1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

মুরসির নতুন বিচার, প্রকাশ্যে মুসলিম সিস্টারহুড

বিদেশি সংগঠনগুলোর সঙ্গে ষড়যন্ত্র করাসহ সন্ত্রাসী তৎপরতা চালানোর অভিযোগে মিশরের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির বিরুদ্ধে বিচার শুরুর ঘোষণা দেয়া হয়েছে৷ অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাঁকে মৃত্যুদণ্ডও দেয়া হতে পারে৷

মুরসি ফিলিস্তিনি জঙ্গি গোষ্ঠী হামাস এবং লেবাননের হেজবুল্লাহর সঙ্গে জোট গড়ে তুলেছিলেন বলে জানান কৌঁসুলিরা৷ মুরসির সঙ্গে তাঁর দল মুসলিম ব্রাদারহুডের সাবেক নেতা ও সহযোগী মিলিয়ে আরো ৩৬ জনের বিরুদ্ধেও এ ধরনের অভিযোগ আনা হচ্ছে৷

জুলাইয়ে সেনাবাহিনীর হাতে ক্ষমতাচ্যুত হওয়ার পর খুন ও সহিংসতা উসকে দেয়ার অভিযোগে মুরসির বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে একটি বিচার শুরু হয়েছে৷ ২০১২ সালের ডিসেম্বরে রাজধানী কায়রোয় প্রেসিডেন্ট প্রাসাদের সামনে বিক্ষোভ দমন অভিযানে নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে সংঘর্ষে মানুষ হতাহতের ঘটনার অভিযোগে গত মাসে মুরসির বিচার শুরু হয়৷ বিচার প্রক্রিয়া মুলতুবি রাখা হয়েছে ৮ জানুয়ারি পর্যন্ত৷

তৎপর মুসলিম সিস্টারহুড

রাজধানী কায়রোতে তীব্র শীতের মধ্যে শুরু হয়েছে বৃষ্টি৷ এরই মধ্যে চলছে বিক্ষোভ৷ এবার মুরসিকে ক্ষমতায় ফিরিয়ে আনার দাবিতে বিক্ষোভে নেমেছে মিশরের নারীরা৷ দলের নাম ‘মুসলিম সিস্টারহুড' – যারা মুরসির দল মুসলিম ব্রাদারহুডের নারী সংগঠনের সদস্য৷ এদের বেশিরভাগই শিক্ষার্থী৷

বুধবার রাতভর বিক্ষোভের সময় পুলিশ তাদের উপর কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে৷ কিন্তু নারী সমর্থকদের পিছু হঠাতে পারেনি তারা৷ এবারই প্রথম দলের নারী সদস্যরা প্রকাশ্যে বিক্ষোভে নামলেন৷

মুসলিম সিস্টারহুড সম্পর্কে অন্যান্য দলগুলোর মত হলো, মুসলিম ব্রাদারহুডকে বাঁচাতে এটি একটি আন্তর্জাতিক কৌশল৷ কেননা নিরাপত্তা কর্মকর্তারা নারীদের সাথে কঠোর আচরণ করবে না বলে মনে করা হয় এবং এর মাধ্যমে বিক্ষোভকেও জিইয়ে রাখা যাবে৷ এমনকি জনগণের সমর্থন আদায়েও সুবিধা হবে৷

এই নারী সংগঠনটি এতোদিন প্রকাশ্যে কাজ না করে পরিবার কেন্দ্রিকভাবে কাজ করেছে এবং এক্ষেত্রে তারা বেশ সংগঠিত ও একনিষ্ঠ৷ কিছু কিছু ক্ষেত্রে অবশ্য বেশ আগ্রাসী৷ মুরসির পতনের পর গত কয়েক মাস আড়ালে থেকেও তারা আন্দোলন চালিয়ে গেছে৷

সৌহিদা আব্দেল রহমান এমনই একজন সদস্য৷ যার বয়স মাত্র ১৩ বছর৷ তিনি বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, তারা ধর্ম রক্ষার জন্য এই আন্দোলনে নেমেছেন৷ মুরসির পক্ষে বিক্ষোভের জন্য অক্টোবরে আলেকজান্দ্রিয়া থেকে মা-সহ আটক করা হয়েছিল তাকে৷ তবে বয়সের কারণে তাকে ছেড়ে দেয়া হলেও মা এখনও আটক৷ সৌহিদা এপিকে আরো জানায়, সেনাবাহিনী তাদের মেরুদণ্ড ভেঙে দেয়ার চেষ্টা করছে, কিন্তু তারা আর পিছু হটবে না৷

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র জানান, এই আন্দোলনে নারী এবং শিক্ষার্থীদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে৷ বিশেষ করে নারীদের, কেননা প্রকাশ্যে আন্দোলন না করায় তাদের পরিচয় নিরাপত্তারক্ষীদের কাছে অজানা৷ তবে অক্টোবরে আলেকজান্দ্রিয়ায় বিক্ষোভের সময় ২১ নারী আটক হন৷ এদের অনেককেই ১১ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত৷ গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই রাজধানী কায়রোর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ করছে মুসলিম সিস্টারহুড এবং দলে আরো নারীদের টানার চেষ্টা করছে তারা৷

এপিবি/জেডএইচ (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়