1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মৃত্যুর আগে বন্ধুর কাছ থেকেই মাদক পেতেন অ্যানা

যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক মডেল ও অভিনেত্রী অ্যানা নিকোল স্মিথের মৃত্যু রহস্য নিয়ে আবারও চাঞ্চল্যকর তথ্য পাওয়া গেছে৷ তাঁর দেহরক্ষী আদালতে জানিয়েছেন যে অ্যানার ছেলেবন্ধু এবং চিকিৎসক তাঁকে মাদক সরবরাহ করতো৷

Anna Nicole Smith

অ্যানা নিকোল স্মিথ

গত ২০০৭ সালের ৮ই ফেব্রুয়ারি ফ্লোরিডার একটি হোটেলের কক্ষে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায় সাবেক প্লেবয় মডেল অ্যানা নিকোল স্মিথকে৷ তাঁর এই হঠাৎ মৃত্যু ছিল সকলের কাছেই অপ্রত্যাশিত৷ এরপর থেকে চলছে এই মৃত্যু নিয়ে তদন্ত৷ তাঁর মৃত্যুর পেছনে অতিরিক্ত মাদক নেওয়া দায়ী বলে জানা যায়৷ এই মাদক সরবরাহের জন্য তাঁর ছেলেবন্ধু হাওয়ার্ড স্টার্ন এবং দুই চিকিৎসক ক্রিস্টিন এরোসেভিচ ও সন্দিপ কাপুরের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ আনা হয়৷

Anna Nicole Smith and her son Daniel Smith

ছেলে ড্যানিয়েলের মৃত্যুর পর মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন অ্যানা

শুক্রবার আদালতে এই মামলায় সাক্ষ্য দেন অ্যানার সেসময়কার দেহরক্ষী মরিস ব্রাইটহাউপট৷ তাঁর বক্তব্য থেকে জানা যায়, নিয়মিত কড়া ডোজের ওষুধ নিতেন মডেল অ্যানা নিকোল স্মিথ৷ মরিসের ভাষায়, ‘প্রথমে তিনি এটা চাইতেন, যদি না দেওয়া হতো, তাহলে মাদকাসক্তদের মত পীড়াপীড়ি শুরু করতেন৷' তিনি জানান, মারা যাওয়ার বছর খানেক আগে থেকেই কড়া ডোজের ওষুধে আসক্ত হয়ে পড়েন যুক্তরাষ্ট্রের মডেল তারকা অ্যানা৷ এইসময় মরিস একাধিকবার হাওয়ার্ড স্টার্নকে দেখেছেন অ্যানাকে সিরিঞ্জের মাধ্যমে মাদক দিতে৷ এছাড়া একজন চিকিৎসককেও তিনি দেখেছেন অ্যানাকে কড়া মাত্রার ওষুধ এনে দিতে৷

কিন্তু কেন এই সুপার মডেল আসক্ত হয়ে পড়েছিলেন? মরিস জানান, ২০০৬ সালে অ্যানার ছেলে মারা যাওয়ার পর থেকে তিনি অত্যন্ত হতাশায় ভুগতে থাকেন৷ বিষন্নতায় ভুগতে ভুগতে একসময় তিনি মাদক নেওয়া শুরু করেন৷ প্রতিদিন অ্যানা একবারে ২০টি করে ট্যাবলেট গিলতেন এবং ১২ ঘন্টার বেশি সময় ঘুমাতেন বলে জানিয়েছেন দেহরক্ষী মরিস ব্রাইটহাউপট৷

প্রতিবেদন: রিয়াজুল ইসলাম

সম্পাদনা: জাহিদুল হক