1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভারত

মুম্বইয়ে অগ্নিকাণ্ডে গ্রেফতার দুই

মুম্বইয়ের কমলা মিল বিল্ডিংয়ে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় দু'জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ৷ রবিবার রাতে কেভিন বাওয়া ও লিসবন লোপেজকে গ্রেফতার করা হয়৷ অভিযুক্ত দু'জনেই ‘ওয়ান অ্যাবভ' নামক একটি রেস্তোরাঁর ম্যানেজার৷

ওই রেস্তোরাঁ থেকেই শনিবার আগুন ছড়ায় বলে অনুমান৷ পুলিশ সূত্রে খবর, ঘটনার দিন রেস্তোরাঁর ‘রুফ টপ'-এ জন্মদিনের পার্টি চলছিল৷ তখনই আগুন লাগে৷ দ্রুত ছাত থেকে নামতে গিয়ে পদপিষ্ট হয়ে ১৪ জনের মৃত্যু হয়৷ যাঁর মধ্যে ১২ জনই মহিলা৷ প্রত্যক্ষদর্শীদের বয়ান অনুযায়ী, দ্রুত ছাত থেকে নামার সময় সংকীর্ণ সিঁড়িতে প্রবল ধোঁয়ায় দম বন্ধ হয়ে আসে৷ যার জেরে পড়ে যান অনেকে৷ বাকিরা তাঁদের উপর দিয়ে দ্রুত নেমে যাওয়ার চেষ্টা করেন৷ ঘটনাস্থলেই অনেকের মৃত্যু হয়৷ বাকিদের নিয়ে যাওয়া হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে৷ প্রায় তিন ঘণ্টার চেষ্টায় দমকলকর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন৷

মুম্বইয়ের কমলা মিল সংলগ্ন অঞ্চল পরিচিত এলাকা৷ কয়েকটি সংবাদমাধ্যমের দফতরও আছে সেখানে৷ আগুন লাগার পর খবর সম্প্রচারও বন্ধ করে দিতে হয়েছিল দফতরের নিরাপত্তার কারণে৷ সাধারণ মানুষের অভিযোগ, জনবহুল ওই অঞ্চলে অগ্নিনির্বাপণের কোনো ব্যবস্থাই নেই৷ ফলে এর আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে৷ তবে এবারের ঘটনা অতীতের সব অগ্নিকাণ্ডকে ছাপিয়ে গিয়েছে৷ অগ্নিনির্বাপণের ব্যবস্থা না থাকার কারণেই পুলিশ ওই রেস্তোরাঁর দুই ম্যানেজারকে গ্রেফতার করেছে৷ তবে আগুন লাগার কারণ এখনও জানা যায়নি৷

ভারতের বিভিন্ন প্রদেশে, বিশেষত মুম্বইয়ে এমন অগ্নিকাণ্ড এখন প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা৷ তা সে কলকাতার পার্ক স্ট্রিটেই হোক কিংবা মুম্বইয়ের কমলা মিল অঞ্চল৷ বিশেষজ্ঞদের মতে, অগ্নিনির্বাপণের সাধারণ নিয়মগুলিও কোথাও মানা হয় না৷ শুধু তাই নয়, আগুন লাগলে রেসকিউয়ের কোনো ব্যবস্থা থাকে না অধিকাংশ জায়গায়৷ ‘ফায়ার এগজিট' থাকলে শনিবারের ঘটনায় প্রাণহানি এড়ানো যেত বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞেরা৷

এসজি/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়