1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

মেসির ম্যাজিকে আর্সেনাল ধুলিসাৎ

চ্যাম্পিয়নস লীগের কোয়ার্টার ফাইনালের ফিরতি খেলায় বার্সেলোনার কাছে ৪-১ গোলে হারল আর্সেনাল৷ বার্সার হয়ে চারটি গোলই করে লিওনেল মেসি৷

default

আর্সেনালের বিরুদ্ধে গোল দেয়ার মুখে মেসি

বাড় কম বলে যে কিশোরটির চিকিৎসার ভার নিয়েছিল এফ সি বার্সেলোনা, সে যে কালে ওয়ার্ল্ড প্লেয়ার অফ দ্য ইয়ার হয়ে উঠবে, তা কে ভাবতে পেরেছিল৷ মেসির হর্মোন ট্রিটমেন্ট, তার বাবা-মা'কে এনে বার্সেলোনায় রাখা ইত্যাদির খরচ পড়েছিল নাকি এক মিলিয়ন ডলার৷ আজ মেসির বাজার দর কতো সেটা জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের জিজ্ঞাসা করতে হবে৷

‘‘প্লেস্টেশনের প্লেয়ার''

মেসি কিন্তু বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হবার পর তার সর্বাধুনিক ভেলকিটা দেখিয়েছে৷ তা'ও আবার বিশ্বকাপের আগেভাগে৷ দেখা গেল, বার্তাসংস্থাগুলির ঝানু ঝানু রিপোর্টার-ভাষ্যকারদের কারোরই খেলার বর্ণনা দেবার মুড নেই৷ সকলেই মেসির জন্য বিশেষণ খুঁজছেন৷ এবং শুধু পেশাদার সাংবাদিকরাই নন৷ পেশাদার কোচরাও বটে৷ মৃদুভাষী ফরাসি ভদ্রলোক আর্সেন ওয়েঙ্গার, আর্সেনালের কোচ, অত্যুক্তি করার লোক নন৷ তিনি একবার বলেছেন, ‘‘আমরা হেরেছি একটি উন্নততর দল এবং বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়ের কাছে৷'' কখনো বলেছেন, মেসি বল পেলে তাকে আর থামানো যায় না৷ যে কোনো সময় সে দিক পাল্টে ডিফেন্ডারদের ফাঁকি দিতে পারে৷ আবার বলেছেন, বার্সেলোনা ভালো দল হলেও মেসিই হল আসল পার্থক্য৷ মেসি নাকি যে কোনো সময় খেলা জিতিয়ে দিতে পারে৷ প্লেস্টেশনের প্লেয়ারের মতো প্রতিটি সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারে৷

‘‘এক গোলে হলেও জিততে হবে''

বার্সা কোচ পেপ গুয়ার্দিওলা কিন্তু গোটা দলের সাফল্যের উপরেই জোর দিয়েছেন৷ ‘লিও'-র সব প্রশংসাই প্রাপ্য, বলেছেন গুয়ার্দিওলা, এবং সে তরুণ খেলোয়াড়দের পক্ষে আদর্শ৷ কিন্তু এটা ছিল একটা টীম পারফর্মেন্স এবং দলের সকলেই এ্যাটাকিং মেন্টালিটি নিয়ে খেলে৷ - আর মেসি স্বয়ং চিরকালই বিনয়ের অবতার৷ সে বলেছে: ‘‘আমি এই জয়ে খুব খুশী৷ কিন্তু এ'কাজ চালিয়ে যেতে হবে৷ শনিবার রিয়াল মাদ্রিদের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ খেলা৷ সেখানে এক গোলে হলেও জিততে হবে৷'' অর্থাৎ ২০১০ সালে ইতিমধ্যেই তিনবার হ্যাট্ট্রিক করার পর সে যে এবার একটা কোয়াড্রুপল করল; ও' কাজটা যে তার আগে চ্যাম্পিয়নস লীগে আর মাত্র পাঁচজন করেছে; ওটা যে শেষবার ঘটেছে পাঁচ বছর আগে, যখন আন্দ্রেই শেভচেঙ্কো ঐ কীর্তি দেখায় - এ'সব যেন কিছুই নয়৷

ও হ্যাঁ, ইন্টার মিলান'ও মস্কোয় ১-০ গোলে জিতে নাকি আবার নিজেদের উপর আস্থা ফিরে পেয়েছে৷

প্রতিবেদক: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়