবি তোলে? কিন্তু সেই ছবির জন্য টাকা পেলে কেমন লাগবে? আজকাল ‘জব-অ্যাপ'-এর মাধ্যমে ছবি তুলে দু'পয়সা কামিয়ে নেওয়া যায় বৈকি৷ বার্লিনে এমন এক ‘অ্যাপ-ইউজার' সেই চেষ্টাই করছেন৷

পেটার গেয়ারহার্ট কাজে নেমেছেন৷ তিনি ‘স্ট্রিটস্পটার’ নামের এক অ্যাপ-এর জন্য ছবি তোলেন৷ দর্শনীয় স্থান, দোকান-বাজার অথবা বিজ্ঞাপন৷ এর মাধ্যমে কোম্পানিগুলি তাদের বিপণনের প্রভাব দেখতে পারে৷ আর পেটার কিছু বাড়তি আয় করে নিতে পারেন৷ মোবাইল ফোনের পর্দায় তিনি দেখে নিচ্ছেন, আর কোথায় ছবি তুলতে হবে৷ পেটার বলেন, ‘‘এই ব্রোশিয়োর-টার দ্রুত ছবি তুলে ‘স্ট্রিটস্পটার’-এ পাঠাতে হবে৷ তবে অক্ষরগুলো স্পষ্ট হতে হবে৷ আমি পাবো ২ ইউরো ও অভিজ্ঞতার জন্য ২০ পয়েন্ট৷’’

আধ ঘণ্টার কাজের জন্য ২ ইউরো৷ ৪৬ বছর বয়স্ক এই কেয়াটারটেকারের কাছে এই অ্যাপ কম্পিউটার গেম-এর মতো৷ তবে সেই আয় সংসার চালানোর জন্য যথেষ্ট নয়৷ পেটার বলেন, ‘‘সে গুড়ে বালি৷ বাড়ি ফেরার পথে বড়জোর কয়েক ইউরো রোজগার হয়৷ আসলে এটা একটা হবি, সঙ্গে কিছু আয়ও হয়৷’’

তাঁর তোলা ছবি নুরেমবার্গ শহরে ‘স্ট্রিটস্পটার’ কোম্পানির সদর দপ্তরে পৌঁছয়৷ কর্মীরা সেগুলি পরীক্ষা করে বাড়ি কেনাবেচার কোম্পানি বা পর্যটন সংক্রান্ত প্রকাশকের মতো ক্লায়েন্ট-দের কাছে পাঠান৷ শ্রমিক সংগঠনের কর্মকর্তা ইয়ান ইয়ুরচিক বলেন, ‘‘এর মাধ্যমে সত্যি কোনো কর্মীর কাজ উদ্বৃত্ত করে তোলা যায়৷ ফিল্ডে যে কাজ করে, তাকে নিয়ন্ত্রণ করলেই চলে অথবা তার কাজও পুরোপুরি কেড়ে নেওয়া যায়৷ শেষ পর্যন্ত যে কাজটা করে, তার কপালে সামান্য অঙ্কের পারিশ্রমিক জোটে৷ তা দিয়ে বাঁচা-মরা – কোনোটাই সম্ভব নয়৷ এভাবে কর্মীর সংখ্যা কমিয়ে দেওয়া যেতে পারে৷ সামান্য অ্যাপ এমন কাণ্ড করতে পারে৷’’

‘স্ট্রিটস্পটার’ পরিষেবায় শুধু গত বছরই প্রায় ১ লক্ষ নতুন ব্যবহারকারী নিজেদের নথিভুক্ত হয়েছিলেন – অর্থাৎ প্রায় ৫০ শতাংশ ‘গ্রোথ’ হয়েছে৷ জার্মানিতে এখনো এত ব্যবহারকারীর জন্য যথেষ্ট কাজ পাওয়া যায় না৷ পেটার গেয়ারহার্ট তাই একাধিক জব-অ্যাপ ঘেঁটে কাজ খোঁজেন৷ পেটার বলেন, ‘‘যে কাজে পয়সা পাওয়া যায়, বড় শহরে তা পেতে গেলে সজাগ থাকতে হবে৷ কারণ প্রতিযোগিতার অভাব নেই৷ বার্লিনে অনেক স্পটারের সঙ্গে আমার আলাপ হয়েছে৷ প্রত্যেকেরই নিজস্ব এলাকা রয়েছে৷ তবে ঠিক সময়ে তাদের না ধরতে পারলে দুপুরের মধ্যেই তারা উধাও হয়ে যায়৷’’
কাজ কম থাকলে ইউজারদের সংখ্যাও কমে যাবে, আগ্রহ কমে যাবে৷ নিজেদের সাফল্যের চাপেই হয়ত এই ক্ষেত্র ক্ষতির মুখ দেখবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়