1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

‘মেঘের’ কোলে পৌঁছে যাচ্ছে তথ্যভাণ্ডার

বিশ্বের সবচেয়ে বড় তথ্য যুক্তি মেলা সেবিট’এ এবার যে বিষয়গুলি প্রাধান্য পাচ্ছে, তার মধ্যে রয়েছে ‘ক্লাউড কম্পিউটিং’৷

default

আরও নতুন নতুন বিস্ময়ের সন্ধান দিল এবারের সেবিট

এতকাল আমাদের যাবতীয় ভাবনা-চিন্তা ছিল টেবিলের উপর রাখা কম্পিউটার বা ল্যাপটপ'কে ঘিরে৷ কত শক্তিশালী কম্পিউটার, কত বড় ক্ষমতার হার্ড ডিস্ক – তার উপর ভিত্তি করেই সব কাজ চলতো৷ এবার তথ্যভাণ্ডার হার্ড ডিস্ক ছেড়ে পাড়ি দিচ্ছে মেঘের কোলে, অর্থাৎ বহু দূরে কোথাও রাখা সার্ভারের মধ্যে৷ নিজের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ খারাপ হলে, চুরি হলে বা হারিয়ে গেলেও ক্ষতি নেই – তথ্য থাকবে নিরাপদে, ‘ক্লাউড'এর মধ্যে৷ শুধু টেক্সট, ছবি, গান বা ভিডিওর মতো তথ্যই নয়, গোটা সফটওয়্যারও থাকতে পারে এই মেঘের জগতে৷ ফলে বিশ্বের যে কোনো প্রান্তে যে কোনো কম্পিউটারের সামনে বসেই নাগাল পেতে পারি নিজের ঘরের কম্পিউটারের৷

বিষয়টা পুরোপুরি নতুন নয়৷ আমাদের মধ্যে অনেকেই এমন ই-মেল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করি, যা হার্ড ডিস্কে নয়, দূরের কোনো সার্ভারে রাখা থাকে৷ ইউজারনেম ও পাসওয়ার্ড'এর চাবিকাঠি থাকলে তবেই অ্যাকাউন্ট'এর নাগাল পাওয়া যায়৷ সেই একই অভিজ্ঞতা এবার বাকি কাজের ক্ষেত্রেও পাওয়া যাচ্ছে৷ একদিকে ফাইল রাখা, অন্যদিকে প্রয়োজনীয় সফটওয়্যার ব্যবহার করা যাচ্ছে এই ক্লাউড'এর কল্যাণে৷

সাধারণ ব্যবহারকারীর জন্য এই সব কাজকর্ম যথেষ্ট হলেও প্রতিষ্ঠানগুলির চাহিদা আরও বেশি৷ তারা নিজেদের কাজকর্ম সহজ করতে ‘ক্লাউড'কে আরও বেশি করে ব্যবহার করতে চায়৷ যেমন একাধিক কর্মী যাতে একই তথ্যভাণ্ডারের নাগাল পায়, পারস্পরিক সমন্বয়ের মাধ্যমে আরও ভালো কাজ করতে পারে, কাজের সময় স্থির করতে পারে – এমন সব গুণাগুণ থাকতে হবে নিজস্ব মেঘের জগতে৷ সেইসঙ্গে থাকতে হবে এমন শক্তিশালী এক প্রহরী, যে বাইরের কাউকে সেখানে অনধিকার প্রবেশ করতে দেবে না৷ মোটকথা, কম্পিউটারের হার্ড ডিস্কের উপর নির্ভরতা কমিয়ে প্রায় সব কাজকর্মই একটি মঞ্চে তুলে দেওয়াই ‘ক্লাউড কম্পিউটিং'এর মূলমন্ত্র৷

এবারের সেবিট মেলায় আকাশের এই মেঘের একটি আলাদা ছোট সংস্করণও দেখা যাচ্ছে৷ দূরের কোনো সার্ভারে তথ্য না পাঠিয়ে ঘরের মধ্যেও নিজস্ব মেঘ গড়ে তোলা সম্ভব৷ আজকাল অনেকের বাড়িতেই একাধিক কম্পিউটার রয়েছে৷ রয়েছে স্মার্টফোন, উন্নত প্রযুক্তির টেলিভিশন ও মিউজিক সিস্টেম, যা নেটওয়ার্কের অংশ হতে পারে৷ ফলে ডিজিটাল ক্যামেরায় তোলা ছবি, গানের এমপিথ্রি ফাইল বা ভিডিও ‘হোম ক্লাউড'এর জিম্মায় রেখে দিলে যে কেউ যখন খুশি তার নাগাল পেতে পারে৷ ফলে আকাশের মেঘ এবার ঢুকে পড়তে পারে আপনারই বৈঠকখানায় – তবে অন্ধকার নয়, আলো এনে দেবে এই ক্লাউড৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়