1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মেয়েদের শিক্ষা ‘বাল্যবিবাহ কমাতে' পারে

বাংলাদেশে মেয়েদের শিক্ষা এবং প্রশিক্ষণ নিশ্চিত করে বাল্যবিবাহ এক-তৃতীয়াংশ পর্যন্ত কমানো সম্ভব, সাম্প্রতিক এক গবেষণা বলছে এ কথা৷ বাল্যবিবাহের সংখ্যার হিসেবে দক্ষিণ এশিয়ার দেশটির অবস্থান বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয়৷

দক্ষিণ এশিয়ায় প্রতি তিনজন মেয়ের মধ্যে দু'জনের বিয়ে হয়ে যায় তাদের বয়স ১৮ পার হবার আগেই৷ স্বাস্থ্য এবং উন্নয়ন ইস্যুভিত্তিক অলাভজনক গবেষণা গোষ্ঠী ‘পপুলেশন কাউন্সিলের' এক গবেষণায় জানা গেছে এই তথ্য৷

বাংলাদেশের নয় হাজারের বেশি মেয়েকে গবেষণায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল৷ এতে দেখা যাচ্ছে, মেয়েরা যখন উপযুক্ত শিক্ষা গ্রহণের সুযোগ পায় তখন বাল্যবিবাহের আশঙ্কা ৩১ শতাংশ কমে যায়৷ কেননা, শিক্ষা গ্রহণের মাধ্যমে সংকটের সময়ে চিন্তা করার এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণের মতো পর্যায়ে পৌঁছাতে পারে তারা৷

আর মেয়েরা যখন চাকুরি উপযোগী প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে তখন বাল্যবিহারের হার কমে যায় ২৩ শতাংশ অবধি, বলছে গবেষণা৷

‘পপুলেশন কাউন্সিলের' ভাইস-প্রেসিডেন্ট আন ব্ল্যাঙ্ক এই বিসয় বলেন, ‘‘কী করলে বাল্যবিবাহে বিলম্ব ঘটানো সম্ভব সে সম্পর্কে খুব কম তথ্যপ্রমাণ আছে বাংলাদেশে৷ এই গবেষণা এক্ষেত্রে ভালো ভূমিকা রাখতে পারে৷''

গবেষণার অংশ হিসেবে নিউ ইয়র্কভিত্তিক গোষ্ঠীটি ৭২টি কমিউনিটির মেয়েদের শিক্ষা দিয়েছে৷

ইউনিসেফ-এর বাল্যবিবাহের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, অপ্রাপ্তবয়স্ক মেয়েদের বিয়ের দেয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্বের মধ্যে দ্বিতীয়৷ তাদের আগে যে দেশটি রয়েছে, সেটির নাম নিগার৷ বাংলাদেশের তিন-চতুর্থাংশ মেয়ের বিয়ে হয় তাদের বয়স ১৮ পার হবার আগেই৷ আর সারাবিশ্বে বাল্যবিবাহের শিকার মেয়ের সংখ্যা ৭০০ মিলিয়ন, জানাচ্ছে ইউনিসেফ৷

এআই/ডিজি (রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন