1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

মুসলিমবিদ্বেষী মন্তব্যের জন্য বিচার হবে তাঁর

মুসলমানরা নাকি এখন দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার নাৎসিদের মতো ফ্রান্স দখল করে ফেলছে! এমন মন্তব্য করেও অনুতপ্ত নন মারিঁ ল্য পেন৷ তবে এবার বিচার হবে, আদালতে যেতে হবে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের এই ডেপুটিকে৷

ফ্রান্সের ডানপন্থী দল ন্যাশনাল ফ্রন্টের নেত্রী মারিঁ ল্য পেন সে দেশের মুসলিম অভিবাসীদের নিয়ে এমন মন্তব্য করেছিলেন দু'বছর আগে৷ বিতর্কের ঝড় উঠেছিল তখনই৷ তবে ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের ডেপুটি বলে তাঁর বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া যাচ্ছিল না৷ নিয়ম অনুযায়ী ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টের প্রত্যেক সদস্যই আইনি নিরাপত্তা পেয়ে থাকেন৷ সম্প্রতি মারিঁ ল্য পেনের কাছ থেকে এই অধিকার কেড়ে নেয়ার প্রস্তাব রাখা হয় ইউরোপিয়ান পার্লামেন্টে৷ অধিকাংশ সদস্যের ভোটে সেই প্রস্তাব পাশ হয়েছে৷ ফরাসি এই নেত্রীর এবার কাঠগড়ায় দাঁড়ানোর পালা৷

Marine Le Pen, France's National Front leader and candidate for the legislative elections, reacts as she speaks with supporters after she lost in the run-off election in Henin-Beaumont June 17, 2012. REUTERS/Jean-Yves Bonvarlet (FRANCE - Tags: POLITICS ELECTIONS)

ফ্রান্সের ডানপন্থী দল ন্যাশনাল ফ্রন্টের নেত্রী মারিঁ ল্য পেন

তাতে মোটেই নেই মারিঁ ল্য পেন৷ বিশ্বের প্রায় সব ডানপন্থী দলের মতো তাঁর ন্যাশনাল ফ্রন্টও প্রতিষ্ঠার পর থেকেই মূলত বিদ্বেষ ছড়ানোর কাজই করে আসছে৷ ২০১১ সালে তাঁর বাবা জঁ ল্য পেন মারা যান৷ তখন থেকে মারিঁ ল্য পেনই দলের প্রধান৷ ফ্রান্সের সর্বশেষ নির্বাচনে ১৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে ন্যাশনাল ফ্রন্ট৷ দেশে যে তাঁর দলের গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তা অস্বীকার করার জো নেই৷

সে কারণেই হয়ত আদালতে যেতে হবে শুনেও মারিঁ ল্য পেন বলতে পেরেছেন, ‘‘ফরাসিদের সত্য কথাটা বলতে পারে এমন লোকের দরকার আছে – এটা বোঝাতে আমি মাথা উঁচু করেই আদালতে যাবো৷'' ফ্রান্সের এক টেলিভিশন চ্যানেলকে তিনি বলেছেন, মুসলমানদের সম্পর্কে তাঁর মন্তব্য অযৌক্তিক নয়, দোষ যদি কিছু হয়ে থাকে সেটা ‘চিন্তা করার দোষ'৷

মারিঁ ল্য পেনের বিচার হবে সাম্প্রদায়িক বিদ্বেষপূর্ণ মন্তব্য করার অভিযোগে৷ অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ এক বছরের জেল এবং ৪৫ হাজার ইউরো জরিমানা হবে তাঁর৷

এসিবি/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন