1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

মুসলিম ভোটারদের জন্য নির্বাচনি জরিপ প্রকাশ

জার্মানির ইসলামিক সংগঠনগুলোর একটি জোট মুসলমানদের নিয়ে মূলধারার রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত জানতে এক জরিপ করেছে৷ এ সবের মধ্যে খৎনা থেকে শরণার্থী নীতি অবধি নানা ইস্যু রয়েছে৷ তবে একটি দল ছাড়া বাকি সবাই জরিপে অংশ নিয়েছে৷

জার্মানির সেন্ট্রাল কাউন্সিল অফ মুসলিমস, জার্মান মুসলিম লিগ এবং ইসলামিশে সাইটুং পত্রিকাটি সোমবার তাদের জরিপের ফলাফল প্রকাশ করেছে৷ আসন্ন জার্মান নির্বাচনে এ সব দল অংশ নিচ্ছে৷

গোটা জার্মানির ৬১ দশমিক পাঁচ মিলিয়ন ভোটারের মধ্যে মুসলমান ভোটারের সংখ্যা ১ দশমিক ৫ মিলিয়ন৷ আগামী ২৪ সেপ্টেম্বরের নির্বাচনে তাঁদের সবার ভোট দেয়ার সুযোগ রয়েছে৷ জরিপের প্রকাশক আইমান মাজেক, বেলাল এল-মোগাদ্দেদী এবং সুলাইমান উইল্মস জানান যে, অন্যান্য সব ভোটারদের মতোই মুসলিম ভোটাররাও অবসর, জলবায়ু সুরক্ষা এবং শিক্ষা বিষয়ে দলগুলোর অবস্থান জানতে চান৷ জরিপে সেসব বিষয় ভালোভাবে অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে বলে জানান তাঁরা৷

তাঁরা লিখেছেন, ‘‘ইসলামের প্রতি যখন প্রতিকূল আচরণ ক্রমশ বাড়ছে, তখন জার্মানির মুসলমানরাইসলাম ও  মুসলমান নাগরিকদের নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলো কী ভাবছে তাও ভোট দেয়ার আগে বিবেচনায় আনছেন৷''

গবেষকরা বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কাছে ৩০টি প্রশ্ন পাঠিয়েছিলেন৷ এ সব প্রশ্নের মধ্যে জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক ইস্যু অন্তর্ভূক্ত করা হয়৷ বামদল, সবুজ দল, মক্তু গণতন্ত্রী, সামাজিক গণতন্ত্রী (এবং দলটির বাভেরিয়ার অংশ) এবং সামাজিক গণতন্ত্রীরা সব প্রশ্নের উত্তর দিয়েছে৷

‘‘একমাত্র দল, যে টেলিফোন এবং ই-মেলে বারংবার চেষ্টা সত্ত্বেও জরিপে অংশ নেয়নি, সেটা হচ্ছে এএফডি'', লিখেছেন জরিপের প্রকাশকরা৷ বলা বাহুল্য, এএফডি নামের রাজনৈতিক দলটি ইসলামবিরোধী এবং অভিবাসনবিরোধী দল হিসেবে পরিচিত৷

মুসলিম সংগঠনগুলোর জোটের জরিপে বিতর্কিত বিষয়ও গুরুত্ব পায়৷ রাজনৈতিক দলগুলোর কাছে মুসলমানদের খৎনা এবং কোরবানির সময় পশু জবাই দেয়ার মতো বিতর্কিত বিষয়ে তাদের অবস্থান জানতে চাওয়া হয়৷ পাশাপাশি, সমাজের, অর্থনীতির, রাজনীতির, গণমাধ্যমের এবং সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমের কিছু অংশ মুসলমানদের প্রতি বৈষম্য নিরসনে দলগুলো কী ভূমিকা রাখতে পারে, তাও জানতে চাওয়া হয়৷ জরিপের উত্তর দেয়া সবাই বৈষম্যের বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থানের কথা জানিয়েছে৷

এছাড়া অস্ত্র রপ্তানি এবং দ্বৈত নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে দলগুলোর অবস্থানও জানতে চাওয়া হয়৷ পুরো জরিপটি পাওয়া যাবে এই লিংকে (জার্মান ভাষা)৷ 

এআই/ডিজি (ডিপিএ, কেএনএ, ইপিডি)

জার্মান নির্বাচন নিয়ে আপনার কোনো প্রশ্ন থাকলে লিখুন নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়